পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে তিনটি শিশুর উপর নিগ্রহের অস্বস্তিকর ভিডিও ভারতের ঘটনা বলে ভাইরাল হয়েছে

বুম দেখেছে, ছবিগুলি পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের এবং ওই ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিটিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পাক পাঞ্জাবে তিনটি নাবালককে মারধর করার একটি অস্বস্তিকর ভিডিও শেয়ার করা হচ্ছে এই ভুয়ো বিবরণী সহ যে, এগুলি ভারতীয় পাঞ্জাবের ছবি।

চার মিনিটের এই ভিডিও ক্লিপটিতে একটি নারকীয় দৃশ্য দেখা যাচ্ছে, যাতে দুটি বাচ্চা ছেলেকে মাথা নীচে পা উপরে করে টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে। একজনকে পা বেঁধে, অন্যজনকে হাতের তলা দিয়ে দোপাট্টা দিয়ে বেঁধে ঝোলানো রয়েছে, আর একজন প্রাপ্তবয়স্ক লোক তাদের জুতো দিয়ে বেধড়ক পেটাচ্ছে। ভিডিওটির শেষ অংশে ওই একই লোককে দেখা যাচ্ছে তৃতীয় একটি বালককে পেটাতে।

বুম এই ভিডিওটি প্রতিবেদনের অন্তর্ভুক্ত না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যেহেতু তাতে নাবালকদের বিরুদ্ধে হিংসা চালানোর দৃশ্য রয়েছে।

এই মর্মান্তিক ভিডিওটি মালয়ালম ভাষায় একটি অডিও বার্তা সহ শেয়ার করা হয়েছে, যাতে ঘটনাটিকে ভারতের পাঞ্জাব প্রদেশের ঘটনা বলে দাবি করা হয়েছে। অডিও বার্তায় বলা হয়েছে, এই নাবালকদের অপহরণ করা হয়েছিল এবং তারা পালাবার চেষ্টা করাতেই এই নিগ্রহ।

হোয়াটসঅ্যাপে শেয়ার হওয়া অডিও ক্লিপটি নীচে দেওয়া হলো:

তথ্য যাচাই

গাল্ফ টুডে পত্রিকার প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে, চলতি বছরের অক্টোবর মাসে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের ওকারা জেলার একটি গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর পুলিশ ইয়াকুব নামের সন্দেহভাজন নিগ্রহকারীকে গ্রেফতারও করেছে।

গাল্ফ টুডে অবশ্য সন্দেহভাজন ব্যক্তিটিকে নাবালকদের পরিবারেরই এক ঘনিষ্ঠ আত্মীয় বলে বর্ণনা করেছে।

এটা স্পষ্ট নয় কেন, ইয়াকুব বাচ্চাগুলিকে এ ভাবে নির্যাতন করছিল, যদিও কিছু সংবাদ-রিপোর্টে ইঙ্গিত করা হয়েছে যে, বাচ্চারা তাদের মাকে দেখতে চাইছিল। ঘটনাটি অ্যারিনিউজ টিভিও রিপোর্ট করেছে।

ওকারা পুলিশও এই ভিডিওটাই ১৯ অক্টোবর, ২০১৯ তাদের ফেসবুক পেজে পোস্ট করে।

ওকলা পুলিশের ফেসবুক পোস্ট।

পাক পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ওসমান বুঝদারও এই শিশুগুলির সঙ্গে দেখা করেন এবং তাদের সঙ্গে তোলা দেখা করার ছবি ফেসবুকে পোস্ট করেন।

Show Full Article
Next Story