এগুলি কী তামিলনাড়ুর সৈকতে প্রধানমন্ত্রী মোদীর আবর্জনা কুড়ানোর দৃশ্যের নেপথ্যের ছবি? না, তা নয়

বুম দেখেছে কোলাজের তিনটি ছবির মধ্যে দুটিই পুরনো এবং সম্পর্কহীন।

চারটি ছবর একটি কোলাজ সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে এই ভুয়ো দাবি নিয়ে যে, এগুলি তামিলনাড়ুর মামল্লপুরম সৈকতে প্রধানমন্ত্রী মোদীর আবর্জনা কুড়ানোর আগে তার পটভূমি রচনার ছবি। চারটি ছবির মধ্যে তিনটিতেই দেখা যাচ্ছে, লোকজন সৈকতটি খতিয়ে দেখছে, ময়লা এনে সৈকতে ডাঁই করা হচ্ছে এবং তারপর ক্যামেরাম্যানরা ছবি তোলার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে। চতুর্থ ছবিটিতে দেখানো হয়েছে, মোদী সৈকত থেকে সেই আবর্জনা কুড়াচ্ছেন।

ওই তিনটি ছবি একসঙ্গে শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীর নিজের লোকজনই প্রথমে বেলাভূমিটি পর্যবেক্ষণ করছে, তারপর সেখানে বিশেষ-বিশেষ স্থানে ময়লা এনে জড়ো করছে এবং সবশেষে ক্যামেরাম্যানরা তাদের ক্যামেরা বাগিয়ে কিংবা জায়গামতো রেখে প্রধানমন্ত্রীর ময়লা সাফ করার ছবি তোলার জন্য তৈরি হচ্ছ।

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

ছবিগুলির কোলাজ কংগ্রেস সাংসদ কার্তি চিদম্বরমও পোস্ট করেছন।



চিনের প্রেসিডেন্ট শি চিনফিং এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এ সপ্তাহের শুরুতে
তামিলনাড়ুর উপকূলীয় শহর মামল্লপুরমে ছিলেন। সেখান থেকেই শি চিনফিং তার দুদিনের ভারত সফরের সূচনা করেন। শুক্রবার সকালে সৈকতে জগিং করার সময় মামল্লপুরমে আবর্জনা কুড়ানোর একটি তিন মিনিটের ভিডিও শেয়ার করেন। এই প্রেক্ষিতে প্লগিং বলে যে শব্দটি এখন খুব চালু হয়েছে, সেটি আসলে জগিং অর্থাৎ প্রাতঃকালীন দৌড় এবং পিকিং আপ লিটার বা ময়লা কুড়িয়ে জায়গা সাফ করার প্রক্রিয়া। যা সুইডিশ শব্দ থেকে উদ্ভুত।

মোদী নিজেই তার টুইটার হ্যান্ডেলে জানান যে, সে দিন সকালে তিনি আধ ঘন্টা ধরে মামল্লপুরম সৈকতে ময়লা কুড়িয়েছেন, তারপর সেই সংগৃহীত আবর্জনা তার হোটেলেরই কর্মচারী জয়রাজের হাতে তুলে দিয়েছেন। তিনি আরও বলেছেন—আমাদের জনস্থানগুলি যেন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকে এবং আমাদের শরীর যেন সুস্থ ও সতেজ থাকে।



বেশ কিছু ফেসবুক পোস্ট ও টুইটার হ্যান্ডেলেও এই ছবিগুলির কোলাজ ভাইরাল হয়েছে একই বয়ানে।

তথ্য যাচাই

বুম ছবিগুলি বিশ্লেষণ করে ও খোঁজ নিয়ে দেখেছে, কোলাজের অন্তত দুটি ছবি বেশ পুরনো এবং মামল্লপুরমের চলতি ঘটনাপ্রবাহের সঙ্গে সম্পর্কহীন।

প্রথম ছবি

এই প্রথম ছবিটি, যাতে বেশ কয়েকজন ফোটাগ্রাফারের একটি দল জড়ো হয়েছে, সেটি আসলে ওয়েস্ট স্যান্ডস সৈকতের ছবি, যেটি স্কটল্যান্ডের সেন্ট অ্যান্ড্রুজে অবস্থিত। এই সৈকতটি ফিফে টেসাইড অঞ্চলের অন্তর্গত, যেখানে হলিউডের বহু সিনেমার শুটিং হয়ে থাকে।

দ্বিতীয় ছবি

এই দ্বিতীয় ছবিটিতে বোম্ব স্কোয়াড লুকিয়ে থাকা ল্যান্ডমাইনের খোঁজে একটি সৈকতে তল্লাশি চালাচ্ছে—সৈকতটি কেরলের কোঝিকোড়ের। এ বছরেরই এপ্রিল মাসে নরেন্দ্র মোদীর নির্বাচনী জনসভার আগে এই তল্লাশির কাজটি চালানো হয়। দ্য হিন্দু সংবাদপত্রের একটি রিপোর্টে ছবিটি ব্যবহৃত হয়, যার শিরোনাম ছিল, ‘‘নরেন্দ্র মোদীর জনসভার আগে বিজেপি শক্তিপরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছ।’’

কোলাজের তৃতীয় ছবিটি বুম পক্ষে স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

Claim Review :   নরেন্দ্র মোদীর আবর্জনা পরিস্কারের অভিযানের আগের দৃশ্য
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story