বিজেপি ৩২৩টিরও বেশি আসন পাবে বলে যে বিবিসি সমীক্ষা বাজারে ছাড়া হয়েছে, সেটি ভুয়ো

একটি ভুয়ো পোস্টে দাবি করা হয়েছে যে, সিআইএ এবং আইএসআই-এর করা সমীক্ষায় নাকি লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিপুল সাফল্যের ভবিষ্দ্বাণী করা হয়েছে এবং নরেন্দ্র মোদীকে ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা বলে তুলে ধরা হয়েছে

সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভুয়ো প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে যে, লোকসভা নির্বাচনে শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বিপুল ব্যবধানে জয়লাভ করবে । ভুয়ো সমীক্ষাটি বিখ্যাত মিডিয়া প্রতিষ্ঠান ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিঁ কর্পোরেশন বা বিবিসি-র করা বলে ভুয়ো পোস্টটিতে দাবি করা হলেও বিবিসি এ ধরনের সমীক্ষা করার কথা অস্বীকার করেছে । ভুয়ো পোস্টটিতে বিজেপি কতগুলি আসনে জিতবে, তার একটা পূর্বাভাসও দেওয়া হয়েছে—৩২৩ ।

পোস্টটি ভাইরাল হয়েছে, যার ক্যাপশনে লেখা হয়েছে—“সিআইএ ও আইএসআই-এর সমীক্ষা অনুযায়ী বিজেপি লোকসভা নির্বাচনে অনেক বেশি আসন জিতবে” এবং বলা হয়েছে, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা” ।

বুম তার হোয়াট্স্যাপ হেল্পলাইন নম্বরেও (৭৭০০৯০৬১১১) ভুয়ো পোস্টটির বার্তা পেয়েছে এবং দেখেছে ফেসবুক ও টুইটারেও পোস্টটি ভাইরাল হয়েছে ।

পোস্টগুলি দেখতে এখানে ক্লিক করুন এবং তার আর্কাইভ বয়ান দেখতে এখানে

ভুয়ো সমীক্ষাটিতে বিজেপি রাজ্য-পিছু কতগুলি আসন জিতবে, তারও একটা হিসাব দেওয়া হয়েছে এবং সারা দেশে কতগুলি আসন পাবে, তারও । যেমন গুজরাটে ২৬টি আসনের মধ্যে বিজেপি নাকি ২৪ থেকে ২৫টিই জিতে নেবে আর হিমাচলপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, অরুণাচল প্রদেশের ৪টি আসনেই জয়ী হবে ।

ভুয়ো পোস্টটির দাবি, এই সমীক্ষা চালিয়েছে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সেন্ট্রাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি বা সিআইএ এবং পাকিস্তানি সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টারসার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্স বা আইএসআই ।

সমীক্ষাটি শেষ করা হয়েছে এই লাইনটি দিয়েঃ আজকের ভারতে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা হলেন নরেন্দ্র মোদী ।

তথ্য যাচাই

বুম বিবিসি-র ওয়েবসাইটে গিয়ে তন্ন-তন্ন করে খুঁজে দেখেছে, এ ধরনের কোনও সমীক্ষা তারা চালিয়েছে কিনা, কিন্তু কোত্থাও তার কোনও হদিশ পায়নি । ভুয়ো পোস্টটিকে বিশ্বাসযোগ্য করতে সমীক্ষার সঙ্গে বিবিসি-র ইউআরএল এবং লোগো বা প্রতীকও জুড়ে দেওয়া হয়েছে । কিন্তু ওই ইউআরএল-এ ক্লিক করলে সেটা বিবিসির হোমপেজ-এ নিয়ে যায়, নির্বাচনী সমীক্ষা সংক্রান্ত কোনও প্রতিবেদনের হদিশ সেখানে নেই ।

অতঃপর বুম বিবিসি-র সঙ্গেও যোগাযোগ করে । বিবিসি জানিয়ে দেয়, এমন কোনও সমীক্ষা তারা করেনি এবং এই তথাকথিত সমীক্ষাটি সম্পূর্ণ ভুয়ো ।

বুমকে ই-মেল করে বিবিসি-র মুখপাত্র জানিয়েছেন— “লোকসভা নির্বাচনের উপর এই ভুয়ো সমীক্ষাটি ফেসবুক এবং হোয়াট্স্যাপে ভাইরাল হয়েছে, যাতে দাবি করা হচ্ছে যে বিবিসি নাকি এ ধরনের একটি সমীক্ষা করেছে । আমরা স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিতে চাই যে, সমীক্ষাটি ভুয়ো এবং বিবিসি এ ধরনের কোনও সমীক্ষা করেনি । বস্তুত, বিবিসি ভারতের নির্বাচন নিয়ে কোনও প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষা করা সমর্থনও করে না ।”

সোশাল মিডিয়ায় বিজেপির জয়ের পূর্বাভাস দিয়ে এই প্রথম যে একটি প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষা ভাইরাল করা হলো, এমন নয় । রাজস্থান ও গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচনের সময়েও বিবিসি-র নাম করে এ ধরনের ভুয়ো সমীক্ষা বাজারে ছাড়া হয়েছিল, বুম যেগুলির পর্দাফাঁস করেছিল । (দেখুন এখানে এবং এখানে

Claim :   প্রাক-নির্বাচনী সমীক্ষায় দাবি করা হয়েছে যে, লোকসভা নির্বাচনে শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বিপুল ব্যবধানে জয়লাভ করবে
Claimed By :  Social Media
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.