ভিডিওতে মোদীর সঙ্গে যে মহিলাকে কথা বলতে দেখা যাচ্ছে তিনি আদৌ শহিদ হওয়া জওয়ানের স্ত্রী নন

যে ভিডিওটি শেয়ার করা হচ্ছে সেটি ছয় বছর আগেকার।ভিডিওটিতে দাবি করা হচ্ছে যে, মোদী মৃত সৈনিকের স্ত্রীকে ফোন করেছেন তাকে সান্ত্বনা জানাবার জন্য।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এক শোকগ্রস্ত মহিলার সঙ্গে সেলফোনে কথা বলছেন-ছয় বছর আগেকার সেই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়াতে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে কিছু মিথ্যে কথা সমেত।ভিডিওর সঙ্গে যে ক্যাপশান দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে: “প্রধানমন্ত্রী মোদী নিহত সৈনিকের স্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলছেন সান্ত্বনা জানাবার জন্য। ভিডিওটি আপনার চোখেও জল আনবে”।

ভাইরাল হওয়া ভিডিও

ভিডিওটি ২.২০মিনিটের। ভিডিওতে মহিলাটি যখন মোদীর কথার উত্তরে কিছু বলছেন, তখন মোদীর গলার আওয়াজ শোনা যাচ্ছে। মোদী বলছেন,“আমি আপনার সঙ্গে দেখা করার জন্য আসতে চাইছিলাম। কিন্তু হেলিকপ্টারটি আপনার শহরের ওপর দিয়ে চক্কর মারছিল। কারণ আবহাওয়া এতোটাই খারাপ ছিল যে, আমরা কিছুতেই নামতে পারলাম না। তবে আমাদের দলের কর্মী আগামী কাল বা তার পরের দিন আপনার সঙ্গে দেখা করতে আসবে। এবং আপনার পরিবারের দায়িত্ব নেবে দল।এই আত্মত্যাগ কখনওই বৃথা যাবে না।আমি বুঝতে পারছি আপনার পরিবারের পক্ষে সময়টা এখন খুবই খারাপ। ঈশ্বর আপনাদের সবাইকে শক্তি দিন”।

তার উত্তরে মহিলা বলছেন: “আপনি আমাকে এবং আমাদের পরিবারকে শুধু আশীর্বাদ করুন।আপনি আমার মেয়ের দায়িত্ব নিন”।

মোদী তার উত্তরে বলছেন: “আমাদের শক্ত হতে হবে।জঙ্গিদের প্রতি সেটাই হবে আমাদের জবাব।”

পরে গুজরাটিতে তাঁরা আরও কিছু কথাবার্তা বলেন, লাইনটি কেটে দেওয়ার আগে।

পুলওয়ামাতে সিআরপিএফ কনভয়ের ওপর আক্রমণের পটভূমিতে ভিডিওটি শেয়ার করা হচ্ছে। যাতে ৪০ জন জওয়ান নিহত হয়েছেন। কিন্তু, ওই একই ভিডিও ২০১৭ সালেও ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হয়েছিল। সেই সময়ে ওই ভিডিও ক্যাপশানে দাবি করা হয়েছিল যে, প্রধানমন্ত্রী ফোন করে নিহতের স্ত্রীকে সান্ত্বনা দিচ্ছেন।

ভিডিওটি ২০১৭ তে ভাইরাল হয়েছিল

ভিডিওটির আর্কাইভ ভার্সান দেখতে এইখানে এবং এইখানে ক্লিক করুন।

যদিও এটা পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে যে ওই ভিডিওটি ২০১৭ তে পোস্ট করা হয়, সেই পুরনো ক্লিপিঙই আবার শেয়ার করা হয়েছে এবং সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায় তা পুনরায় তুলে আনা হয়েছে।

নানা পাতা থেকে ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে

তথ্য যাচাই

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি কিছুটা বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করছে। কারণ মোদী ওই মহিলার সঙ্গে কথা বলার সময় ‘টেররিস্ট’ শব্দটি দুবার উচ্চারণ করেছেন। কিন্তু বুম যখন বিভিন্ন কিওয়ার্ড দিয়ে ইন্টারনেটে অনুসন্ধান চালায়, তখন ওই একই ভিডিও আলাদা হেডলাইন সমেত দেখা যায়।

ওই একই ভিডিও ২ নভেম্বর, ২০১৩ তে নরেন্দ্র মোদীর সরকারি ইউটিউব পাতায় আপলোড করা হয়েছিল।এবং এতে এটাও পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে যে, মোদী আসলে ওই মহিলার সঙ্গে কথা বলেছিলেন যখন তিনি গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, প্রধানমন্ত্রী নন।



ভিডিওটি শেয়ার করা হয়েছিল, যাতে দেখা যাচ্ছে শ্রী নরেন্দ্র মোদী শহিদ মুন্না শ্রীবাস্তবের স্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলছেন

আমরা যখন ইন্টারনেটে ওই ঘটনাটির খোঁজ চালালাম তখন দেখলাম যে, এটি নিয়ে বেশ বিস্তারিত ভাবে অনেক খবর বেরিয়েছে। এমনকি মোদীও এটি নিয়ে টুইট করেছিলেন।



ভিডিওর ওই মহিলা কে?

ভিডিওতে কান্নারত অবস্থায় যে মহিলাকে মোদীর সঙ্গে কথা বলতে দেখা যাচ্ছে, তিনি বিহারের গোপালগঞ্জের বাসিন্দা মুন্না শ্রীবাস্তবের স্ত্রী প্রিয়া শ্রীবাস্তব। পাটনায় ২০১৩’র ২৭ অক্টোবর বিজেপির র্যা লিতে যে ব্লাস্টগুলি হয়েছিল তারই একটিতে নিহত হয়েছিলন ওই মুন্না শ্রীবাস্তব। এটা হয়তো বলা যায় যে, মোদী ২০১৩ তে নির্বাচন প্রচারে গিয়েছিলেন, তারই অংশ হিসেবে ওই হুঙ্কার র্যা লিতে কথাগুলি বলেছিলেন।

ওই ঘটনা নিয়ে আরও খবর পড়তে পারেন এইখানে এবং এইখানে

সেই সময়, ওই ব্লাস্টে যে সব দলীয় কর্মীরা মারা গিয়েছিল বিজেপির সদস্যরা তাদেরই শহিদ হিসেবে উল্লেখ করছিল। তারই ভিডিও একাধিকবার শেয়ার করা হয়েছে এই দাবি নিয়ে যে, মোদী শহিদের স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলছেন।

Claim Review :   Narendra Modi calls Pulwama martyrs widow and offers condolence
Claimed By :  Facebook Pages
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story