না, আমিরশাহি বিমান-সংস্থা ঐশ্বর্য দেখাতে কোনও হিরে-খচিত বোয়িং ৭৭৭ নামায়নি

কিন্তু এই ছবিটি আসলে একটি ডিজিটাল শিল্পকর্ম। বাস্তবে এ ধরনের কোনও হিরে-খচিত বিমানের অস্তিত্ব নেই।
সোশাল মিডিয়ায় আমিরশাহির মালিকানাধীন একটি বোয়িং বিমানের চোখ-ধাঁধানো ছবি ঘুরছে, যে বিমানটি আপাদমস্তক হিরে-খচিত এবং লোকে ছবিটা দেখে বিশ্বাসও করছে। বিশ্বাস করার কারণ হল ছবিটিতে বিমানের পাশে অপেক্ষারত মালবাহী কন্টেনার ও ট্রাকের সারি। অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারী এটাকে আমিরশাহির ঐশ্বর্যের ন্যক্কারজনক প্রদর্শনী হিসেবে সমালোচনাও করেছেন। কিন্তু এই ছবিটি আসলে একটি ডিজিটাল শিল্পকর্ম। বাস্তবে এ ধরনের কোনও হিরে-খচিত বিমানের অস্তিত্ব নেই। আমিরশাহি বিমানসংস্থার সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে ছবিটি শেয়ারও করা হয়। তাতে ক্যাপশন দেওয়া ছিল—“আমিরশাহির ব্লিং ৭৭৭ বিমান। ছবির স্রষ্টা সারা শাকিল”। এই টুইটটি ১৮ হাজার ‘লাইক’ পায় এবং ৬৫০০ বার ‘রিটুইট’ করা হয়। জনমানসে ছবিটির প্রতিক্রিয়া বোঝাতে টুইটার মোমেন্টস তাতেও এটি স্থান পায়, যার ক্যাপশন হয়—“এটা কোনও হিরে-খচিত বিমান নয়”। বিমানসংস্থার মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে গাল্ফ নিউজ জানায়, “আমরা স্ফটিক শিল্পী সারা শাকিল-এর একটি শিল্পকর্ম এখানে পোস্ট করেছি। জোর দিয়ে বলতে পারি, এটা আসল বিমানের ছবি নয়” । শিল্পকর্মটির স্রষ্টা সারা শাকিল ডিজিটাল শিল্পে এক ঝড়-তোলা নাম। তার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল খুললে দেখা যায়, তাঁর অনুগামীর সংখ্যা ৪ লক্ষ ৯২ হাজার। ওঁর করা অধিকাংশ ছবিই ‘ক্রিস্টাল আর্ট’ গোত্রের, প্রায় যে কোনও জিনিসকেই তিনি শিল্পের স্তরে রূপান্তরিত করতে পারেন। দাঁতের ডাক্তার থেকে শিল্পীতে ভোল-বদল করা এই পাকিস্তানি মহিলার শিল্পকলা চর্চার কোনও প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ নেই। তবে বরাবরই চকমকে, ঝলমলে জিনিসের প্রতি তাঁর প্রবল টান,বিশেষ করে ক্রিস্টাল বা স্ফটিকের প্রতি। নীচে ওঁর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলের একটি স্ক্রিনশট দেওয়া হল, যে-প্রোফাইলে তাঁর অসংখ্য শিল্পকর্মের নমুনা মিলবে। বুম-এর তরফেও সারা শাকিলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়, তবে এখনও তাঁর কোনও সাড়া মেলেনি। তবে এই প্রথম যে সারার ডিজিটাল শিল্পকলা আলোচনার কেন্দ্রে এসেছে, এমন নয় । বিখ্যাত FORBES পত্রিকা তাঁর শিল্পকর্ম নিয়ে প্রবন্ধ ছেপেছে এবং তাদের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলেও তাঁকে অন্তর্ভুক্ত করেছে ।
Show Full Article
Next Story