প্লাবিত অসম: ভাইরাল হল প্লাবনের পুরনো ছবি

বুম অনুসন্ধান করে দেখেছে যে অসমের আগের বন্যার পুরনো ছবি সাম্প্রতিক বন্যার ছবি বলে ভাইরাল হয়েছে।

সোশাল মিডিয়ায় বেশ কয়েকটি ছবি অসমে সাম্প্রতিক বন্যা পরিস্থিতির ছবি হিসাবে ভাইরাল হয়েছে। কিন্তু ছবিগুলির এই দাবি আসলে মিথ্যে।

আমরা টুইটারে দেখতে পাই ইউজাররা #অসম ফ্লাড এই হ্যাসটাগে এই ছবিগুলি সাম্প্রতিক বন্যার ছবি বলে শেয়ার করেছেন। অসমে বন্যা পরিস্তিতির ফলে প্রায় ২৬ লক্ষ মানুষের জীবন বিপর্যস্ত এবং ১১ জন ব্যাক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে

যে টুইটে ছবিগুলি সাম্প্রতিক বলে দাবি করা হয়েছে।

টুইটটি দেখা যাবে এখানে। টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে। এই প্রতিবেদনটি লেখা পর্যন্ত টুইটটি ২৬৫ বার রিটুইট করা হয়েছে এবং ৩১০টি লাইক পেয়েছে।



তথ্য যাচাই

১. ছবি

পুরনো ছবি।

রাশিয়ান সার্চ ইঞ্জিন ইয়ান্ডেক্সে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে আমরা দেখতে পাই যে এই ছবিটি পুরনো।

ইয়ান্ডেক্সে সার্চের ফল।

এই সার্চের ফলে আমরা কিছু ছবি দেখতে পাই যার শিরোনাম ছিল '২০০৮ বিহার বন্যা'। আমরা ২০১৬ সালের 'বন্যা পরিস্তিতি সামলাতে বিহার সরকারের প্রস্তুতি' নামে অমর উজালার একটি প্রতিবেদন দেখতে পাই।

২০১৬ সালের অমর উজালার প্রতিবেদনে ওই একই ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

২. ছবি

২০১৬ সালের জুলাইয়ের ছবি।

গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করে জানা গেছে এএফপি-র পক্ষ থেকে কুলেন্দু কলিতা এই ছবিটি তুলেছিলেন ২০১৬ সালে, যখন অসমে বন্যা হয়েছিল।

চিত্র সৌজন্য কুলেন্দু কলিতা/ এএফপি/ গেটি ইমেজ

ছবিটির বর্ণনায় লেখা হয়েছে, "২০১৬-র ২৭ জুলাই দক্ষিণ-পশ্চিম গৌহাটির দক্ষিণ কামরূপের ব্রহ্মপুত্র নদের কাছে বাতাহিদিয়ায় ভারতীয় বাচ্চারা জলে ডুবে যাওয়া বাড়ির ছাদে বসে আছে।"

৩. ছবি

২০১৭ সালের অগস্টের ছবি।

অসমের কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কে বন্যার জলে বাঘের মৃতদেহ ভাসার ছবিটি ২০১৭ সালের অগস্টের।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের প্রতিবেদনে প্রকাশিত ছবি।

২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে যখন এই ছবিটি ভাইরাল হয়েছিল, বুম তথন ছবিটি যাচাই করে দেখেছিল যে এটি অসমে বন্যার সময় কাজিরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কের ছবি।

Updated On: 2020-09-14T13:44:20+05:30
Claim Review :   জুলাই ২০১৯ এর অসমে বন্যার ছবি
Claimed By :  TWITTER
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story