না, এই ছবিগুলি রাশিয়ার নদীতে তেল ছড়িয়ে যাওয়ার সাম্প্রতিক ছবি নয়

বুম দেখে গণমাধ্যম ও সোশাল মিডিয়ায় ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রাশিয়ার দালদিকান নদীর জলের রঙ বদলানোর ছবি ব্যবহার করা হয়েছে।

রাশিয়ার নরিলস্ক শহরের দালদিকান নদীর জল টকটকে লাল হয়ে যাওয়ার ২০১৬ সালের পুরনো ছবি গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে ও সোশাল মিডিয়ায় নতুন করে ব্যবহার করা হচ্ছে। সুমেরুবৃত্ত সংলগ্ন নরিলস্ক শহর সম্প্রতি খবরের শিরোনামে এসেছে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের তেলের ট্যাঙ্কে ফাটল ধরে বিস্তীর্ণ এলাকায় তেল ছড়িয়ে যাওয়ার সুবাদে।

খবরে প্রকাশ, নরনিকেল-এর সহযোগী সংস্থা নরিলস্ক-তাইমায়ার এ্যানার্জি কো. এর অধীনস্ত তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের শক্তি আধারে ফাটলের জেরে ২৯ মে ডিজেল ছড়িয়ে পড়ে। ট্যাঙ্কের নিচের বরফ জমা মাটি সরে গেলে পিলার আর ডিজেল ট্যাঙ্কের সংযোগস্থলে ফাটলের ফলে এই বিপত্তি ঘটে। প্রায় ১২ কিমি এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে ২০,০০০ টন ডিজেল। আম্বারনায়া নদীর জলে তেল মিশে বদলে গিয়েছে জলের উপরিতলের রঙও। ওই অঞ্চলে জরুরি অবস্থা জারি করেছে পুতিন সরকার।

বুম দেখে কিছু গণমাধ্যম ও সোশাল মিডিয়া পোস্টে নরিলস্কে ঘটনা ২০১৬ সালে আরেক দূর্ঘটনায় দালদিকান নদীর জল লাল হয়ে যাওয়ার ছবি শেয়ার করা হচ্ছে।

ফেসবুক পোস্টে তিনটি ছবির সেট শেয়ার করা হয়েছে। প্রথম ছবিতে বিস্তীর্ণ নদীর জল লাল রঙের হয়ে রয়েছে। নদীর পাড়ে ছিটে ফোটা উদ্ভিদের চিহ্ন নেই। দ্বিতীয় ও তৃতীয় ছবিতে লাল টকটকে লাল রঙের স্রোত বইছে। নদী পাড়ে কিছু সবুজ ও হলদে রঙের উদ্ভিদ ঝোঁপ-ঝাড় দেখা যাচ্ছে। দ্বিতীয় ছবিতে বাংলায় লেখা রয়েছে দালদিকান নদী এবং ওই ছবিটিতে নদীর পাড়ে সবুজের পরিমান তৃতীয় ছবির থেকে কম।

ফেসবুক পোস্টটির ক্যাপশনে উল্লেখ করা হয়েছে, "জলে মিশেছে ট্যাংকার থেকে লিক করা #২০_হাজার_টন_ডিজেল !!! যার জেরে টকটকে লাল হয়ে গিয়েছে #দালদিকান ও #আম্বার্নোয়া নদীর জল!"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। আর্কাইভ করা আছে এখানে
একই ক্যাপশন সহ ছবিগুলি অনেকেই ফেসবুকে শেয়ার করেছেন।
বাংলা গণমাধ্যমের খবরে পুরনো ছবি
রাশিয়ায় নদীতে তেল মিশে যাওয়ার সাম্প্রতিক ঘটনা নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বেশ কিছু গণমাধ্যম যেমন এশিয়ানেট নিউজ বাংলা, নিউজ১৮ বাংলাযুগশঙ্খ প্রভৃতি ২০১৬ সালে দালদিকান নদীর জল লাল হয়ে যাওয়ার পুরনো ছবি ব্যবহার করেছে।

তথ্য যাচাই

বুম রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখে গণমাধ্যমে ব্যবহার করা ছবি ও ফেসবুক পোস্টের দুটি ছবি পুরনো। সম্প্রতি আম্বরানায় নদীতে তেল মিশে যাওয়ার দূর্ঘটনার জন্য দায়ী নরনিকেল সংস্থারই আরেকটি কারখানা নাদেজদা মেটালার্জি প্ল্যান্টের পাইপ লিক হওয়ার ফলে লোহা জাতীয় রাসায়নিক মিষে দালদিকান নদীর জল লাল হয়ে যায় ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। নরনিকেল সারা বিশ্বের সবচেয়ে বৃহত্তম নিকেল ও প্যালাডিয়াম উৎপাদক সংস্থা।
২০১৬ সালের ছবি
২০১৬ সালের নাদেজদা মেটালার্জি প্ল্যান্টের বিচ্যুতির ফলে দালদিকান নদীর জল লাল হয়ে যাওয়ার ছবি দুটি দেখা যাবে ২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ও ৮ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত দ্য গার্ডিয়ানসিএনএন এর প্রতিবেদনে। এই দুুটি ছবি ব্যবহার করে আনন্দবাজার ৮ জুন ২০১৬ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল, যার শিরোনাম লেখা হয়েছিল: "রাতারাতি নদীর রং টকটকে লাল, আতঙ্কে বাসিন্দারা"

আসল ছবি

বুম দেখে ফেসবুক পোস্টের প্রথম ছবিটি ২ জুন ২০২০ সাইবেরিয়ান টাইমস-এর প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে। তেল ছড়িয়ে পড়া আম্বারনায়া নদীতে রুখে ফেলা গেছে বলে জানিয়েছে রুশ সংবাদ সংস্থা তাস। তবে ৫ সেমি পর্যন্ত মাটির গভীরে সেধিঁয়েছে এই ডিজেল।

রুশ পরিবহন মন্ত্রালয়ের মেরিন রেসকিউ সার্ভিস ও বিপর্যয় মোকাবিলা সংস্থা তেল যাতে ছড়িয়ে না পড়ে বিষয়টি বিশারদের দিয়ে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। ৬০ কিমি দীর্ঘ আম্বারনায়া নদী পিয়াসিনা হ্রদের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়। সেখান থেকে পিয়াসিনা নদী বেয়ে জলস্রোত মেশে কারা সুমুদ্রে যা সুমেরু মহাসাগরের অংশ।

কোপারনিকাস সেন্টিনেল-২ উপগ্রহ থেকে তোলা ডিজেল ছড়িয়ে যাওয়া এলাকায় ছবি প্রকাশ করেছে ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সী। নীচে দেখুন জিআইএফ।

Updated On: 2020-06-09T19:14:47+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি রাশিয়ায় দালদিকান নদীতে তেল মিশেছে
Claimed By :  News Websites & Facebook Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story