নির্বাচনে জেতার পর কংগ্রেস সমর্থকরা কি সাম্প্রদায়িক স্লোগান দিয়েছিলেন?

এই ভিডিওটি রাজস্থানে এক মুসলিমের পাশবিক হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদের সময় তোলা হয়েছিল, কংগ্রেস রাজ্যে ভোটে জয়ী হবার পর নয়

২০১৭ সালে রাজস্থানের উদয়পুরে একজন মুসলিমের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদের একটি ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে তার পটভূমিটা সম্পূর্ণ পাল্টে দিয়ে । ক্রুদ্ধ মুসলমানরা সাম্প্রদায়িক স্লোগান দিচ্ছেন-- এই ছবিটাকে ভোটে জয়লাভের পর উল্লসিত কংগ্রেস সমর্থকদের স্লোগানের ছবি বলে চালানো হচ্ছে । ফেসবুকে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে এই ক্যাপশন দিয়েঃ “সাম্প্রতিক ভোট-জয়ের পর কংগ্রেস সমর্থকরা স্লোগান দিচ্ছে । এরপর কী ? বলছে শোনো—তোমরা যদি হিন্দুস্তানে থাকতে চাও, তবে তোমাদের আল্লা-হু-আকবর বলতে হবে । কালা হয়ে যাওয়া হিন্দুরা কি শুনতে পাচ্ছো ?”

২০১৭ সালেও এই একই ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল, যাতে ক্যাপশন ছিলঃ “গুজরাটিরা এবং অবশিষ্ট দেশবাসী চেয়ে দেখো ।“ ওই একই ক্যাপশন এবারও ভিডিওটির সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে এবং হোয়াট্স্যাপেও সেটি শেয়ার হচ্ছে ।

১ মিনিট ৩০ সেকেন্ড স্থায়ী ভিডিওটিতে শ’-খানেক লোককে দেখা যাচ্ছে একটি মূর্তির সামনে দাঁড়িয়ে হিন্দিতে শ্লোগান দিতে । শ্লোগান উঠছে—“হিন্দুস্তান হামারা হ্যায়”, “নরেন্দ্র মোদী নিপাত যাক”, “বজরঙ দল নিপাত যাক”, “শিব সেনা নিপাত যাক”, “হিন্দুস্তান মে রহনা হোগা, তো আল্লা-হু-আকবর কহনা হোগা” এবং “গৈরিক সন্ত্রাস বন্ধ করো”, ইত্যাদি।

তথ্য যাচাই


বুম ভিডিওটি খতিয়ে দেখে বুঝতে পারে, এটি ২০১৭ সালের ৮ ডিসেম্বর উদয়পুর শহরের চেতক সার্কলে তোলা । (ভিডিওটি সম্পর্কে আরও জানতে এখানে দেখুন) । উদয়পুরের মুসলিম সম্প্রদায়ের একটি জমায়েত এই ভিডিও-র বিষয় । মুসলিমরা মহম্মদ আফরাজুল নামে এক মুসলিম শ্রমজীবীর নৃশংস হত্যাকারী শম্ভুলাল রেগর-এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন ।


হত্যাকাণ্ডটি সারা দেশেই আলোড়ন ফেলেছিল, কারণ খুনি রেগর গোটা হত্যাকাণ্ডের ভিডিও তোলার মতো হিংস্র অমানবিকতা দেখিয়েছিল এবং হত্যাটিকে সঠিকও বলেছিল l এ বিষয়ে আরও জানতে এখানে পড়ুন ।

রেগর-এর বর্বরতা প্রচারিত হওয়ার পর গোটা রাজস্থান জুড়েই উত্তেজনা ছড়ায় এবং শহরের স্থানে-স্থানে গুজব ছড়ানোর আশঙ্কায় ইন্টারনেট পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়া হয় । মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যেও স্বাভাবিকভাবেই বিক্ষোভ ছড়ায় এবং তাঁরা নানা স্থানে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন । হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলিও এর পাল্টা বিক্ষোভ দেখাতে থাকে ।

ইউ-টিউবেও বুম এই একই ভিডিও দেখতে পেয়েছে, যার তারিখ ছিল ২০১৭ সালের ডিসেম্বর ।

Show Full Article
Next Story