ভাইজ্যাক গ্যাস দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ালো ফেসবুকে

ভাইজ্যাক গ্যাস দুর্ঘটনায় সর্বশেষ খবর অনুযায়ী মৃতের সংখ্যা ছুঁয়েছে ১২। শিশুদের আরও কয়েকদিন পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে।

সম্প্রতি অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনমের ভাইজ্যাকে এলজি পলিমার কারখানায় বিষাক্ত গ্যাস নিঃসরণের দুর্ঘটনায় প্রাণহানীর সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তিকর পোস্ট শেয়ার করা হচ্ছে ফেসবুকে। বুম দেখে যে ওই ফেসবুক পোস্টে ভাইজ্যাকের এই গ্যাস নিঃসরণের দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যাকে অতিশয় ভাবে বাড়িয়ে শতাধিক উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত এল জি পলিমার কারখানার গ্যাস লিক দূর্ঘটনায় ১২ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে এবং প্রায় হাজার জন ব্যক্তি শ্বাসকষ্টজনিত অসুবিধা নিয়ে প্রথমে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

কোভিড-১৯ মহামারির প্রকোপ তার উপর এই দূর্ঘটনা নিয়ে রাস্তায় পড়ে থাকা মৃতদেহের ভিডিও/ছবি ছড়িয়ে পড়লে নেটিজেনদের একাংশের মধ্যে মৃতের সংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়।

৭ মে রাত ১০ টা ৫-এ এরকম একটি ফেসবুক পোস্টে লেখা হয়, "ভাইজ্যাক গ্যাস লিক, রাস্তায় পড়ে আছে শতাধিক লাশ, 5000 বেশি অসুস্থ। পশুদেরও ছাড় মেলেনি।"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

আরও পড়ুন: বাংলাদেশে বিষ প্রয়োগে বানর হত্যার ছবি ভারতে সাম্প্রদায়িক রং সহ ছড়ালো

তথ্য যাচাই

বুম ভাইজ্যাকের এই গ্যাস লিক দূর্ঘটনায় শতাধিক মারা যাওয়ার ব্যাপারে কোনও প্রতিবেদন খুঁজে পায়নি। দূর্ঘটনার অব্যবহিত পরেই ১১ জন ব্যক্তির মারা যাওয়ার খবর প্রকাশিত হয়েছিল একধিক বাংলাইংরেজি গণমাধ্যমে।

৮ মে ২০২০ প্রকাশিত মিন্টের প্রতিবেদন অনুযায়ী বর্তমানে মৃতের সংখ্যা ১২ ছুঁয়েছে। ৩০০ জনের বেশি শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন, তাদের মধ্যে ৪৮ জন শিশু।

বিশাখাপত্তনামের উপকন্ঠে বৃহস্পতিবার ৭ মে ভোর ২ টো ৩০ নাগাদ কর্মীরা এলজি পলিমারের ওই কারখানা চালু করতে গেলে স্টাইরিন গ্যাস লিকের ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পরে তড়িঘড়ি পার্শ্ববর্তী এলাকার ১,৫০০ লোককে সরিয়ে নেওয়া যাওয়া হয়। জাতীয় বিপর্যয় মোকবিলা দপ্তরের তরফে কারখানা ও আশেপাশের এলকায় স্টাইরিন গ্যাসকে প্রশম করা হয়।

শুক্রবার হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় ৫০ জনকে। শিশুদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে আরও কিছুদিন পর্যবেক্ষণে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবরে প্রকাশ।

স্টাইরিন প্লাস্টিক তৈরির উপকরণ যার রাসায়নিক যৌগ হিসেবে ইথেনিল বেঞ্জিন, ভিনাইল বেঞ্জিন নামে পরিচিত। স্টাইরিন প্লাস্টিক, রঙ, কৃত্রিম রাবার, পাইপ, গাড়ির যন্ত্রাংশ, খাবারের কন্টেনার, এক ব্যাবহারের উপযোগী কাপ তৈরির মূল উপাদান।

স্টাইরিনের সংস্পর্শে এলে স্নায়বিক ঘুম ঘুম ভাব, গা বমি, মাথা ব্যাথা, দুর্বলতা ও অবসাদ ইত্যাদির উপস্বর্গ দেখা দিতে পারে। তবে ক্যান্সার বা লিভারে দীর্ঘ মেয়াদী প্রভাবের সম্ভাবণা কম। স্টাইরিন নিয়ে বুমের বিশ্লেষণী প্রতিবেদন পড়া যাবে এখানে

আরও পড়ুন: অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় কি বলেছেন যে সরকার ইউপিএ আমলের দুর্বল নীতি গ্রহণ করেছে?

Updated On: 2020-05-13T10:33:16+05:30
Claim Review :   ভাইজ্যাক গ্যাস দুর্ঘটনায় শতাধিক প্রাণহানি হয়েছে এবং ৫০০০ জন অসুস্থ
Claimed By :  Facebook User
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story