পুরনো ভিডিও শেয়ার করে দাবিঃ নিউজিল্যান্ডে নাকি ৩৫০ জন ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন

বুম লক্ষ করেছে, ভিডিওটি ২০০৭ সাল থেকে অনলাইনে রয়েছে এবং ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে সংঘটিত গণহত্যার সঙ্গে এই ভিডিওর কোনও সংশ্রব নেই

নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদে সাম্প্রতিক গণহত্যার পরেই ৩৫০ জন সেখানে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছে বলে ফেসবুক পেজে যে ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছে, সেটি অন্তত এক দশকের পুরনো । বুম দেখেছে, ভিডিওটি ২০০৭ সাল থেকে অনলাইনে রয়েছে এবং ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে গণহত্যায় নিহত ৫০ জন মুসলমানের মৃত্যুর সঙ্গে তার কোনও সম্পর্কই নেই ।

ভাইরাল হওয়া ভিডিও ক্লিপে এক মুসলিম ধর্মপ্রচারককে কয়েকজন তরুণের সঙ্গে যৌথভাবে ইসলাম ধর্মের মূল কথাগুলি উচ্চারণ করতে দেখা যাচ্ছে ।

‘সাজিদ হাসমত’ নামের একটি ফেসবুক পেজ ভিডিওটি পোস্ট করে লিখেছে—“গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ডে ৫০ জন মুসলমান নিহত হয়েছেন, আর আজ সেখানে ৩৫০ জন ইসলাম ধর্মে দীক্ষা নিলেন ।”

পোস্টটি দেখতে এখানে এবং তার আর্কাইভ সংস্করণ দেখতে এখানে ক্লিক করুন ।

পোস্টটি ১১ লক্ষ লোক দেখেছেন, ২০ হাজার প্রতিক্রিয়া পেয়েছে এবং এই লেখার সময় পর্যন্ত ৬৮ হাজার ১৪৭ জন সেটি শেয়ার করেছে ।

সেই থেকে ওই একই ভিডিও একই ভুল ক্যাপশন দিয়ে ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে চলেছে ।

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিওটির এক-একটি ফ্রেম থামিয়ে-থামিয়ে খুঁটিয়ে পরীক্ষা করেছে, এটি অন্তত ২০০৭ সালের আগে তোলা । তবে ঠিক কোন সময় এটি তৈরি করা হয়েছিল, সেটা নিশ্চিত নয় ।

চলতি সপ্তাহের শুরুর দিকেই অল্টনিউজ এই পোস্টটিকে ভুয়ো বলে নস্যাত্ করেছে এবং ২০০৯ সালের একটি ভিডিও-ও খুঁজে পেয়েছে ।

বুম আরও খোঁজখবর চালিয়ে ইউ-টিউবে একটি ভিডিও পায়, যেটি আপলোড করা হয়েছিল ২০০৭ সালের ২৫ অগস্ট । ভিডিওটির ক্যাপশন ছিল—“৫ জন জার্মান ইসলাম ধর্মে অন্তরিত হলেন” ।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন ।

Claim :   নিউ জিল্যান্ড ক্রাইস্ট চার্চ হত্যার পর ৩৫০ জন ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন
Claimed By :  ফেসবুক পোস্ট
Fact Check :  মিথ্যা
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.