মোদীর মুসলিমদের পক্ষে বলা ভুয়ো মন্তব্য ছড়ালো আবার

বুম অনুসন্ধান করে দেখতে পায় যে এই উদ্ধৃতিটি আসলে এবিপি মাঝা-র নিউজ বুলেটিনের টেমপ্লেটে সুপারইম্পোজ করে বসানো হয়েছে।

টেলিভিশনের পরিচিত গ্রাফিক্স-এর মধ্যে বসানো একটি বিবৃতি। বক্তার নাম নরেন্দ্র মোদী। মুসলমানদের পক্ষ নিয়ে একটা কড়া বিবৃতি দিয়েছেন তিনি। এমন কোনও ছবি চোখে পড়লে জানবেন, এটা মিথ্যা প্রচার।

মোদীকে উদ্ধৃত করে ওই ছবিটিতে বলা হয়েছে, “মুসলিমদের কোন ক্ষতি করার আগে আমার মৃতদেহের ওপর দিয়ে যেতে হবে।”

( যে হিন্দি টেক্সট থেকে এটি অনুবাদ করা হয়েছেঃ मुसलमानों को हाथ लगाने से पहले मेरी लाश से गुज़रना होगा– नरेंद्रमोदी)

মজার বিষয় হল এই নাটকীয় এবং ভুয়ো উদ্ধৃতিটি ফেসবুকে শেয়ার করেছে রাহুল গান্ধীর এক ফ্যান পেজ থেকে।

এই পোস্টটির আর্কাইভ করা আছে এখানে

বুম দেখেছে এই একই কমেন্ট গতবছর টুইটারে ভাইরাল হয়েছিল।

@ShakeelMalikAAP নামের এক টুইটার হ্যান্ডেল থেকে গত বছর মে মাসে এই উদ্ধৃতিটি উল্লেখ করে লেখা হয়েছিল,“প্রিয় @narendramodi জি, আপনি ঠিক আছেন তো?”



রাজা বাবু নামের অন্য একটি টুইটার হ্যান্ডেল থেকে এই একই পোস্ট শেয়ার করে রাহুল গান্ধীর উদ্দেশ্যে বলা হয়, “প্রধানমন্ত্রীর বয়ান ছিল, মুসলমানদের গায়ে হাত দেওয়ার আগে আমার লাশের উপর দিয়ে যেতে হবে। সতনার ঘটনা থেকেই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।”



তথ্য যাচাই

বুম দেখতে পায় যে পোস্টটিতে যে টেলিভিশন চ্যানেলের লোগো ব্যবহার করা হয়েছে, সেই এবিপি মাঝা মারাঠি ভাষার নিউজ চ্যানেল, কিন্তু পোস্টটির বয়ান রয়েছে হিন্দিতে।

বুম আরও দেখে ভুয়ো পোস্টটির লেখায় যে হরফ ব্যবহারকরা হয়েছে তা এবিপি মাঝা-র ব্রেকিং নিউজে ব্যবহৃত হরফের থেকে একেবারেই আলাদা।

ভুয়ো ও আসল: হরফের ধরন ও আকারের তারতম্য রয়েছে।

আমরা ‘নরেন্দ্র মোদী’ ও ‘মুসলিম’ ও ‘লাশ’, এই কিওয়ার্ডগুলি শব্দ ব্যবহার করে সার্চ করে দেখি, ২০১৮ সালের ১৩ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবারের পর থেকে কোনও সংবাদ প্রতিবেদন পাওয়া যায় কি না। এই তারিখটি বেছে নেওয়ার কারণ, এই পোস্টে गुरूवार १३ दिसंबर २०१८ তারিখের উল্লেখ করা হয়েছিল।

উপরন্তু, সেই সপ্তাহে নরেন্দ্র মোদী মুসলমানদের সম্পর্কে এই রকম কোনও মন্তব্য করেননি।

গতবছরের ডিসেম্বরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এরকম কোনও মন্তব্য করেননি।
Claim Review :   নরেন্দ্র মোদী বলেছেন, “মুসলিমদের কোন ক্ষতি করার আগে আমার মৃতদেহের ওপর দিয়ে যেতে হবে”
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story