প্রধামন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কী গোপনে মসজিদে কলমা পড়েছিলেন?

মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে সাইফি মসজিদে গিয়েছিলেন তিনি। দাউদি বোহরা সম্প্রদায় আয়েজিত আসুরা দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তিনি।

একজন সোস্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী ভিডিও সহ একটি ফেসবুক পোস্টে দাবি করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লুকিয়ে মসজিদে গিয়ে কলমা পড়ছেন। ৭ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের ওই ভিডিওটিতে প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একটি বেদির ওপরে চেয়ারে হাতে একটি পুস্তিকা নিয়ে বসে থাকতে দেখা যাচ্ছে। পাশে একজন ধর্মগুরুকে স্তোত্র পড়তে দেখা যাচ্ছে।

ওই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী পোস্টির ক্যাপশন লিখেছেন, “জয় শ্রী রাম! …না বললে মহা অপরাধ, তবে মোদীর মত লুকিয়ে লুকিয়ে মসজিদে গিয়ে কালমা পড়লেও দোষ নাই ৷ …যত সব ভোটের আগে হিন্দুত্ব নিয়ে ভেলকি বাজী!” ভাইরাল হওয়া পোস্টটি এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত ১২৯ জন লাইক ও ৩৬৩ জন শেয়ার করেছেন। পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

ভাইরাল হওযা ফেসবুক পোস্টটির স্ক্রিনশট।

তথ্য যাচাই

ভিডিওটি মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ‘আসুরা দিবস’ উপলক্ষ্যে ইসলামীয় দাউদি বোহরা সম্প্রদায় আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী যোগ দেন। ইসলামিক বছরের প্রথম মাস মহরমের শুরুতে হজরত মহম্মদের দৌহিত্র ইমাম হুসেনের মৃত্যু বার্ষিকীর স্মরনে ‘আসুরা দিবস’ পালন করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ইন্দোরের সাইফি মসজিদে ওই সম্প্রদায়ের আমন্ত্রনে সেখানে হাজির হন। পাশে ধর্মীয় স্তোত্র পাঠকারী ব্যক্তি হলের ওই সম্প্রদায়ের প্রধান আধ্যাত্মিক প্রধান সোয়েদনা মুফাদ্দল সইফুদ্দিন। ওই ভিডিওটি সংবাদসংস্থা এএনআই ট্যুইট করেছিল ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮।



এবিপি নিউজের একটি আডিও ভিশুয়াল প্রতিবেদনে ১:৩৩ সময়ে এক ব্যক্তি প্রাধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একটি পুস্তিকা দেন। সে সময় ধর্মীয় স্তোত্র পাঠ শুরু হলেও প্রধানমন্ত্রীকে নিবিষ্ট মনে ওই পুস্তিকার পাতা ওলটাতে দেখা যায়। তিনি কোনও স্তোত্র পাঠ করেননি।



প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ওই অনুষ্ঠানে যোগদানের সমগ্র ভিডিওটি দেখা যাবে ভারতীয় জনতা পার্টির ইউটিউব চ্যানেলে। ওই অনুষ্ঠানে যোগদানের ব্যাপারে 'ইন্ডিয়া টুডে' ও 'দ্য হিন্দু বিজনেস লাইন'-এ প্রকাশিত প্রতিবেদন পড়া যাবে এখানেএখানে

Claim Review :  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লুকিয়ে মসজিদে গিয়ে কলমা পড়ছেন
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story