রিয়ার বাবার ভুয়ো টুইটার অ্যাকাউন্টের চক্করে পড়ল একাধিক গণমাধ্যম

বুম দেখে @WeWantRahuI নামে অ্যাকাউন্টটি আগে কংগ্রেসপন্থী বিষয়ে টুইট করেছে রিয়ার বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীর ভেক ধরার আগে।

একাধিক মূল ধরার গণমাধ্যম যেমন জি ২৪ ঘন্টা, এবিপি আনন্দ, টাইমস অফ ইন্ডিয়া, হিন্দুস্তান টাইমস এবং এবিপি নিউজ খপ্পরে পড়ল একটি ভুয়ো টুইটার অ্যাকাউন্টের, যা রিয়া চক্রবর্তীর বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীর ভেক ধরে তৈরি করা হয়েছে। ওই গণমাধ্যমগুলিতে দাবি করা হয়েছে মেয়ের গ্রেফতারি নিয়ে টুইট করেছেন ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী।

নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো মঙ্গলবার রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করে মৃত অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতকে ড্রাগ সরবারাহ করার অভিযোগ। নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো রাজপুতের মৃত্যুর পেছনে মাদকের যোগ নিয়ে তদন্ত করছে। ১৪ জুন ২০২০ অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতকে তাঁর বাসভবনে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়, সিবিআই এই মৃত্যুর ব্যাপারে তদন্ত চালাচ্ছে।

গণমাধ্যম যেমন জি ২৪ ঘন্টা, এবিপি আনন্দ, টাইমস অফ ইন্ডিয়া, হিন্দুস্তান টাইমস এবং এবিপি নিউজ টুইটারে ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীর ভেক ধরা একটি অ্যাকাউন্টের টুইটকে উল্লেখ করেছে।



নিচে হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনের স্ক্রিনশট দেওয়া হল।

এই সেজে থাকা নকল অ্যাকাউন্টটি থেকে একাধিক টুইট করা হয়।

এই ভুয়ো অ্যাকাউন্টটি যাচাই করা নয় এবং অ্যাকাউন্টটিতে ঘোষণা করা আছে এটি একটি ফ্যান অ্যাকাউন্ট।

ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তীর এরমকমই একটি ভুয়ো টুইটে বলা হয় তিনি মেয়ের গ্রেফতারিতে বিধ্বস্ত এবং জীবন শেষ করে দেবেন। টুইটটিতে লেখা হয়, ''কোনও বাবা তাঁর মেয়ের উপরে অন্যায় সহ্য করতে পারে না। আমি অবশ্যই মরে যাব #জাস্টিসফররিয়া (টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে।)

ওই নকল অ্যাকাউন্টের অন্য আরেকটি টুইট, যেটিতে রিয়া চক্রবর্তীর উপর মিডিয়া ট্রায়ালকে প্রশ্ন করা হয়েছে সেটিও প্রতিবেদনে ব্যবহার করা হয়েছে। টুইটটিতে লেখা হয়, সমগ্র দেশ মনস্থির করে ফেলেছে রিয়াকে ফাঁসিতে চড়াতে চায় কোনও প্রমাণ ছাড়াই।

(মূল হিন্দিতে টুইট: बगैर किसी सबूत के पूरा देश रिया को फांसी पर लटकाने को तुला है#JusticeforRhea)

ওই ভুয়ো টুইটকে ভিত্তি করে এবিপি নিউজের প্রতিবেদনটির শিরোনাম, ''রিয়া চক্রবর্তীর বাবা ইন্দ্রজিৎ রিয়ার গ্রেফতারি সম্পর্কে বলেছেন, 'এই সবকিছু তার মৃত বয়ফ্রেন্ড মাদক নিত বলে? এবিপি ওই নকল অ্যাকাউন্টের টুইটকে ভিত্তি করে দুটি প্রতিবেদন লিখেছে।

দ্বিতীয় প্রতিবেদনটিতে শিরোনাম লেখা হয়েছে, ''রিয়া চক্রবর্তীর বাবা ইন্দ্রজিৎ বলেছেন 'আমি অবশ্যই মরে যাব, কোনও বাবা তাঁর মেয়ের উপরে অন্যায় সহ্য করতে পারে না।''

অন্যান্য ওয়েবসাইটও এই ভুয়ো অ্যাকাউন্টের চক্করে পড়েছে তার মধ্যে রয়েছে সকাল টাইমস, হিন্দি দৈনিক অমর উজালা এবং বিনোদন ওয়েবসাইট পিঙ্কভিলা।

সকাল টাইমসের আর্কাইভ আছে এখানে, হিন্দুস্তান টাইমসের আর্কাইভ এবং টাইমস অফ ইন্ডিয়ার আর্কাইভ, অমর উজালার আর্কাইভ, পিঙ্ক ভিলার আর্কাইভ, ইন্ডিয়া টুডে টিভি নিউজের আর্কাইভ ও লোকমত ইংরেজির আর্কাইভ, জি নিউজের আর্কাইভ, জি ২৪ এর আর্কাইভ

আরও পড়ুন: একসাথে বসে থাকা তিন আইপিএস আধিকারিকের ছবি পরস্পরের ভাই-বোন বলে ভাইরাল

তথ্য যাচাই

বুম নিশ্চিত হতে পেরেছে অ্যাকাউন্টটি নকল এবং রিয়া চক্রবর্তীর বাবা হিসাবে সেজে রয়েছে।

আমরা দেখি ৬ সেপ্টেম্বর ওই অ্যাকাউন্টে একটি রিপ্লাই যেটি দেখায় ওই ব্যবহারকারীর আগে @WeWantRahuI (বড় হাতের হরফে 'I')।

এই টুইট, আর্কাইভ করা আছে এখানে, যা একই ইঙ্গিত দেয়।

ওই একই অ্যাকাউন্ট আগের ইউজারনেম @WeWantRahuI থাকাকালীন ৮ জুন জুন টুইট করে নেটিজেনদের কাছে আবেদন করে তার ১৫০০ ফলোয়ার হওয়ার জন্য। টুইটটিতে আগের অ্যাকাউন্টের একটি স্ক্রিনশটও পোস্ট করা হয়েছে। পোস্ট করা আগের অ্যাকাউন্টের স্ক্রিনশটের বায়োতে (পরিচিতি) লেখা হয়েছে, ''कहो दिल से कांग्रेस फिर से, राहुल गांधी फॉर प्रधानमंत्री राहुल गांधी जी को देश का अगला PM बनाने के लिए ज्यादा से ज्यादा सपोर्ट करने के लिए इस पेज को फॉलो करें।"
''আপনার হৃদয় থেকে বলুন, আবার কংগ্রেস। প্রধানমন্ত্রীত্বের জন্য রাহুল গাঁধী। রাহুল গাঁধীকে পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী করতে চাইলে তাঁকে সমর্থন করুন।''

অ্যাকাউন্টটি গত বছরের ডিসেম্বর মাসে খোলা হয়, বর্তমানে ৭০০০ ফলোয়ার রয়েছে। সম্পাদনা করা বয়োতে এখন লেখা রয়েছে, ''সত্যমেব জয়তে।''



বুম দেখে অ্যাকাউন্টটির আগের টুইটগুলি মূলত কংগ্রেসপন্থী এবং রাহুলকে সমর্থন করে।

বুম রিয়া চক্রবর্তীর আইনজীবি সতিশ মানসিন্দের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী সোশাল মিডিয়ায় রয়েছেন কিনা। প্রতিবেদনটি প্রত্যুত্তর পেলে সংস্করণ করা হবে।

Updated On: 2020-09-10T10:39:49+05:30
Claim Review :   রিয়া চক্রবর্তীর বাবা ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী বলেছেন, ‘‘আমি মারা যাব, কোনও বাবা কোনও বাবা তাঁর মেয়ের উপরে অন্যায় সহ্য করতে পারে না’’
Claimed By :  ABP News, ABP Ananda, Zee 24 Ghanta, Times of India, Hindustan Times, Sakaal Times, Amar Ujala, Pinkvilla
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story