গাল্ফ নিউজ সংবাদপত্রের প্রথম পাতায় “পাপ্পু”-কে নিয়ে খবরের নেপথ্যে

হ্যাঁ, গাল্ফ নিউজ পত্রিকায় রাহুল গান্ধী বিষয়ক খবরের শিরোনামে “পাপ্পু” কথাটি ব্যবহৃত হয়েছে l কেন, এখানে তার ব্যাখ্যা—

সোশাল মিডিয়ায় চলতি সপ্তাহে রাহুল গান্ধীকে ব্যঙ্গ করে লেখা গাল্ফ নিউজ-এর একটি রিপোর্টের ছবি শিরোনামের অংশ সহ ভাইরাল হয়েছে । শিরোনামটা পুরোটা পড়া যাচ্ছে না, যেহেতু ছবির কাগজটা ভাঁজ করা । একটি ভুল ক্যাপশন দিয়ে ছবিটি শেয়ার করা হচ্ছে । ক্যাপশনটি হলঃ পাপ্পু এখন আন্তর্জাতিক । এমনকী গাল্ফ নিউজও জানে, ভারতে রাহুল গান্ধীকে পাপ্পু বলা হয়। গাল্ফ নিউজ দুবাই থেকে প্রকাশিত একটি ইংরাজি দৈনিক ।

ভুয়ো খবরের ওয়েবসাইট পোস্টকার্ড নিউজ-এর প্রতিষ্ঠাতা মহেশবিক্রম হেগড়েও পোস্টটি শেয়ার করেছেন ।

তথ্য যাচাই

আলোচ্য ছবিটি গাল্ফ নিউজে ৮ জানুয়ারি প্রকাশিত রাহুল গান্ধীর একটি সাক্ষাতকারের অংশ, যার শিরোনামটি ছিল—কীভাবে তাঁর গায়ে সেঁটে দেওয়া পাপ্পু লেবেলটাই রাহুলকে পুরো পাল্টে দিয়েছে । ১২ জানুয়ারি দুবাই ও আবু ধাবিতে শুরু হতে চলা তাঁর দু দিনের সফরের আগেই সংযুক্ত আরব আমিরশাহির গাল্ফ নিউজ-এর (ভারত) সম্পাদক ববি নাকভি রাহুল গান্ধীর সঙ্গে কথা বলেছিলেন । সেই সাক্ষাতের বিবরণ এখানে পড়ুন।

রাহুলের ব্যঙ্গচিত্র সহ খবরের শিরোনামটি গাল্ফ নিউজের ৯ জানুয়ারি তারিখের প্রথম পৃষ্ঠাতেই ছাপা হয় ।

সংবাদপত্রটির সরকারি টুইটার হ্যান্ডেল ওই প্রথম পাতাটির একটি ছবিও আগাম টুইট করে ।

গোটা সাক্ষাতকারটি সংবাদপত্রের তৃতীয় পৃষ্ঠায় ছাপা হয়েছিল । সেখানে কংগ্রেস সভাপতি অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে তাঁকে যে বিরোধীরা পাপ্পু বলে বিদ্রূপ করতো সে কথাও আলোচনা করেছেন ।সংশ্লিষ্ট অংশের একটি স্ক্রিনশটও নীচে দেওয়া হল—

তবে “পাপ্পু লেবেলটা কীভাবে রাহুলকে পাল্টে দিয়েছে”—এই শিরোনামের খবরটি যখন আমরা খোঁজ করি, তখন অন্য একটি খবরের হেডিংয়ের দিকে আমাদের পাঠিয়ে দেওয়া হল । ফলে গাল্ফ নিউজ সংবাদপত্র ও ওয়েবসাইটে আলাদা-আলাদা হেডিং ব্যবহার হচ্ছে কিনা, স্পষ্ট নয় । ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে আমরা সম্পাদক ববি নাকভির সঙ্গে যোগাযোগ করেছি । তাঁর বক্তব্য পেলেই রিপোর্টটি পরিমার্জনা করা হবে ।

নামে কী আসে যায়?

২০১৪ সালের বিধানসভা নির্বাচনের সময় থেকে “পাপ্পু” লেবেলটা রাহুল গান্ধীর গায়ে সেঁটে গেছে ।তার আগের বছরের কোনও এক সময় বিরোধীরা তাঁর সম্পর্কে এই বিদ্রূপাত্মক বিশেষণটি ব্যবহার করতে শুরু করে এবং লেবেলটি রয়ে যায় । রাহুল নিজেও কখনও তাঁর বক্তৃতায় এটি ব্যবহার করেছেন । ২০১৮ সালের ২০ জুলাই লোকসভায় তাঁর ভাষণের পর উঠে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আলিঙ্গন করার সময়েও বিশেষণটি ব্যবহৃত হয়েছিল । রাহুল সেদিন প্রধানমন্ত্রীকে হিন্দিতে বলেছিলেন—“আপনার আমার ওপর রাগ থাকতে পারে, আমার ওপর ঘৃণা থাকতে পারে, আমি আপনার কাছে পাপ্পু হতে পারি—আরও নানা গালমন্দ আমায় করতে পারেন…, কিন্তু আপনার ওপর আমার এক বিন্দুও রাগ বা বিদ্বেষ নেই”।

Show Full Article
Next Story