এক নজরে দেখে নিন ৩১ অগস্ট পর্যন্ত রাজ্যের সর্বশেষ লকডাউন বিধি

রাজ্যের কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরে যোগ কেন্দ্র ও জিম ৫ অগস্ট থেকে খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

কোভিড-১৯ রুখতে আনলক-৩ পর্বে কেন্দ্রীয় সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ২৯ জুলাইয়ের নির্দেশের পাশাপাশি পৃথকভাবে নির্দেশিকা প্রকাশ করলো পশ্চিমবঙ্গ সরকার। নবান্নের তরফে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় ৭ ও ১৪ জুলাই দেওয়া কন্টেনমেন্ট এলাকার নির্দেশের পাশাপাশি ৩১ অগস্ট পর্যন্ত সারা রাজ্যে বহাল থাকবে এই নিয়মগুলি। আগে দেওয়া রাজ্য সরকারের বিজ্ঞপ্তির সর্বশেষ সংশোধন অনুযায়ী ৫, ৮, ১৬, ১৭, ২৩, ২৪, ৩১ অগস্ট রাজ্যজুড়ে সম্পূর্ণ লকডাউন বহাল হবে। ৩০ জুলাই বৃহঃস্পতিবার সন্ধ্যায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে মুখ্য সচিব এই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন।

বন্ধ থাকবে

  • স্কুল, সুসংহত শিশু বিকাশ কেন্দ্র, কলেজ, ট্রেনিং, কোচিং সেন্টার সহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।
  • সিনেমা হল, সুইমিং পুল, প্রমোদ উদ্যান, থিয়েটার, বার, পেক্ষাগৃহ ও সভাগৃহ।
  • যেকানও ধরণের সামাজিক, রাজনৈতিক, খেলাধুলো, বিনোদন, শিক্ষাসংক্রান্ত, সাংস্কৃতিক, ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও বড় মাপের জমায়েত নিষিদ্ধ।
  • কন্টেনমেন্ট এলাকার বাইরে যোগ কেন্দ্র ও জিম ৫ অগস্ট থেকে খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে।
  • এই লকডাউন দিনগুলিতে সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি অফিস, বেসরকারি সংস্থার কাজকর্ম, সরকারি ও বেসরকারি জন পরিবহনে ব্যবহৃত যানচলাচল বন্ধ থাকবে। বন্ধ থাকছে ট্রেন এবং বিমান পরিষেবা।

ছাড় দেওয়া হয়েছে

  • স্বাস্থ্য পরিসেবা সংক্রান্ত ব্যক্তি বা রোগী নিয়ে সর্বজনীন ও ব্যক্তিগত ভাবে গাড়ি চলাচলে
  • ওষুধের দোকান ও ফার্মাসি
  • আইন শৃঙ্খলা, কোর্ট, সংশোধনাগার, অগ্নিনির্বাপন সহ জরুরি পরিষেবা
  • বিদ্যুৎ, জল ও সংরক্ষণ সংক্রান্ত পরিসেবা
  • আভ্যন্তরীণ কর্মীদের নিয়ে চলমান কলকারখান ও শিল্পজাত উৎপাদন
  • কৃষিকাজ, চা বাগানের কাজকর্ম
  • আন্তঃরাজ্য ও অন্তঃরাজ্য পণ্য পরিবহন
  • ই-কমার্স, রিজার্ভ ব্যাঙ্কের বিজ্ঞপ্তি দেওয়া মূলধন ও ঋণ-বাজার প্রভৃতি আর্থিক পরিষেবা সমূহ
  • মুদ্রণ, ইলেকট্রনিক মিডিয়া এবং সোশাল মিডিয়া
  • রান্না করা খাবারের হোম ডেলিভারী

পরিস্থিতি বিচার করে জেলাশাসকরা স্থানীয় অবস্থা অনুযায়ী লকডাউনের নিয়মে কড়াকড়ি করতে পারে। এই সময়ে সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক পরা, সু-স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নিয়ম পালনে বিশেষ জোর দিতে বলা হচ্ছে সকলকে।

২৯ অগস্ট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের বিজ্ঞপ্তির পাশাপাশি রাজ্য সরকারের তরফে জারি করা হল উপরের নির্দেশগুলি।

সারদেশে কেভিড-১৯ সংক্রমণের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫২ লক্ষ। গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৮,৭৫৫ জন, মারা গেছে ৭৭৫ জন। সেরে উঠেছেন ৩২,৫৫৩ জন।

Updated On: 2020-07-30T21:08:42+05:30
Show Full Article
Next Story