ফুটপাথে বসে এক গৃহহীন দম্পতির সঙ্গে সম্বিত পাত্র খাচ্ছেন এই ছবিটি ফোটোশপে তৈরি করা

বুম দেখেছে যে, দুটি আলাদা ছবিকে একসঙ্গে ফোটোশপে এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে সম্বিত পাত্রকে বিরক্ত করা যায়

ফুটপাথে ভারতীয় জনতা পার্টির মুখপাত্র সম্বিত পাত্র এক গৃহহীন দম্পতির সঙ্গে খাচ্ছেন, এই ছবিটি ফোটোশপে তৈরি করা। দুটো সম্পূর্ণ আলাদা ছবি দিয়েই ওই ছবিটি তৈরি করা হয়েছে। এবং এমনভাবে সেটি করা হয়েছে যাতে পাত্রকে হাসির খোরাক করা যায়। তবে এই মিথ্যে ছবিটি অনেকেই শেয়ার করছেন এই বিশ্বাসে যে ছবিটি আসল।

ফোটোশপে করা ছবিটি @Ind_Arya টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করা হয়েছিল।

টুইটে সম্বিত পাত্র কে দেখা যাচ্ছে

এটি দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন আর আরকাইভ’র জন্য এখানে,  টুইটটি বলছে,“সম্বিত পাত্রর নতুন ঘোষণা। দারিদ্রকে কাছ থেকে দেখার জন্য আমি ফুটপাথে বসে খাব এবং ফুটপাথেই রাতে ঘুমোব।”

“शंबित पात्रा का नया ऐलान, ‘पुरी’ गरिबी को करीब से देखने के लिये पात्रा फुटपाथ पर बैठके खाना खायेंगे और रात में फुटपाथ पर सो जायेंगे,” ফেসবুক ব্যবহারকারী শিব রাজপুত ফোটোশপে করা ওই ছবিটি শেয়ার করেছেন এই ভেবে যে সেটি আসল ছবি। ক্যাপশানে হিন্দিতে লেখা হয়েছে, “भगवन श्री राम के कुल देवता जगननाथ पूरी मे संबित पात्रा की सादगी” বাংলায় মানে করলে দাঁড়ায়, “ভগবান শ্রীরাম’র কুলদেবতা জগন্নথ পুরীতে সম্বিত পাত্র’র সরলতা”

ছবিটি কংগ্রেস নেত্রী নগমা মোরারজি -ও টুইট করেন। বুম যখন ছবিটি ভুল প্রমাণ করে, তখন তিনি টুইট ডিলিট করে দেন।

তথ্য যাচাই

বোঝাই যাচ্ছে ছবিটি ফোটোশপে করা হয়েছে। দেখা যাচ্ছে ছবির অন্যান্য জায়গার তুলনায় অনেক বেশি উজ্জ্বল দেখাচ্ছে সম্বিত পাত্রকে।

ছবিটির রিভার্স ইমেজ সার্চ করে প্রথমে কিছুই পাওয়া যায় নি।

আমরা ছবিটি ক্রপ করে আলাদা আলাদা ভাবেও খোঁজ করেছি। কিন্তু তাতেও কোনও ফল পাওয়া যায় নি। তারপর আমরা ছবিটিকে আড়াআড়ি ভাবে ঘুরিয়ে আবার রিভার্স ইমেজ সার্চ করি।

তখন আসল ছবিটি দেখা যায়, ইন্ডিয়া.কম এর একটি আর্টিকেল’এ । যেটি ২৪ মে, ২০১৬ তে প্রকাশিত হয়েছিল।

আমরা সেই ছবিটিও পাই যেটি থেকে পাত্র’র ছবি ক্রপ করে বার করে নেওয়া হয়েছিল।



আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ওড়িশার পুরী থেকে সম্বিত পাত্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এবং নির্বাচনী প্রচারের অঙ্গ হিসেবেই তিনি তাঁর এলাকা প্রদর্শনে গিয়েছিলেন।

Claim Review :  ছবিটি দেখাচ্ছে সম্বিত পাত্র গৃহহীন দম্পতির সঙ্গে খাচ্ছেন
Claimed By :  ফেসবুক, টুইটার
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story