কৃত্রিম আতসবাজির ভিডিও মুম্বাইয়ের প্রদর্শনীর দৃশ্য বলে চালানো হচ্ছে

বুম দেখে যে, আসল ভিডিওটি তৈরি হয়েছিল ২০১৩ সালের জানুয়ারি মাসে। বাজি পোড়ানোর দৃশ্য তৈরি করে এমন এক ওয়েবসাইটের সাহায্যে ভিডিওটি প্রস্তুত করা হয়।

শব্দ সমেত আতসবাজি পোড়ানর এক কৃত্রিম ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। দাবি করা হচ্ছে সেটি মুম্বাইয়ের পশ্চিম বোরিভিলি শহরতলিতে বাজি পোড়ানোর এক অনন্য প্রদর্শনী।

দৃশ্যগুলি কম্পিউটারে তৈরি। কিন্তু বলা হচ্ছে বাজি পোড়ানর এমন দৃশ্য ভারতে আগে কখনও দেখা যায়নি।

ভিডিওটির ক্যাপশনে বলা হয়েছে, “মুম্বাইয়ের বোরিভিলি পশ্চিমে ১ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের আতসবাজি প্রদর্শনী। পৃথিবীতে এই ধরনের প্রদর্শনী এই প্রথম (গোলাকৃতি আলোর খেলা)। দেখার মতো...পৃথিবীর অন্যতম চমৎকার আতসবাজি প্রদর্শনী।”

ভিডিওটির আর্কাইভ করা আছে এখানে। এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত, ১ মিনিট ৪৬ সেকেন্ডের ওই ভিডিওটি ১০,০০০ বার দেখা হয়ে গিয়েছিল।

জাপানের ভাইরাল বাজি প্রদর্শনী

জাপানের এক অত্যন্ত চিত্তাকর্ষক বাজি প্রদর্শনীর ভিডিও হিসেবে সেটি টুইটারে প্রবেশ করে।





তথ্য যাচাই

ভিডিওটি যে কম্পিউটারে তৈরি, বুম তা নির্ধারণ করতে পারে। দেখা যায় সেখানে ব্যাকগ্রাউন্ড সঙ্গীতের সঙ্গে ছবির নিখুঁত মেলবন্ধন ঘটিয়ে একদম ত্রুটিহীন একটি প্রোগ্রাম তৈরি করা হয়েছে।

এর পর আমরা কয়েকটি প্রধান শব্দ দিয়ে ইউটিউবে সার্চ করি। সামনে আসে যে, ভিডিওটি জানুয়ারি ২০১৩ সালে ওই প্ল্যাটফর্মে আপলোড করা হয়েছিল।

https://youtu.be/_LpMB1OZ53g

ভিডিওটির বর্ণনায় বলা হয়েছে, “নিউ ইয়ারস ২০১৩—সিঙ্ক্রোনাইজড এপিক মিউজিক (হার্ট অফ কারেজ)—এফডাব্লিউ ফায়ারওয়ার্কস ডিসপ্লে—এইচডি।” (“New Years 2013 – Synchronized Epic Music (Heart of Courage) – FWSim Fireworks Display – HD”)

এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত, ভিডিওটি ১.৩ কোটি বার দেখা হয়েছিল। নতুন বছর ২০১৩ কে স্বাগত জানাতে ভিডিওটি পরিকল্পনা ও তৈরি করেন ইউটিউব ব্যবহারকারী ‘মিডিয়াবিজ’। ভিডিওটির বর্ণনার এক জায়গায় বলা হয়েছে, “...পার্টি চালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে আমি তৈরি বাজি পোড়ানোর দৃশ্যগুলি শেয়ার করি। এটি তৈরি করতে আমার এক সপ্তাহের একটু বেশি সময় লেগেছে। এবং তার ফলাফল সম্পর্কে আমি খুবই সন্তুষ্ট। প্রতিটি ‘সেল’ আমার নিজের তৈরি। আর যে দক্ষতার সঙ্গে সেগুলিতে প্রাণ সঞ্চার করতে পেরেছি, তার জন্য আমি নিজেই গর্বিত। আশা করি আপনারা সকলে সেটি উপভোগ করেছেন। যে সঙ্গীত ব্যবহার করা হয়েছে, সেটি হল টমাস বার্জেরসেনের (টু স্টেপস ফ্রম হেল) ‘হার্ট অফ কারেজ’। সত্যিই সঙ্গীতের এক অসামান্য অ্যারেঞ্জমেন্ট। আর এই প্রোডাক্সনের পরিকল্পনা ও উপস্থাপনার জন্য যে চমৎকার সফ্টওয়্যারটি ব্যবহার করা হয়েছে সেটি হল এফডাব্লিউ সিম।”

এর পর এফডাব্লিউ সিম সম্পর্কে আমরা ইন্টারনেট থেকে জেনে নিই। তা করতে গিয়ে আমরা একটি ওয়েবসাইটে পৌছায়—http://www.fwsim.com/shows.html। দেখা যায় সেটি বাজি পোড়ানোর দৃশ্য তৈরি করার ওয়েবসাইট।

ওই ওয়েবসাইটের গ্রাহকরা নিজেরাই আতসবাজি প্রদর্শনীর দৃশ্য তৈরি করতে পারেন।

Claim :   ১ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের আসতবাজি পশ্চিম বরিভেলি, মুম্বাই
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.