নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় হাতে গ্লাভস পরে থাকার কারণ ব্যাখ্যা করলেন মিমি চক্রবর্তী

মিমি চক্রবর্তী প্রচারে বেরিয়ে জনসাধারণের সঙ্গে করমর্দন করার সময় হাতে দস্তানা পরে থাকছেন—এমন ফোটোগ্রাফ সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে l

ফোটোটিতে যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থীকে একটি মোটরগাড়ির সামনের সিটে বসে জানলা দিয়ে হাত বাড়িয়ে আগ্রহী ভোটারদের সঙ্গে করমর্দন করতে দেখা যাচ্ছে । নেটিজেনদের অভিযোগ—এ ভাবে ভোটারদের সঙ্গে হাত মেলানোর এই ভঙ্গিমার মাধ্যমে মিমি যেন দলিত ও দরিদ্র ভোটারদের অচ্ছুত্ করে রাখতে চাইছেন ।



শুধু টুইটারে নয়, ফেসবুকেও মিমি তীব্র সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছেন সাধারণ মানুষের থেকে এ ভাবে দূরত্ব রচনা করার জন্য । বিজেপির কর্মী ঋষি বাগড়ি ছবিটি টুইট করে ক্যাপশন দিয়েছেন—“যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী নিজেকে এতই অভিজাত মনে করেন যে নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়েও নির্লজ্জের মতো তিনি নিজের ভোটারদের সঙ্গে হাত মেলাবার আগে হাতে দস্তানা পরে নিচ্ছেন ।”

বুম এ ব্যাপারে মিমি টক্রবর্তীর সঙ্গে যোগাযোগ করে । তাঁর ম্যানেজার জানান—“দস্তানা পরার পিছনে লোকের হাত ছুঁতে না চাওয়ার কোনও অভিপ্রায় নেই, এটা নিছকই চিকিত্সাগত কারণে পরতে হয়েছে । একটা প্রচারপর্ব সেরে ফেরার সময় মিমির হাতে ফুলের বোকে থেকে কাঁটা লেগে ছড়ে যায়, সেখানে মলম লাগাতে হয় । যেহেতু প্রায় সর্বক্ষণই প্রচারের কাজে যুক্ত থাকতে হচ্ছে, তাই আবার লোকের হাতের ঘষা লেগে যাতে সেই মলম উঠে না যায়, সে জন্যই দস্তানা পরা ।”

মিমির ম্যানেজারের বক্তব্য—ছবিটা অভিসন্ধি নিয়েই তোলা হয়েছে । “আমরা ২৫ মার্চ থেকে প্রচারে বেরিয়েছি এবং আমাদের মোটে দম ফেলার ফুরসত নেই । আমরা সারাক্ষণই হাঁটছি, বহু লোকের সঙ্গে দেখাসাক্ষাত্ হচ্ছে এবং মিমি নিশ্চয় অনেকবারই নানা রকম চোট পাচ্ছে । একটা মাত্র ছবি দেখিয়ে তার অভিজাতসুলভ আচরণকে নিন্দা করার উদ্দেশ্য তার চরিত্রে কালিমা লেপন করা । মিমি অত্যন্ত জনপ্রিয় একজন তারকা, লোকে তাঁর কাছে দলে-দলে আসছে, এ জন্যই তাঁকে এভাবে হেয় করার চেষ্টা ।”

Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.