লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্স নরেন্দ্র মোদীকে সাম্মানিক ডিগ্রি দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা অস্বীকার করেছে

প্রশান্ত ভূষণ জানিয়েছেন, এ ধরনের কোনও ঘটনার কথা তাঁর জানা নেই। লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্স এরকম কোনও অভিপ্রায় অস্বীকার করেছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্স(এলএসই) সাম্মানিক ডিগ্রি দেবার পরিকল্পনা বাতিল করেছে বলে হোয়াটসঅ্যাপের যে বার্তাটি ভাইরাল হয়েছে, সেটি ভুয়ো। বিভিন্ন সোশাল মিডিয়া মঞ্চে ভাইরাল হওয়া বার্তাটিতে বলা হচ্ছে, অক্সফোর্ড ইউনিয়ন সোসাইটিতে প্রশান্ত ভূষণের বক্তৃতা শোনার পরেই নাকি লন্ডন স্কুল তার পরিকল্পনা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়।

বর্তমানে এলএসই থেকে মোদীর কোনও সাম্মানিক ডিগ্রি নেই।

বুম প্রশান্ত ভূষণ এবং এলএসই উভয়ের সঙ্গেই যোগাযোগ করেছে এবং উভয়েই বার্তাটিকে ভুয়ো আখ্যা দিয়েছেন। এলএসই স্কুলকে বার্তার প্রতিলিপি পাঠানো হলে তারাও বার্তাটিকে ভুয়ো বলেছে। বুম তার হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইন নম্বরে (৭৭০০৯০৬১১১) একাধিক ব্যাপারে ওই বার্তাটি পেয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপে ফরওয়ার্ড হওয়া বার্তাটি।

বার্তার সঙ্গে পোস্ট করা ভিডিওটি এখানে দেখতে পারেন। এটি অক্সফোর্ড ইউনিয়ন বিতর্কে প্রশান্ত ভূষণের দেওয়া বক্তৃতার ভিডিও।

বেশ কয়েকজন ফেসবুক ব্যবহারকারী ওই ভুয়ো বার্তাটি শেয়ার করেছেন।



তথ্য যাচাই

১৮২৩ সাল থেকে অক্সফোর্ড ইউনিয়ন সোসাইটি নানা সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে বিশিষ্ট বক্তা ও বিদ্বজ্জনদের মতামত ও বক্তব্য জানতে তাঁদের আমন্ত্রণ জানিয়ে থাকে। এ ধরনেরই একটি বিতর্কের অংশ হিসাবে প্রশান্ত ভূষণ লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণার এক সপ্তাহ আগে ১৬ মে একটি বক্তৃতা দেন। বিতর্কের বিষয় ছিল: এই সদন নরেন্দ্র মোদী সরকারের উপর কোনও আস্থা জ্ঞাপন করে না। বিতর্কে বিষয়ের পক্ষে যোগ দিয়েছিলেন প্রশান্ত ভূষণ, যোগেন্দ্র যাদব এবং সলমন খুরশিদ।

অক্সফোর্ড ইউনিয়নের কাছে বিতর্কের বিষয় এবং বক্তাদের বিষয়ে বিশদ তথ্যই রয়েছে।তবে ভুষণের বক্তব্য নীচের ভিডিওতেও শোনা যাবে।



প্রশান্ত ভূষণকে যখন আমরা হোয়াটসঅ্যাপ বার্তাটির ব্যাপারে প্রশ্ন করি এবং জানতে চাই যে তাঁর বক্তব্যের ফলেই মোদীকে লন্ডন স্কুলের সাম্মানিক ডিগ্রি দেওয়ার পরিকল্পনা ভেস্তে যায় কিনা, তখন তিনি বলেন, “আমার মনে হয়, বার্তাটি ভুয়ো।”

বুমকে তিনি এ কথাও জানান য়ে অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্কসভার আগের দিনই তিনি লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্সেও একটি বক্তৃতা দেন, কিন্তু ভাইরাল বার্তায় লন্ডন স্কুলের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে যে দাবি করা হয়েছে, সে বিষয়ে তাঁর কোনও ধারণা নেই।

বুম লন্ডন স্কুল অফ ইকনমিক্সের তরফেও জানতে পেরেছে যে প্রথমত মোদীকে সাম্মানিক ডিগ্রি দেওযার কোনও পরিকল্পনাই তাঁদের কখনও ছিল না। এলএসই মুখপাত্র শার্লট কেলোওয়ে বুমকে পাঠানো একটি ই-মেল বার্তায় জানান,

‘‘আপনার মেল-এর জন্য ধন্যবাদ। আমরা সংশ্লিষ্ট দফতরের সঙ্গে এ বিষযে যোগাযোগ করেছি এবং এই দাবিটা একেবারেই সঠিক নয় ।’’

শার্লট কেলোওয়ে, মুখপাত্র
Show Full Article
Next Story