তারেক ফাতাহ একটি ভুয়ো পোলিও ভিডিও পোস্ট করে পাকিস্তানি অভিনেত্রীর দ্বারা ভৎর্সিত হয়েছেন

পাকিস্তানি অভিনেত্রী মেহউইশ হায়াত যিনি ফিল্মটিতে অভিনয় করেছিলেন, তিনি কানাডীয় টুইটার প্রভাবক তারেক ফাতাহর সমালোচনা করেছেন।

পাকিস্তানে বংশদ্ভুত কানাডীয় টুইটার প্রভাবক তারেক ফাতাহ বুধবার একটি পাকিস্তানি সিনেমা থেকে নেওয়া দৃশ্য পোস্ট করেন। তাতে দেখা যায় যে, ভ্যাকসিন বা প্রতিষেধক টিকা দিতে আসা এক দল স্বাস্থ্য কর্মীকে চলে যেতে বলছেন এক মহিলা। কিন্তু পোস্ট করার সময় উনি এ কথা স্পষ্ট করেননি যে ভিডিওটি আসলে একটি ফিল্মের অংশ।

ভারতে দক্ষিণপন্থীদের মধ্যে বহু অনুগামী আছে ফাতাহ'র। তাঁর পোস্ট করা ৪২ সেকেন্ডের ক্লিপটিতে এক মহিলাকে অভদ্র ব্যবহার করতে দেখা যাচ্ছে স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে, যাঁরা পোলিওর প্রতিষেধক টিকা দেওয়ার অভিযান চালাচ্ছিলেন।

বুম প্রতিবেদন প্রকাশ করলে তারেক টুইটটি ডিলিট করে দেন। টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে


পৃথিবীর যে তিনটি দেশে এখনও পোলিও রোগ নির্মূল করা যায়নি, তার মধ্যে পাকিস্তান একটি। পোলিও টিকা সম্পর্কে ভুল ধারণা, ভয় আর সন্দেহের ফলে এই অসুখকে ঠেকাতে পাকিস্তানকে হিমসিম খেতে হচ্ছে। গ্লোবাল পোলিও ইর‌্যাডিকেশন ইনিশিয়েটিভ জানিয়েছে যে, ২০১৯'এ ১৩৬ পোলিও সংক্রমণের ঘটনা ঘটে পাকিস্তানে। ওই অসুখের টিকার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিরোধ দেখা গেছে সে দেশে। টিকা দেওয়ার অভিযান চলাকালে স্বাস্থ্যকর্মী ও হাসপাতালের ওপর বারবারই হামলা হয়েছে।

ফাতাহ'র পোস্ট-করা ক্লিপে দেখা যাচ্ছে এক উত্তেজিত মহিলা স্বাস্থ্যকর্মীদের বলছেন যে, উনি কিছুতেই তাঁর বাচ্চাকে পোলিও খাওয়াতে দেবেন না। পাঞ্জাবি হিন্দিতে খুব নাটকীয় ভঙ্গীতে উনি স্বাস্থ্যকর্মীদের বলেন যে, ওই টিকার ফলে "বাচ্চাদের পেট খারাপ হয় আর তা সারানোর ওষুধের দাম ধরাছোঁয়ার বাইরে"। একজন স্বাস্থ্যকর্মী তাঁকে বোঝাতে চেষ্টা করলে, মহিলা রেগে বলেন, "পোলিও টিকা দিতে যে টাকা খরচ হয়, তাই দিয়ে মুদির দোকান থেকে মাল কিনে নিজের বাড়িতে ভরো। তাতে লাভ হবে"। তারপর স্বাস্থ্যকর্মীর মুখের ওপর দরজা বন্ধ করে দেন তিনি।

ফাতাহ টুইট করার পর ভিডিওটি ফেসবুকেও শেয়ার করা হয়।



তথ্য যাচাই

ফাতাহ ভিডিওটি টুইট করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই, পাকিস্তানি অভিনেত্রী মেহউইশ হায়াত জবাব দিয়ে বলেন যে ভিডিওটি আসলে তাঁর ছবি 'লোড ওয়েডিং'-এর একটি দৃশ্য।

হায়াত বলেন, স্বাস্থ্যকর্মীর ভূমিকায় কাজ করেছেন উনি নিজে এবং মা হিসেবে যাঁকে দেখা যাচ্ছে উনিও একজন অভিনেত্রী।

আমরা লোড ওয়েডিং ফিল্মটি দেখি। সেটি ইউটিউবে আছে। ৩৪.৩০ মিনিটের মাথায় ওই দৃশ্যটি দেখা যায়।

ফাতাহ যে ভিডিও টুইট করেছেন তার সংলাপ, সেট এবং চরিত্রগুলি সিনেমার সঙ্গে হুবহু মিলে যায়। ছবিটির শেষে টাইটেল ক্রেডিটস-এ অভিনেত্রীকে 'সানা বাট' বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। আমরা ভিডিও আর ফিল্মের স্টিলগুলি মিলিয়ে দেখি। দেখা যায় সেগুলির মধ্যে বিস্তর মিল রয়েছে।


এটাই প্রথমবার নয়, ফাতাহ আগেও টুইটারে বিভ্রান্তিকর ও মিথ্যে পোস্ট করেছেন। বুম আগে ফাতাহ'র একটি পোস্ট খণ্ডন করে। তখন জম্মু ও কাশ্মীরে শিশু নির্যাতনের একটি ভিডিও পাকিস্তানের বলে চালিয়ে ছিলেন।

Updated On: 2020-01-18T08:30:58+05:30
Claim Review :  ভিডিওর দাবি পাকিস্তানি মহিলা তাঁর বাচ্চাদের পোলিও খওয়াতে অস্বীকার করছেন
Claimed By :  Tarek Fatah, Facebook pages
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story