২০০৮ সালে সুরাটে অবৈধ নির্মাণ ভাঙার অভিযানের ভিডিও বিভ্রান্তিকর দাবি সমেত আবার প্রচার করা হচ্ছে

বুম দেখে যে ভিডিওটি ২০০৮ সালের, যখন গুজরাটের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বেআইনি নির্মাণ ভাঙার নির্দেশ দেন।

গুজরাটে বেআইনি নির্মাণ ভাঙার সংবাদের এক ভিডিও ক্লিপ সোশাল মিডিয়ায় মিথ্যে দাবি সমেত ভেসে উঠেছে। বলা হচ্ছে সরকার নাকি শিল্পপতিদের জমি দেওয়ার জন্য সব মন্দির ভেঙে দিচ্ছে।

এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত ভিডিওটি ১০,০০০ বার দেখা হয়। তার ক্যাপশনে বলা হয়েছে, “আম্বানিদের জমি দেওয়ার জন্য মোদী ৫০ মন্দির ভেঙেছেন।”

বুম দেখে ক্লিপটি আসলে ২০০৮ সালের এনডিটিভির সংবাদ বুলেটিনের একটি কাটা অংশ।

সংবাদ বুলেটিনটি ১ মিনিট ১২ সেকেন্ডের। তাতে ভাষ্যকার বলেন, “মঙ্গলবার রাতে, পৌরসভা একটি মন্দির ভাঙার চেষ্টা করলে সুরাটে ধুন্ধুমার কান্ড বেধে যায়। রাজ্য সরকার বেআইনি নির্মাণ ভাঙার এক ব্যাপক অভিযান শুরু করেছে। এর আগে, রাজ্যের রাজধানী গান্ধীনগরে ৫০ টির বেশি মন্দির ভাঙা হয়।”

ওই বুলেটিনে গান্ধীনগরের বাসিন্দাদের প্রতিক্রিয়াও তুলে ধরা হয়। মন্দিরসহ সব অবৈধ নির্মাণ ভেঙে দেওয়ার যে পদক্ষেপ মোদী নিয়ে ছিলেন, তার সমালোচনা করেন ওই ব্যক্তিরা।



ফেসবুক পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে। টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিওটির প্রধান ফ্রেমগুলি বেছে নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে। তার ফলে, সংবাদ বুলেটিনের পুরো ভিডিওটা সামনে আসে। দেখা যায় সেটি ২০ নভেম্বর ২০০৮ তারিখে ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছিল।



ঘটনাটি ঘটে ২০০৮ সালের নভেম্বর মাসে। সেই সময় গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন নরেন্দ্র মোদী। উনিই সারা রাজ্যে সমস্ত বেআইনি নির্মাণ ভেঙ্গে দেওয়ার নির্দেশ দেন। তারই ভিত্তিতে অবৈধ বাড়িঘর ভেঙ্গে দেওয়ার অভিযান শুরু হলে, সুরাটে সংঘর্ষ বেধে যায়।

রাজ্যব্যাপি ওই অভিযান শুধু মাত্র মন্দিরগুলিকেই নিশানা করেছিল, তা নয়। তার আওতায় পড়েছিল সব ধরনের অবৈধ নির্মাণ। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ, বজরঙ্গ দল, এবং অন্যান্য হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি ওই অভিযানের বিরোধিতা করে। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়, ওই পদক্ষেপ হিন্দুদের ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত করেছে।

ওই একই ভিডিও আগেও একবার ভাইরাল হয়েছিল। তখন বলা হয়েছিল প্রধানমন্ত্রী মোদী হিন্দু ধর্মে বিশ্বাস করেন না। ওই তত্ত্ব খন্ডন-করা বুমের প্রতিবেদন এখানে পড়ুন।

সেই সময়ের ভিএইচপি প্রেসিডেন্ট অশোক সিঙ্ঘল মোদীর সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। তারপরই, অভিযানটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এনডিটিভি পরের পরিস্থিতি সম্পর্কেও রিপোর্ট করে। সেই সংক্রান্ত সংবাদের ক্লিপ নীচে দেওয়া হল।



এই ভিডিও ক্লিপটি আগেও ভাইরাল হয়েছিল। তখন দাবি করা হয়েছিল যে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হিন্দু ধর্মে বিশ্বাস করেন না। বুম সেই দাবি নস্যাৎ করেছিল। এখানে পড়ুন

Claim Review :   মোদী ৫০ টি মন্দির ভাঙছেন আম্বানিকে জায়গা হস্তান্তর করতে
Claimed By :  FACEBOOK PAGES AND TWITTER HANDLES
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story