সাংবাদিক অভিসার শর্মা কি উত্তরপ্রদেশ সরকারের বিরুদ্ধে সরব হতে গ্রামবাসীকে ঘুষ দিচ্ছিলেন?

ওই সাংবাদিক এক বৃদ্ধকে উত্তরপ্রদেশ সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে টাকা দিচ্ছেন, এই মর্মে একটি ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছে

একটি ভিডিও ক্লিপে সাংবাদিক অভিসার শর্মার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে, তিনি নাকি উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হতে গ্রামবাসীদের মধ্যে টাকা বিলোচ্ছেন । টুইটারে এ নিয়ে রীতিমত আলোড়ন পড়ে গেছে । শর্মা অবশ্য বলেছেন, টাকা নয়, তিনি একটি সংবাদপত্রের কাটিং দিচ্ছিলেন ।

দেড় মিনিটের ভিডিও ক্লিপটিতে দেখা যাচ্ছে, শর্মা ক্যামেরার দিকে মুখ করে কথা বলতে-বলতে এক গ্রামবাসীর হাতে একটা ভাঁজ-করা কাগজের টুকরো তুলে দিচ্ছেন । অনেক টুইটার-ব্যবহারকারীর দাবিঃ শর্মার দেওয়া ওই কাগজ আসলে টাকা, যা তিনি ঘুষ দিচ্ছিলেন উত্তরপ্রদেশ সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলাতে ।

ভিডিওটিতে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছএ—“কংগ্রেসের এই চামচাকে একবার দেখুন । আরে, ঘুষ দেবার সময় অন্তত ক্যামেরার সুইচটা তো অফ করবি!”

তথ্য যাচাই

তাঁর বিরুদ্ধে তোলা এই অভিযোগের জবাবে অভিসার শর্মা একটি ভিডিও ক্লিপ টুইট করেছেন, যেটি তাঁর মতে ঘটনার প্রকৃত ভিডিও ।



শর্মার পোস্ট করা ভিডিওটিতে দেখতে পাবেন, এক গ্রামবাসী তাঁর হাতে একটি খবরের কাগজের ক্লিপিং তুলে দিচ্ছেন । শর্মা তখন গ্রামবাসীর কাছে জানতে চান, এটা কী ? আর ঠিক এই সময়েই ক্যামেরা খবরের কাগজের কাটিংটির উপর জুম করে । একটু পরেই দেখা যায়, শর্মা ওই গ্রামবাসীকেই একটা ভাঁজ-করা কাগজের টুকরো ফেরত দিচ্ছেন ।

বুম এ বছরের ২৬ মার্চ নিউজক্লিক সংবাদ-পোর্টালে প্রকাশিত মূল ভিডিওটি খুঁজে পেয়েছে । শর্মা এই সংবাদসংস্থার দল নিয়ে পশ্চিম উত্তরপ্রদেশের গ্রামে-গঞ্জে ঘুরছিলেন প্রাক-নির্বাচনী পরিস্থিতি কেমন, তার মূল্যায়ন করতে ।



মূল ভিডিওতে খবরের কাগজের কাটিংটা তাঁর হাতে তুলে দেওয়ার সময় ক্যামেরা তাঁর এবং গ্রামবাসীদের দিক থেকে অন্যত্র চোখ রাখছে, কিন্তু শর্মার সরবরাহ করা ভিডিও ক্লিপে গোটা প্রক্রিয়াটির আনুপূর্বিক চিত্র ধরা রয়েছে । বুম ভিডিওটির ফ্রেম ভেঙে-ভেঙে সেই অংশটির উপর নজর কেন্দ্রীভূত করেছে, যেখানে শর্মা গ্রামবাসীর হাতে কাগজের টুকরোটা ফেরত দিচ্ছেন ।

টুইটার ব্যবহারকারীরা শর্মার পিছনে লেগেছেন

শর্মা দাবি করেছেন, গ্রামবাসীর হাতে তিনি যেটা ফেরত দিচ্ছেন, সেটা কোনও টাকার নোট নয়, ভাঁজ-করা খবরের কাগজ । এর পরেই কয়েকজন টুইটার ব্যবহারকারী তাঁদের টুইটগুলি মুছে দেন এবং শর্মার কাছে ক্ষমাপ্রার্থনাও করেন । কিন্তু অন্য কয়েকটি টুইট এবং ফেসবুক পোস্ট সমানে সোশাল মিডিয়ায় ভুয়ো ব্যাখ্যা সহ শেয়ার হয়ে চলেছে ।

চৌকিদার শ্বেতাঙ্ক -এর একটি ভিডিও টুইট চৌকিদার বিকাশ পাণ্ডে (@MODIfiedVikas) উদ্ধৃত করেছেন । শ্বেতাঙ্কের টুইটটি এর পর মুছে দেওয়া হয়, কিন্তু চৌকিদার বিকাশ তাঁর টুইটে অভিযোগ করতে থাকেন যে শর্মা কংগ্রেসের কাছ থেকে টাকা খেয়েছেন ।

টুইটারে বিকাশ পাণ্ডের অনুগামীদের মধ্যে আছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ ।

বিকাশ পাণ্ডের টুইটের আর্কাইভ বয়ান এখানে দেখতে পারেন ।

বিকাশ পাণ্ডের টুইটের জবাবে অভিসার শর্মার টুইট—



অন্য যে টুইটার হ্যান্ডেল থেকে টুইটটি অনবরত শেয়ার হচ্ছে, সেটি হল, @Being_Humor



শর্মার হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও এই হ্যান্ডেলটি তার টুইট এখনও মুছে দেয়নি । তার আর্কাইভ বয়ানটি এখানে দেখুন ।



ভিডিওটি এখানে দেখতে পারেন এবং তার আর্কাইভ বয়ান এখানে এবং এখানে

এর আগের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, মোদিফায়েড বিকাশ হ্যান্ডেলটি নিজের টুইটটি মুছে দিয়েছে, কিন্তু বাস্তবে তেমন কিছু ঘটেনি ।

Claim Review :  অভিসার শর্মা উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হতে গ্রামবাসীদের মধ্যে টাকা বিলোচ্ছেন
Claimed By :  Social media pages
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story