নমস্কারের ভঙ্গিমায় মহিলার সামনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মাথা নোয়ানোর ছবিটিতে আদানির সহধর্মিনী ছিলেন না

ওই মহিলা হলেন কর্ণটাকের তুমকুর শহরের প্রাক্তন নগরপালিকা গীতা রুদ্রেশ। ২০১৪ সালের বাঙ্গালুরুর বসান্থানারসাপুরা শহরের শিল্পতালুকে একটি খাদ্য পার্কের উদ্বোধনে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সৌজন্যবসত ওই ভঙ্গিমা করেন।

ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এক মহিলার সামনে মাথা নোয়ানোর একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে। ওই পেস্টটিতে দাবি করা হয়েছে ছবিটিতে ছবিটি আদানির স্ত্রীর।

পোস্টে শেয়ার করা ছবিটিতে লেখা হয়েছে, ‘‍‘ভারতবাসী লজ্জায় কোথায় মুখ লুকাবে, আদানির স্ত্রীকে দেখে প্রণাম করার বাহার দেখুন। যেন ওদের বাড়ির চাকর।’’ ছবিটিতে প্রধানমন্ত্রী এক মহিলাকে নমস্কার করতে দেখা যাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীও নমস্কার করার ভঙ্গিমায় মাথা নীচু করেছেন।

পোস্টটিতে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, ‘‍‍‍‘ভাবা যায়? দেশের প্রধানমন্ত্রী? সে কিনা একটা চোর গুজরাতি ব্যবসায়ীর বৌ কে করজোড়ে প্রণাম করছে? যেন গৌতম আদানীর বাড়ির চাকর?’’

এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত পোস্টটি ২৯৫ জন শেয়ার করেছেন। পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

ভাইরাল হওয়া ফেসবুক পোস্ট।

তথ্য যাচাই

বুম রিভার্স সার্চ করে জেনেছে, এই ছবিটি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ঘিরে প্রচলিত গুজবগুলির মধ্যে অন্যতম। আগে বেশ কয়েকটি তথ্য যাচাইকারী সংস্থা এই ছবিটিকে খন্ডন করেছে। ছবিটিতে ওই মহিলা শিল্পপতি গৌতম আদানির স্ত্রী প্রীতি আদানি নন। এই দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যে।

প্রীতি আদানি। ছবি সৌজন্য আদানিডটকম

ওই মহিলা হলেন কর্ণটাকের তুমকুর শহরের প্রাক্তন নগরপালিকা গীতা রুদ্রেশ। ২০১৪ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর বাঙ্গালুরুর ৯০ কিমি অদূরে বসান্থানারসাপুরা শিল্পতালুকে একটি খাদ্য পার্কের উদ্বোধনে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেসময় সৌজন্যবসত ওই ভঙ্গিমায় পরস্পরকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী ও গীতা রুদ্রেশ।

স্বাগতম সৌজন্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও তুমকুরের প্রাক্তন নগরপালিকা গীতা রুদ্রেশ।

২০১৪ সালে এক সংবাদিক সংশয় এড়াতে ছবিটি টুইটও করেছিলেন।



২০১৬ সালে এসএমহোয়াক্সশ্লেয়ার এই ভুয়ো দাবিটি খন্ডন করেছিল।

Claim Review :  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আদানি ঘরনীর সামনে মাথা নোয়াচ্ছেন
Claimed By :  FACEBOOK POST
Fact Check :  FALSE
Next Story