ভাইরাল গোমাংস সহ মেনু কার্ড গোয়ার 'সিলি সোলস্ কাফে অ্যান্ড বার' এর নয়

বুম যাচাই করে দেখে ভাইরাল মেনু-কার্ডটি গোয়ার ‘রেডিসন ব্লু রিসর্ট’-এর ‘আপার ডেক’ রেস্তোরাঁ থেকে নেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির (Smriti Irani) মেয়ে জৈশ ইরানি (Zoish Irani) গোয়াতে (Goa) যে রেস্তোরাঁটি চালান, সেখানে গোমাংস (Beef) পরিবেশন করা হয় বলে যে পোস্টটি সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে, সেটি ভুয়ো। কেননা যে মেনু-কার্ডটির (Menu Cards) স্ক্রিনশট এর প্রমাণ হিসাবে প্রচার করা হচ্ছে, সেটি 'সিলি সোলস্ গোয়া ক্যাফে অ্যান্ড বার'-এর (Silly Souls Cafe and Bar) নয়, আসলে তালিকাটি 'রেডিসন ব্লু রিসর্টে'র 'আপার ডেক' (Upper Deck) রেস্তোরাঁর।

গোয়ার আসাগাওয়ে অবস্থিত সিলি সোলস্ কাফে অ্যান্ড বারটি গত সপ্তাহে সংবাদের শিরোনামে উঠে আসে, যখন সংসদে কংগ্রেস অভিযোগ করে যে মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির কন্যা জৈশ ইরানির মালিকানাধীন ওই রেস্তোরাঁটিতে অবৈধ লাইসেন্স নিয়ে মদ পরিবেশন করা হয়ে থাকে। বিরোধীরা আরও অভিযোগ করেন যে, বেআইনি ওই লাইসেন্সটি সংগ্রহ করা হয় অ্যান্টনি ডিগামা নামে এক মৃত ব্যক্তির নথিপত্র ব্যবহার করে। বিতর্কের ঝাঁঝ যখন বাড়তে থাকে, তখন কংগ্রেস কর্মীরা কুনাল বিজয়কর নামে এক খাদ্যরসিকের "খানে মে ক্যা হ্যায়" নামের একটি টিভি-শোকে উদ্ধৃত করতে থাকে, যাতে জৈশ ইরানিকে এক তরুণ শিল্পোদ্যোগী হিসাবে তুলে ধরতে বিজয়কর সিলি সোলস রেস্তোরাঁ সফর করে তাঁর সাক্ষাত্কার নেন।

মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি অবশ্য তাঁর মেয়ে জৈশকে সমর্থন করে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। বলেছেন—"আমার অষ্টাদশী কন্যা এখন পড়াশোনা করে, সে কোনও বেআইনি বার চালায় না।"

বেশ কয়েকটি সোশাল মিডিয়া পোস্ট অবশ্য ষাঁড়ের জিভ পরিবেশনকারী খাদ্য-তালিকা বা মেনু-কার্ড-এর ছবি তুলে ধরে লিখেছে, এটি সিলি সোলস্-এর মেনু-কার্ড।

একই সঙ্গে ওই পোস্টগুলিতে ভারতীয় জনতা পার্টির বিরুদ্ধে প্রতারণা করার অভিযোগও তোলা হয়েছে, যেহেতু যে সব রাজ্যে এই দল ক্ষমতাসীন, সেখানে গোমাংস নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

গোয়া দেশের সেই বিরল রাজ্যগুলির অন্যতম, যেখানে গোমাংস এখনও নিষিদ্ধ নয়।


আরও পড়ুন: এগুলি কি দ্রৌপদি মুর্মু, নরেন্দ্র মোদী ও একনাথ শিন্ডের তরুণ বয়সের ছবি?

তথ্য যাচাই

আমরা ভাইরাল হওয়া মেনু কার্ডে লেখা 'এসএফও-বিফ টাঙ' শব্দগুলি বসিয়ে গুগলে সার্চ করলে দেখি, গোয়ার রেডিসন ব্লু রিসর্ট-এর আপার ডেক রেস্তোরাঁর একটি মেনু-কার্ড খুঁজে পাওয়া যায়:



মেনু-কার্ডটি দেখতে ক্লিক করুন।

খাবার সরবরাহকারী অ্যাপ জোম্যাটোতেও রেডিসন ব্লু রিসর্টের আপার ডেক রেস্তোরাঁতেই ওই খাবার তালিকায় দেখানো হয়েছে।

এর পর আমরা জোম্যাটো অনুসরণ করেই সিলি সোলস্ কাফে অ্যান্ড বার-এর খাদ্য-তালিকা খতিয়ে দেখি। তাতেও গোমাংসের কোনও ডিশ তালিকার অন্তর্ভুক্ত নয়। নীচে ওই তালিকার একটি স্ক্রিনশট দেওয়া হলো। আপনারা চাইলে জোম্যাটোতে আপলোড হওয়া এই তালিকা দেখে নিতে পারেন।




বুম গোয়ার বেশ কয়েকজন খাদ্য-রসিকের সঙ্গেও কথা বলেছে, যাঁরা ওই রেস্তোরাঁয় খেয়েছেন বা সফর করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই রসিকেরা সকলেই বলেছেন, তাঁরা কেউই গোমাংসের কোনও ডিশ সিলি সোল্স বার অ্যান্ড কাফেতে পরিবেশিত হতে দেখেননি।

নোলান ম্যাসকারেনহাস নামে এক খাদ্য বিশারদের লেখাও আমরা পড়েছি, যাতে খাদ্য বিষয়ক পত্রিকা 'আপার ক্রাস্ট'-এর অক্টোবর ২০২১-এর সংস্করণে তিনি ওই রেস্তোরাঁর একটা পর্যালোচনা করেছেন। তিনিও কোথাও গোমাংস দিয়ে তৈরি কোনও ডিশ-এর উল্লেখ করেননি এবং বাওস নামের এক ধরনের রুটির বিবরণেও লিখেছেন, মাংস দিয়েও যখন এই রুটি বানানো হয়, তখনও শূকর বা মুরগির মাংসই ব্যবহৃত হয়ে থাকে।




সিলি সোলস্ গোয়া কাফে অ্যান্ড বার-এর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেস্টা করা হলেও তাদের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নিl পরবর্তিতে কোন প্রতিক্রিয়া পেলে তা এই প্রতিবেদন হালনাগাদ করে নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: বিভ্রান্তি সহ ছড়াল তেলঙ্গানায় বিজেপি ও টিআরএস কর্মীদের সংঘর্ষ দৃশ্য

Claim :   ছবির দাবি স্মৃতি ইরানির মেয়ে পরিচালিত রেস্তোরাঁয় গোমাংস দেওয়া হয়
Claimed By :  Social Media Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.