দিল্লি হিংসা: ডিসিপি অমিত শর্মার মৃত্যুর ভুয়ো খবর ভাইরাল

বুম দিল্লি পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারে যে, শর্মার শরীরে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে—এখন তিনি বিপদ মুক্ত।

ভাইরাল ফেইসবুক পোস্টে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে যে, শাহদরা পুলিশের ডেপুটি কমিশনার (ডিসিপি) অমিত শর্মা মারা গিয়েছেন। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০-এ উত্তরপূর্ব দিল্লিতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় শর্মা জখম হন।

দিল্লি পুলিশের জনসংযোগ অধিকর্তা অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার অফ পুলিশ (এসিপি) অনিল মিত্তালের সঙ্গে বুম যোগাযোগ করে। উনি জানান যে, শর্মার অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে এবং ওনার অবস্থা স্থিতিশীল আছে।

"ডিসিপি শর্মার অস্ত্রোপচার সফল হয়েছে এবং উনি এখন বিপদমুক্ত। ওনার অবস্থা এখন স্থিতিশীল রয়েছে," এসিপি অনিল মিত্তাল বুমকে জানান।

সোমবার দিল্লির গোকুলপুরী এলাকায় সংঘর্ষের সময় শর্মা আহত হয়ে জ্ঞান হারান। হাসপাতালে ভর্তি করার পর তাঁর ওপর অস্ত্রোপচার করা হয়। হাঙ্গামার সময় শর্মার গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় বলে জানা গেছে।

দিল্লিতে 'মুসমান হাঙ্গামাকারীদের' হাতে আক্রান্ত হওয়ার পর ডিসিপি অমিত শর্মা মারা গিয়েছেন বলে একাধিক পোস্ট শেয়ার করা হচ্ছ। এই প্রতিবেদন লেখার সময়, তেমনই একটি পোস্ট ১৬০ বার শেয়ার করা হয়। তাতে একটি সংবাদ বুলেটিন থেকে নেওয়া স্ক্রিনশটে শর্মার ছবি রয়েছে, আর সেই সঙ্গে রয়েছে একটি শোকবার্তা।

হিন্দিতে লেখা ক্যাপশনে বলা হয়, "দূঃখজনক খবর। কনস্টেবল রতন লালের পর, ডিসিপি শর্মাও আর নেই। দিল্লিতে মুসলমানদের দাঙ্গায়।"

(হিন্দি মূল ক্যাপশন: "दुखद खबर" कांस्टेबल रतनलाल के बाद डीसीपी अमित शर्मा भी नहीं रहे..मुस्लिम दंगा दिल्ली")

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে। পোস্টটির স্ক্রিনশট নীচে দেওয়া হল।


টুইটারেও ভাইরাল হয়েছে একই বার্তা

সংবাদ সংস্থা এএনআই-ও জানায় যে শর্মা এখন বিপদমুক্ত।

সোমবার পূর্ব দিল্লিতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে দিল্লি পুলিশের প্রধান কনস্টেবল প্রাণ হারান। পরে তা সহিংসতার রূপ নেয়। সে সম্পর্কে আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন। ২৪ ফেব্রুয়ারির সংঘর্ষে পর থকে এপর্যন্ত ১৮ নিহত আর অহত হয়ে হাসপাতলে চিকিংসাধীন শতাধিক মানুষ।

Claim :   কনস্টেবল রতন লালের পর ডিসিপি অমিত শর্মা মারা গেছেন আহত হয়ে
Claimed By :  Facebook posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.