না, এটি ছোটবেলায় মায়ের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর ছবি নয়

গুগল রিভার্স ইমেজ দেখিয়ে দিয়েছে যে, বিভিন্ন সংবাদ প্রতিবেদনে ওই শিশুটিকে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এ পি জে আব্দুল কালাম বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। ছবিতে তিনি তাঁর মায়ের সঙ্গে রয়েছেন।

গুগল রিভার্স ইমেজ দেখিয়ে দিয়েছে যে, বিভিন্ন সংবাদ প্রতিবেদনে ওই শিশুটিকে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এ পি জে আব্দুল কালাম বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। ছবিতে তিনি তাঁর মায়ের সঙ্গে রয়েছেন।

হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজটি।

বুম তার হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইনে(7700906111) এই ছবিটি পায়। হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে জানতে চাওয়া হয়েছিল, শিশুটি সত্যিই নরেন্দ্র মোদী কিনা।

ফেসবুক পোস্ট

ছবিটি ‘মায়ের সঙ্গে নরেন্দ্রমোদীর শৈশবের ছবি’ এই ক্যাপশনের সঙ্গে ফেসবুকে শেয়ার করা হয়েছে।

হিন্দিতে লেখা হয়েছে, “এই সেই শিশু, যে ১৩২ কোটি মানুষকে কাঁপিয়ে দিয়েছে।নরেন্দ্রমোদী তাঁর মায়ের সঙ্গে।’’

.ফেসবুক পোস্ট।

ফেসবুক পোস্ট দেখার জন্য এখানে এবং আর্কাইভ দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন।

তথ্য যাচাই

এই একই ছবি ২০১৬ সালেও বিভ্রান্তিকর দাবির সঙ্গে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছিল।

বিভ্রান্তিকর দাবির সঙ্গে ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ছবি।

বুম গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চ করে কিছু সংবাদ প্রতিবেদন দেখতে পায়, যেগুলিতে ছবির শিশুটিকে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এ পি জে আব্দুল কালাম ও ভদ্রমহিলাকে তাঁর মা আসিয়াম্মা জৈনুলাবিদ্দিন বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।

২০১৬ সালের ৮ মে ইন্ডিয়া টুডে-তে ‘মাতৃ দিবসে ২০ জন বিখ্যাত ভারতীয়র গর্বিত মায়েরা’ নামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেই প্রতিবেদনটিকে এই একই ছবি ব্যবহার করা হয় এবং এটিকে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি কালাম-এর শৈশবের ছবি বলে চিহ্নিত করা হয়।

ইন্ডিয়া টুডে-র প্রতিবেদন।

‘এ পি জে আব্দুল কালাম-এর মৃত্যু বার্ষিকী: মিসাইল ম্যান সম্পর্কে ১০টি অজানা তথ্য’ নামে জাগরণ জোশ-এ ২০১৮-র ২৭ জুলাই একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় এবং তাতে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি কালাম-এর পুরো পরিবারের ছবি প্রকাশ করা হয়েছিল।

জাগরন জোশ-এর প্রতিবেদন।

বুম স্বতন্ত্রভাবে ছবিটির উৎস চিহ্নিত করতে পারেনি।

বিবিসি হিন্দিআজতক ছবিটির এই বিভ্রান্তিকর দাবি আগেই মিথ্যে বলে প্রমাণ করেছে।

Claim Review :  ছোটবেলায় মায়ের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদীর ছবি
Claimed By :  WHATS APP
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story