আবু ধাবির যুবরাজের স্ত্রী কি সত্যিই রামায়ণ মাথায় করে বয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন?

আবু ধাবির প্রথম হিন্দু মন্দিরের নির্মাণ কাজ এখনো শেষ হয়নি।

ধর্মগুরু মোরারি বাপু-র ২০১৬ সালের একটি ভিডিও মিথ্যে দাবির সঙ্গে এখন ফেসবুকে শেয়ার করা হয়েছে। ভিডিওটিতে দাবি করা হয়েছে যে আবু ধাবির যুবরাজ শেখ প্রিন্স মহম্মদ বিন জায়েদ আল নাহান-এর স্ত্রী রামায়ণ মাথায় করে সে দেশের প্রথম হিন্দু মন্দিরে বয়ে নিয়ে যান।

৫৫ সেকেন্ডের ভিডিও ক্লিপটিতে একটি ধর্মীয় আচার চলার সময় এক ভদ্রমহিলাকে দেখা যায় মাথায় কোনও পবিত্র বই বয়ে নিয়ে যেতে।

ভিডিওর সঙ্গে যে ক্যাপশন আছে, তাতে বলা হয়েছে, “সুলতান শেখ মহম্মদ নরেন্দ্র মোদীকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুসারে আবু ধাবিতে প্রথম হিন্দু মন্দির তৈরি করে দিয়েছেন। সুলতানের স্ত্রী সুলতানের সঙ্গে ধর্মীয় বক্তা মোরারি বাপুর উপস্থিতিতে রামায়ণ মাথায় করে মন্দিরে নিয়ে যাচ্ছেন।দেখবার মত দৃশ্য।

(যে হিন্দি টেক্সট থেকে অনুবাদ করা হয়েছেঃ सुल्तानशेखमोहम्मदनेअबूधाबीमें, प्रधानमंत्री नरेंद्र मोदी से अपने वादे के अनुसार पहला हिंदू मंदिर बनवाया।सुल्तान की पत्नी बेगम सिरपर पवित्र रामायण की प्रति ले कर मंदिर की ओर जा रही हैं, और साथ में सुल्तान शेखमोहम्मद, राम कथा वाचक मोरारी बापू भी दिखाई दे रहे हैं।सचमें अद्भुत दृश्य।यह एक दुर्लभ चित्र है|)

ভাইরাল হওয়া ভিডিওর স্ক্রিনশট।

ভিডিওটি এখানে দেখতে পারেন এবং আর্কাইভড ভারসানের জন্য এখানে ক্লিক করুন।

ভিডিওটি টুইটার ও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।



শচীন সিং নামে এক ব্যক্তি টুইট করেছেন: আবু ধাবির সুলতান শেখ মহম্মদ একটি শিব মন্দির তৈরি করেছেন এবং তার উদ্বোধনে জন্য মোরারি বাপুকে আমন্ত্রণ করেছেন। সবচেয়ে আশ্চর্যের কথা, তাঁর স্ত্রী রামায়ণ মাথায় করে মন্দিরের মধ্যে নিয়ে গেলেন।

ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।
ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

তথ্য যাচাই

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটির সঙ্গে যে দাবি করা হয়েছে সেই দাবিই প্রমাণ করে দেয় যে এটি মিথ্যে।

ভিডিওটি দাবি করেছে যে সুলতানের স্ত্রী রামায়ণের একটি কপি মাথায় করে বয়ে আবুধাবির প্রথম হিন্দু মন্দিরে নিয়ে গেছেন। কিন্তু সত্যি ঘটনা হল, আবুধাবির প্রথম হিন্দু মন্দির এখনও তৈরি হয়নি।

২০১৯ সালের ২০ এপ্রিল বিএপিএস শ্রী স্বামিনারায়ণ মন্দির বা বিএপিএস হিন্দু মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। তার নির্মাণকার্য এখনও শেষ হয়নি।

আর, এই মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর মোরারি বাপু স্থাপন করেননি, করেছিলেন বিএপিএস-এর স্বামিনারায়ন সসংস্থানের ধর্মগুরু স্বামী মহারাজ।

২০ এপ্রিলের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানের ভিডিওটি নীচে দেওয়া হল।



ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি কোথাকার?

২০১৮-য় বুম একটি ভিডিওর তথ্য যাচাই করে দেখায় যে ভারতের বেশ কয়েকটি মূলধারার সংবাদমাধ্যমে ভ্রান্ত দাবি করা হয়েছে যে আবুধাবির যুবরাজ ‘জয় শ্রীরাম’ বলেছেন। আসলে ভিডিয়োটি ছিল দু’বছরের পুরনো, এবং তাতে যে ব্যক্তিকে দেখা যাচ্ছিল, তিনি সংযুক্ত আরব আমিরশাহির এক জন লেখক। বুমের সেই তথ্য যাচাই প্রতিবেদনটি এখানে পড়তে পারেন—ভারতের মূলধারার সংবাদমাধ্যম এমন ভিডিও ছড়াচ্ছে যেখানে দাবি করা হচ্ছে যে আবুধাবির যুবরাজ ‘জয় শ্রী রাম’ বলেছেন

ভিডিওতে যে ব্যক্তিকে দেখা যাচ্ছে তিনি আসলে সুলতান সুদ আল কাসেমি , উনি সংযুক্ত আরব আমিরশাহির একজন খ্যাতনামা লেখক, যিনি আরবের বিভিন্ন বিষয়ে নিজের মতামত জন্য প্রসিদ্ধ।

সুলতান সুদ আল কাসেমিকে ওই ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে মোরারি বাপুর সঙ্গে দেখা যাচ্ছে ।

আমরা এরপর আসল ভিডিওটি খুঁজতে শুরু করি।‘রামকথা আবুধাবি ২০১৬’ এই শব্দগুলি দিয়ে মোরারি বাপু-র ইউটিউব পেজে খোঁজ করে পুরো ভিডিটি দেখতে পাওয়া যায়। এ থেকে পরিষ্কার বোঝা যায় যে ভিডিওটি তিন বছরের পুরনো এবং হিন্দু মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানের ভিডিও এটি নয়।



যে মহিলা রামায়ণ বয়ে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি কে?

২০১৮-র ফেব্রুয়ারি মাসে এবিপি নিউজ তাদের ‘ভাইরাল সচ: নামক তথ্যযাচাই অনুষ্ঠানে জানায়, যে মহিলা মাথায় রামায়ণ নিয়ে যাচ্ছেন তিনি আসলে রামকথা অনুষ্ঠানের আহ্বায়কের মেয়ে।



Claim :   আবু ধাবির যুবরাজ শেখ প্রিন্স মহম্মদ বিন জায়েদ আল নাহান-এর স্ত্রী রামায়ণ মাথায় করে সে দেশের প্রথম হিন্দু মন্দিরে বয়ে নিয়ে যান
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.