Connect with us

২০১৬ সালের সাইক্লোন ভারদাহ’র ভিডিও ফণীর বলে চালালো আইএএনএস

২০১৬ সালের সাইক্লোন ভারদাহ’র ভিডিও ফণীর বলে চালালো আইএএনএস

ভিডিওটি হল সাইক্লোন ভারদাহ’র, যেটি তামিল নাড়ু উপকূলে আঘাত হেনেছিল ২০১৬ সালে

সাইক্লোন ভারদাহ তামিল নাড়ুর উপকূলে আছড়ে পড়ে ২০১৬ সালে। প্রবল ঝড়ে গাড়ি উল্টে যেতে দেখা যাচ্ছে ওই ভিডিওতে। আর সেই ভিডিওই মিথ্যে দাবিসহ শেয়ার করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, সেগুলি সাইক্লোন ফেণীর দৃশ্য, যেটি শুক্রবার আছড়ে পড়ে ওড়িশার উপকূলে।

প্রথম ভিডিওটি তোলা হয় একটি বহুতল বাড়ি থেকে। তাতে নীচে রাখা একটি গাড়িকে প্রবল ঝড়ে উল্টে যেতে দেখা যাচ্ছে। দ্বিতীয় ভিডিওটি ওই প্রথম ভিডিওটিরই পরের দৃশ্য। তাতে আরও একটি গাড়িকে উল্টে গিয়ে প্রথম গাড়িটিকে ধাক্কা মারতে দেখা যাচ্ছে।

টুইটার ব্যবহারকারী রাজেশ সাইনি ৪২ সেকেন্ডের প্রথম ভিডিওটি টুইট করেন।

এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত, ভিডিওটি ৩৫৩ বার রিটুইট করা হয় এবং লাইক পায় ৫৫১।

সংবাদ সরবরাহকারী সংস্থা আইএএনএস দ্বিতীয় ভিডিওটি টুইট করে। তাতে একটি ধূসর রঙের গাড়িকে উল্টে যেতে দেখা যায়। সেটি আবার প্রথম ভিডিওতে দেখা একটি উল্টে যাওয়া লাল গাড়িতে ধাক্কা মারে। টুইটার ব্যবহারকারীরা আইএএনএস-কে জানান যে, দৃশ্যটি সাইক্লোন ভারদাহর, যেটি ২০১৬ সালে তামিল নাড়ুতে আঘাত হানে। তারপরই আইএএনএস ভিডিওটি তুলে নেয়।

আইএএনএস-এর তুলে নেওয়া টুইটের স্ক্রিনশট

আর্কাইভ সংস্করণের জন্য এখানে ক্লিক করুন।

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিও দুটির প্রধান ফ্রেমগুলি আলাদা করে, ইনভিড সফ্টওয়্যারের সাহায্যে সেগুলি যাচাই করে। তাছাড়া রিভার্স ইমেজ সার্চও চালানো হয়।

দেখা যায়, প্রধান ফ্রেমগুলি সবই ২০১৬ সালের ভিডিওর উল্লেখ করছিল। আর সেগুলির ক্যাপশনে বলা ছিল, “সাইক্লোন ভারদাহ-এ গাড়ি উল্টে গেছে, চেন্নাই, তামিল নাড়ু”।

অনেক ইউটিউব ব্যবহারকারী দ্বিতীয় ভিডিওটি আপলোড করেছিলেন। সেটি ইংরেজি দৈনিক ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’ও প্রকাশ করে। তাতে একটি ধূসর রঙের গাড়ি দেখা যাচ্ছে। সঙ্গে ক্যাপশনে বলা হয়, ‘তামিল নাড়ু আর অন্ধ্রপ্রদেশের উপকূল অঞ্চলে প্রচন্ড ঝড় আর বৃষ্টিতে একটি গাড়ি উল্টে গেছে’। ঘটনাটি সম্পর্কে এখানে পড়ুন।

সাইক্লোন ভারদাহ সম্পর্কে টাইমস অফ ইন্ডিয়ার রিপোর্টের স্ক্রিনশট যাতে ওই একই ভিডিও দেখা যাচ্ছে

বুম ভিডিওটি খুঁটিয়ে দেখে। দেখা যায়, সেটি প্রথম ভিডিওটিরই একটি ধারাবাহিক অংশ। প্রথমটিতে একটি লাল গাড়িকে ঝড়ে উল্টে যেতে দেখা গিয়েছিল।

বুম দুটো ভিডিওকেই পাশাপাশি রেখে তুলনা করে। দেখা যায়, দুটি ভিডিওই একই দিনে, একই জায়গা থেকে তোলা। প্রথমটা তোলা হয়েছিল মাটিতে দাঁড়িয়ে, আর পরেরটা বাড়ির এক বা দোতলা থেকে।

বাঁ দিকের ছবিটি হল সেই ভিডিওর স্ক্রিনশট যেটিতে একটা লাল গাড়িকে উল্টে যেতে দেখা যাচ্ছে। আর ডান দিকের ছবিটা হল সেই ভিডিওটির স্ক্রিনশট যাতে একটি ধূসর রঙের গাড়িকে উল্টে যেতে দেখা গেছে।

বুম দুটো ছবিকেই খুব ভাল করে বিশ্লেষণ করে। দেখা যায়, দ্বিতীয় ভিডিওটি তোলা হয় প্রথমটি শেষ হয়ে যাওয়ার পর। প্রথম ভিডিওটিতে লাল গাড়িটিকে উল্টে যেতে দেখা যাচ্ছে। আর দ্বিতীয়টিতে দেখা যাচ্ছে যে, সেটি উল্টে রয়েছে।

বুম আরও দেখে যে, উল্টে যাওয়া গাড়িগুলির পাশে যে গাড়িগুলি দাঁড়িয়ে আছে, দুটো ছবিতেই সেগুলি একই।

এক নম্বর ছবিতে দুটো গাড়িকে পার্কিং-এর জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে। একটির রঙ নীল, আর অন্যটি কমলা রঙের। দু নম্বর ছবিতেও ওই দুটি গাড়িকে একই জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে, যখন ঝড়ের ধাক্কায় ধূসর রঙের গাড়িটি কাত হয়ে উল্টে যেতে বসেছে।

(বুম হাজির এখন বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াতে। উৎকর্ষ মানের যাচাই করা খবরের জন্য, সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের টেলিগ্রাম এবং হোয়াটস্‍অ্যাপ চ্যানেল। আপনি আমাদের ফলো করতে পারেনট্যুইটার এবং ফেসবুকে|)

Claim Review : সাইক্লোন ফেণীর দৃশ্য, যেটি শুক্রবার আছড়ে পড়ে ওড়িশার উপকূলে

Fact Check : FALSE


Continue Reading

A former city correspondent covering crime, Nivedita is a fact checker at BOOM and works to stop the spread of disinformation and misinformation. When not at work, she escapes into second-hand bookstores, looking for magic or a mystery.

Click to comment

Leave a Reply

Your e-mail address will not be published. Required fields are marked *

Most Popular

ফেক নিউজ

To Top