বিজেপি ৩২৩টিরও বেশি আসন পাবে বলে যে বিবিসি সমীক্ষা বাজারে ছাড়া হয়েছে, সেটি ভুয়ো

একটি ভুয়ো পোস্টে দাবি করা হয়েছে যে, সিআইএ এবং আইএসআই-এর করা সমীক্ষায় নাকি লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিপুল সাফল্যের ভবিষ্দ্বাণী করা হয়েছে এবং নরেন্দ্র মোদীকে ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা বলে তুলে ধরা হয়েছে

সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভুয়ো প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে যে, লোকসভা নির্বাচনে শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বিপুল ব্যবধানে জয়লাভ করবে । ভুয়ো সমীক্ষাটি বিখ্যাত মিডিয়া প্রতিষ্ঠান ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিঁ কর্পোরেশন বা বিবিসি-র করা বলে ভুয়ো পোস্টটিতে দাবি করা হলেও বিবিসি এ ধরনের সমীক্ষা করার কথা অস্বীকার করেছে । ভুয়ো পোস্টটিতে বিজেপি কতগুলি আসনে জিতবে, তার একটা পূর্বাভাসও দেওয়া হয়েছে—৩২৩ ।

পোস্টটি ভাইরাল হয়েছে, যার ক্যাপশনে লেখা হয়েছে—“সিআইএ ও আইএসআই-এর সমীক্ষা অনুযায়ী বিজেপি লোকসভা নির্বাচনে অনেক বেশি আসন জিতবে” এবং বলা হয়েছে, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা” ।

বুম তার হোয়াট্স্যাপ হেল্পলাইন নম্বরেও (৭৭০০৯০৬১১১) ভুয়ো পোস্টটির বার্তা পেয়েছে এবং দেখেছে ফেসবুক ও টুইটারেও পোস্টটি ভাইরাল হয়েছে ।

পোস্টগুলি দেখতে এখানে ক্লিক করুন এবং তার আর্কাইভ বয়ান দেখতে এখানে

ভুয়ো সমীক্ষাটিতে বিজেপি রাজ্য-পিছু কতগুলি আসন জিতবে, তারও একটা হিসাব দেওয়া হয়েছে এবং সারা দেশে কতগুলি আসন পাবে, তারও । যেমন গুজরাটে ২৬টি আসনের মধ্যে বিজেপি নাকি ২৪ থেকে ২৫টিই জিতে নেবে আর হিমাচলপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, অরুণাচল প্রদেশের ৪টি আসনেই জয়ী হবে ।

ভুয়ো পোস্টটির দাবি, এই সমীক্ষা চালিয়েছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি বা সিআইএ এবং পাকিস্তানি সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টারসার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স বা আইএসআই ।

সমীক্ষাটি শেষ করা হয়েছে এই লাইনটি দিয়েঃ আজকের ভারতে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হলেন নরেন্দ্র মোদী ।

তথ্য যাচাই

বুম বিবিসি-র ওয়েবসাইটে গিয়ে তন্ন-তন্ন করে খুঁজে দেখেছে, এ ধরনের কোনও সমীক্ষা তারা চালিয়েছে কিনা, কিন্তু কোত্থাও তার কোনও হদিশ পায়নি । ভুয়ো পোস্টটিকে বিশ্বাসযোগ্য করতে সমীক্ষার সঙ্গে বিবিসি-র ইউআরএল এবং লোগো বা প্রতীকও জুড়ে দেওয়া হয়েছে । কিন্তু ওই ইউআরএল-এ ক্লিক করলে সেটা বিবিসির হোমপেজ-এ নিয়ে যায়, নির্বাচনী সমীক্ষা সংক্রান্ত কোনও প্রতিবেদনের হদিশ সেখানে নেই ।

অতঃপর বুম বিবিসি-র সঙ্গেও যোগাযোগ করে । বিবিসি জানিয়ে দেয়, এমন কোনও সমীক্ষা তারা করেনি এবং এই তথাকথিত সমীক্ষাটি সম্পূর্ণ ভুয়ো ।

বুমকে ই-মেল করে বিবিসি-র মুখপাত্র জানিয়েছেন— “লোকসভা নির্বাচনের উপর এই ভুয়ো সমীক্ষাটি ফেসবুক এবং হোয়াট্স্যাপে ভাইরাল হয়েছে, যাতে দাবি করা হচ্ছে যে বিবিসি নাকি এ ধরনের একটি সমীক্ষা করেছে । আমরা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিতে চাই যে, সমীক্ষাটি ভুয়ো এবং বিবিসি এ ধরনের কোনও সমীক্ষা করেনি । বস্তুত, বিবিসি ভারতের নির্বাচন নিয়ে কোনও প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষা করা সমর্থনও করে না ।”

সোশাল মিডিয়ায় বিজেপির জয়ের পূর্বাভাস দিয়ে এই প্রথম যে একটি প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষা ভাইরাল করা হলো, এমন নয় । রাজস্থান ও গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচনের সময়েও বিবিসি-র নাম করে এ ধরনের ভুয়ো সমীক্ষা বাজারে ছাড়া হয়েছিল, বুম যেগুলির পর্দাফাঁস করেছিল । (দেখুন এখানে এবং এখানে

Claim Review :   প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে যে, লোকসভা নির্বাচনে শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বিপুল ব্যবধানে জয়লাভ করবে
Claimed By :  Social Media
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story