প্রধানমন্ত্রীর মোদির একটি পুরনো টুইট ফড়নবিশের পদত্যাগের সঙ্গে জুড়ে দেওয়া হয়েছে

সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া এই টুইটটি প্রধানমন্ত্রী মোদি করেছিলেন ২০১৬ সালে, তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু আরএসএসের প্রচারক প্রফুলভাই দোশীর মৃত্যুর পর।

তিন বছর আগে তার পুরনো বন্ধু ও সহযোগী আরএসএস-এর নেতা প্রফুলভাই দোশীর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রী মোদি যে টুইটটি করেছিলেন, সেটিকে শেয়ার করা হচ্ছে ২৭ নভেম্বর মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিশের ইস্তফা দেওয়ার পর।

দুটি টুইটের স্ক্রিনশট একটি কোলাজে পাশাপাশি সাজিয়ে ফেসবুকের একটি পোস্টে বলার চেষ্টা করা হচ্ছে, যেন দেবেন্দ্র মুখ্যমন্ত্রিত্ব থেকে পদত্যাগ করার পরই মোদি এই দ্বিতীয় টুইটটি করেনl পোস্টটির হিন্দি ক্যাপশনে লেখা হয়েছে—"দেবেন্দ্র ফড়নবিশ মুখ্যমন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর এটাই ছিল প্রধানমন্ত্রীর প্রথম প্রতিক্রিয়া।"

ফেসবুক পোস্ট

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে
ফেসবুক পোস্ট

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

তথ্য যাচাই

আমরা সোশাল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর নামে চালানো দ্বিতীয় টুইটটির খোঁজ করি এবং তাতে দেখতে পাই, ভাইরাল পোস্টে সাম্প্রতিক বলে চালানো এই টুইটটি আসলে ২০১৬ সালের ১৩ জুলাই করা হয়েছিল।

'টুইটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

যে-দিন প্রধানমন্ত্রী টুইটটে পোস্ট করেন, সেই একই দিনে তার সঙ্গে পুরনো বন্ধু ও সহযোগী আরএসএস-এর বরিষ্ঠ নেতা প্রফুলভাই দোশীর একটি বৈঠক হয়েছিল l সংবাদসংস্থা পিটিআই ১৪ জুলাই ২০১৬ রিপোর্ট করে এ কথা জানায়l মোদী তার টুইটে আরও লেখেন:" দিন বিকেল ৫ টার সময়েই তাঁর সঙ্গে আমার বৈঠক হয়, আর তার কিছুক্ষণ পরে শুনলাম, ওটাই ছিল তাঁর শেষ মিটিং।"

২৩ নভেম্বর, ২০১৯, শনিবার ভোরে দেবেন্দ্র ফড়নবিশ মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী পদে এবং ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) অজিত পাওয়ার উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন l কিন্তু তার তিন দিনের মধ্যেই সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিধায়ক না পাওয়ায় বিজেপিকে ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে হয় ২৬ নভেম্বর, ২০১৯।


Updated On: 2020-02-27T16:47:17+05:30
Claim Review :  প্রধানমন্ত্রী মোদির প্রথম প্রতিক্রিয়া দেবেন্দ্র ফড়নবিশ পদত্যগ করার পর
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story