পেপায়েরো এবং ক্যারিপিল কি ডেঙ্গু সারিয়ে দেয়? একটি তথ্য-যাচাই

পেপে পাতার রস রক্তে প্লেটলেটের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়, কিন্তু ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ডেঙ্গু নিরাময় করে না

পেপে পাতার রস থেকে তৈরি পেপায়েরো এবং ক্যারিপিল ওষুধ দুটি ডেঙ্গু সারিয়ে দেয় বলে যে দাবি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে, সেটি ভুয়ো । কারণ, ওই দুই ওষুধের নির্মাতারাই জানিয়েছেন, এগুলি ডেঙ্গু থেকে কিছুটা সেরে উঠতে সাহায্য করে, সম্পূর্ণ নিরাময় করে না ।

ইডিস মশার দ্বারা সংক্রামিত এই রোগটি মূলত অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ থেকে ছড়ায় ।

ডেঙ্গু প্রতিরোধের উপায়গুলি সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন ।

ভারতে এখন ঘন বর্ষার মরসুম(জুন-সেপ্টেম্বর) । এ সময় ডেঙ্গুর প্রতিরোধ ও চিকিত্সা সম্পর্কে বেশ কিছু বার্তা হোয়াট্স্যাপে ভাইরাল হয়েছে ।

অনলাইনে অনবরত যে ভুল তথ্য ছড়ানো হচ্ছে, তা হল, পেপে পাতার রস ডেঙ্গু সারিয়ে দেয় ।

বুম তার হোয়াট্স্যাপ হেল্পলাইন নম্বরে (৭৭০০৯০৬১১১) এ রকম বার্তা পাচ্ছে, যা এই তথ্যের সারবত্তা বিষয়ে জানতে চায় ।

বার্তাটিতে দাবি করা হচ্ছে, পেপায়েরো ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ডেঙ্গু সারিয়ে দেয় এবং লোকেদের উচিত এখনই আহমেদাবাদের এয়ারোকেম নিউট্রন সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে বিনা পয়সায় ওই ওষুধ সংগ্রহ করা ।

তথ্য যাচাই করার জন্য বুম সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ করে । সংস্থার মার্কেটিং ডিরেক্টর বিক্রম চান্দওয়ানি বলেন, পেপায়েরো তাঁদেরই তৈরি । তিনি বুমকে আরও বলেন, ছবিটিতে যেমন দেখানো হয়েছে, পেপায়েরো সেভাবে ডেঙ্গুকে সারিয়ে দেয় না । এই ছবিটি তাঁরা শেয়ারও করেননি ।

“এটা ডেঙ্গুকে সারিয়ে দেয় না, সেরে ওঠার প্রক্রিয়াকে কিছুটা সাহায্য করে মাত্র । তাই যাঁরাই আমাদের সঙ্গে এ বিষয়ে যোগাযোগ করেন, তাঁদের সকলকেই আমরা বলি, এই ওষুধটি কেবল কমে যাওয়া প্লেটলেটের সংখ্যা বাড়াতে সাহায্য করে ।”

যোগাযোগকারীদের তাঁরা ই-মেল মারফত জানিয়েও দেন ওষুধটির ডোজ কী হবে এবং কখন তা খেতে হবে ।

চান্দওয়ানি আরও জানান, “এটি একটি আয়ুর্বেদিক ওষুধ, যা আমাদের সংস্থায় তৈরি হয় । কিন্তু ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন ছাড়া এবং প্লেটলেট কাউন্ট না দেখে আমরা এ ওষুধ বিক্রি করি না । ডেঙ্গুর সরাসরি কোনও নিরাময় নেই, কারণ এটা ভাইরাস ঘটিত জ্বর ।”

চান্দওয়ানি জানান, যে সব ডাক্তার অ্যালোপ্যাথি চিকিত্সা করেন, তাঁরাও এই ওষুধটি প্রেসক্রিপশনে লেখেন, যেহেতু এটা সেরে ওঠার প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে ।

সংস্থার তরফে স্বীকার করা হয়, এই বার্তাটি গত কয়েক বছর ধরেই বাজারে রয়েছে, তবে বর্ষায় যখন ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ে, তখন এটি সোশাল মিডিয়ায় ভেসে ওঠে ।

ক্যারিপিলঃ এটিও কোনও নিরাময়ের ওষুধ নয়

পেপে পাতার রস থেকেই ব্যাঙ্গালোরের মাইক্রো ল্যাব-এর তৈরি অন্য একটি ওষুধ ক্যারিপিল-কে ঘিরেও একই ধরনের ভুল তথ্য ছড়ানো হয়ে থাকে ।

বুম ক্যারিপিল-এর নির্মাতা মাইক্রো ল্যাবের সঙ্গেও যোগাযোগ করে । সংস্থার জেনারেল মার্কেটিং ম্যানেজার প্রবীণ সিং বলেন, “ক্যারিপিল নিয়ে যে বার্তাটি ভাইরাল হয়েছে, সেটি কোম্পানির দেওয়া নয় এবং বার্তায় যে নম্বরটি দেওয়া আছে, সেটিও ভুয়ো ।”

তাঁর বক্তব্যঃ “আমরা প্লেটলেটের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য ক্যারিপিল বিক্রি করি এবং ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন ছাড়া তা বেচি না ।”

পেপে পাতার রস কেন?

পেপে পাতার রসে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে, যা শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে । ডেঙ্গু হলে শরীরে রক্তের প্লেটলেটের সংখ্যা হু-হু করে কমে যায় । সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য প্লেটলেটের সংখ্যা বেশি হওয়া জরুরি । পেপের নয়, পেপে পাতার রস সেবন করার আগে এনএস-১ পরীক্ষা হওয়া দরকার এবং ডাক্তারের চিকিৎসাও সঙ্গে-সঙ্গে চলা দরকার । চিকিৎসকেরাও দেওয়া ডেঙ্গুর ওষুধ নিয়মিত সেবনের পাশাপাশিই পেপে পাতার রস থেকে তৈরি ওষুধও সেবন করা উচিৎ ।

Claim Review :  পেপে পাতার রস থেকে তৈরি পেপায়েরো এবং ক্যারিপিল ওষুধ দুটি ডেঙ্গু সারিয়ে দেয়
Claimed By :  WHATSAPP
Fact Check :  FALSE
Next Story