সদ্য বিবাহিত বরকে হাতে ‘চৌকিদার চোর’ লেখার জন্য হেনস্তা করা হয়নি

একজন বর বিয়ের শেষ মুহূর্তে পন দাবি করার ঘটনাকে রাজনৈতিক রং দিয়ে ভুলভাবে দেখানো হল।

ঝাড়খণ্ডের এক জন লোক তার বিয়ের দিনে আচমকা পণের দাবি করায় জনসমক্ষে তাকে হেনস্তা করা হয়। দু বছরের পুরানো সেই ঘটনার ছবি এখন মিথ্যে দাবির সঙ্গে ভাইরাল হয়েছে। ছবিটিতে দাবি করা হয়েছে যে কনের বাবা লোকটিকে হাতে ‘চৌকিদার চোর’ লেখার জন্য নিগ্রহ করেছে।

বিয়ের অনুষ্ঠানে তোলা ফোটোগ্রাফটিতে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে, “ এই কংগ্রেস ফ্যান নিজের হাতে ‘চৌকিদার চোর’ লিখেছেন। কনের বাবা সেজন্য তাকে মারধর করে এবং গলায় জুতোর মালা পরিয়ে দেয়। তাকে বিয়ের আসর থেকে বার করে দেওয়া হয় ও পরে বলা হয় চৌকিদার সৎ আর কংগ্রেস পার্টি চোর”।

ফোটোগ্রাফটি একই ক্যাপশনের সঙ্গে ফেসবুকে প্রচুর পেজে ভাইরাল হয়েছে।

তথ্য যাচাই

বুম রিভার্স ইমেজ চালায় এবং দেখতে পায় যে ছবিতে দেখানো বর আসলে ঝাড়খণ্ডের রাঁচী জেলার চান্দেয়া গ্রামের মুন্তাজ আনসারি নামের এক ব্যক্তি।

একটি খবরের কাগজের রিপোর্ট অনুসারে জানা যায় আনসারিকে কন্যাপক্ষ থেকে হিরো প্যাশন পিআরও বাইক দেওয়া হয়। কিন্তু আনসারি বিয়ের আসরে বাজাজ পালসারের দাবি করে এবং দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত কনে রুবানা পারভিনকে বাড়ি নিয়ে যেতে অস্বীকার করে। কনে তার পণের দাবির কথা জানতে পারে এবং বিয়ের তিন ঘণ্টার মধ্যে তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

বাগবিতণ্ডার পর ক্ষিপ্ত গ্রামবাসী তাকে জনসমক্ষে হেনস্তা করার জন্য তার গলায় মালা পরিয়ে দেয়।

পরে তার মাথা নেড়া করে দেওয়া হয় ও তাকে একটি পোস্টার পরিয়ে দেওয়া হয় যাতে লেখা ছিল, “আমি পণ লোভী”। গালফ নিউজের ২০১৭-র রিপোর্ট এখানে দেখা যাবে ও ঘটনাটি সম্পর্কে ডেইলি মেলের রিপোর্ট দেখা যাবে এখানে

Claim Review :  কনের বাবা বরকে হাতে ‘চৌকিদার চোর’ লেখার জন্য নিগ্রহ করেছে
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story