অভিনেত্রী শ্রাবন্তী ও পুত্র অভিমন্যু এর পুরনো ছবি কুরুচিকর ক্যাপসন সহ ভাইরাল

ছবিটি ১৯ অক্টোবর ২০১৭ অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায়ের ট্যুইটার হ্যান্ডেল থেকে নেওয়া। ওই দিন একসঙ্গে দেওয়ালি পালন করছিলেন তারা।

সোস্যাল মিডিয়াতে টলিউডের অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় ও তার পুত্র অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায় এর একটি ছবি ভাইরাল হয়েছে।

২০ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে পোস্ট করা এরকম একটি ফেসবুক পোস্টে ক্যাপশন করা হয়েছে। “ক্যাপশন ওফ দ্যা ডে।” ছবিটিতে শ্রাবন্তী তনয় অভিমন্যু ও শ্রাবন্তীকে একসঙ্গে অন্তরঙ্গ ভাবে দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। ছবিটিতে হ্যাশট্যাগ দেওয়া হয়েছে, “আমার মায়ের আবার বিয়ে।” পোস্টটি ২০৮ জন লাইক করেছেন। পোস্টটি এখানে আর্কাইভ করা আছে।

তথ্য যাচাই

এই ছবি নিয়ে নেটিজেনদের মধ্যে বিভিন্ন মন্তব্য করতে দেখা গেছে। কেউ কেউ আবার আসল ছবিটি পোস্ট করে ভুল ধরিয়ে দেবার চেষ্টা করেছেন। পোস্টটিতে ব্যবহার হওয়া ক্যপশনের বাংলা হরফের ফন্টটি ফেসবুকের ফন্টের থেকে আলাদা এবং আকারে বড়।

একজন নেটিজেনের পোস্টে দেখা যাচ্ছে। ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮ তরিখে ১১:০৪ তারিখে অভিমন্যু চট্টেপাধ্যায় এই ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন। সেখানে ক্যাপশন ছিল, ‘মর্নিং অল।’

বুম ছবিটি রিভার্স সার্চ করেছিল। “শ্রাবন্তী দ্য কুইন অফ টলিউড” নামে একটি ফেসবুকে প্রোফাইল থেকে ওই ছবিটি ২০ অক্টোবর ২০১৭ পোস্ট করা হয়েছিল। ওই পোস্টটিতে ক্যাপশন করা হয়েছিল। “ছেলের সঙ্গে দেওয়ালি উদযাপন।” পোস্টটি এখানে আর্কাইভ করা আছে।

ওই একই ছবি ১৯ অক্টোবর ২০১৭ অভিমন্যু চট্টোপাধ্যায়ের ট্যুইটার হ্যান্ডেল (অ্যাকাউন্টটি বর্তমানে সচল নয়) @Abhimanyu1408 থেকে পোস্ট করা হয়েছিল সকাল ৮ টা ২ এ। ট্যুইট বার্তাটিতে লেখা হয়েছিল। ‘হ্যাপি দেওয়ালি @srabantismile।’ ট্যুইটি এখানে অর্কাইভ করা আছে।



ট্যুইটটি শ্রাবন্তীর প্রোফাইল থেকে কোট করে ট্যুইট করা হয় ওই দিন সকাল ৮টা ৩-এ। ট্যুইট বার্তাটিটে লেখা হয়। ‘হ্যাপি দেওয়ালি জান।’ ট্যুইটি এখানে আর্কাইভ করা আছে।



অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় পয়লা বৈশাখ কলকাতার এক রেস্তরায় বাগদান পর্ব সারেন পাঞ্জাবী প্রেমিক রোশন সিংহের সঙ্গে। রবিবার পাঞ্জাবী মতে বিয়ে হয় তাদের। এর আগে দুবার সাতপাকে বাধা পরেন শ্রাবন্তী। পরিচালক রাজীব বিশ্বাস ও পরে মডেল কৃষণ ব্রিজের সঙ্গে দাম্পত্যে ছেদ পরে তাঁর।

Claim Review :  টলিউড অভিনেত্রী শ্রাবন্তী ও তার পুত্র অভিমন্যুর ভাইরাল ছবি তার তৃতীয় বিয়ের পর
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story