হিন্দু জাগরণ মঞ্চের ওপর লাঠি চার্জের ভিডিও মুসলমানদের ওপর আক্রমণ বলে চড়াচ্ছে

ভিডিওটি আসলে আলিগড়ে হিন্দু জাগরণ মঞ্চের একটি র্যালির। গত জুনে হয়েছিল সেটি।

আলিগড়ে একটি হিন্দু সংগঠনের কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করার জন্য পুলিশের লাঠি চার্জের ভিডিও, মসজিদে প্রার্থনারত মুসলমানদের ওপর পুলিশি নিপীড়নের দৃশ্য বলে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে।

ভিডিওটি ১.০৯ মিনিটের। তাতে পুলিশকে নৃশংস লাঠি চার্জ করতে, আর কিছু লোককে পালাতে দেখা যাচ্ছে। এই প্রতিবেদন লেখার সময়, ভিডিওটি ৯,০০০’রও বেশি বার দেখা হয়েছিল।

ভিডিওটির শেষের ভাগে দেখা যাচ্ছে লোকজন একটা পাঁচিল টপকে পালাচ্ছে আর পুলিশ তাদের ধাওয়া করছে।

ভিডিওটি নীচে দেওয়া হল। তার আরকাইভ সংস্করণ দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

সতর্কবাণী: হিংসার দৃশ্য আছে।

বুম এও লক্ষ করেছে যে কয়েকটি পাকিস্তানি হ্যান্ডেল ভিডিওটিকে রিটুইট করেছে আর সেই সঙ্গে ভারতে মুসলমানদের নিরাপত্তা সম্পর্কে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।







তথ্য যাচাই

ভাল করে লক্ষ করলেই বোঝা যায় ভিডিওটি কোনও মসজিদের নয়। আক্রান্তদের কারওর মাথায় টুপি ছিল না। তাঁরা কেউই নামাজ পড়ার সময় যে জামাকাপড় পরা হয়, তা পরেননি।

এরপর বুম ভিডিওটিকে ফ্রেমে-ফ্রেমে ভেঙ্গে শটগুলির রিভার্স ইমেজ সার্চ করে। দেখা যায়, ভিডিওটি গত বছর জুন মাস থেকেই অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে।

একটি ইউটিউব ভিডিওর সন্ধান দেয় স্থানীয় সংবাদ চ্যানেল ‘চ্যানেল-৯’। তাতে হিন্দু জাগরণ মঞ্চের কর্তাব্যক্তিদের ওপর আলিগড় এসএসপির কার্যালয়ের গেটের সামনে লাঠি চার্জের সংবাদ দেওয়া হয়। যার সঙ্গে চালানো হয় নির্বাক ভিডিও।



আমরা নিউজ রিপোর্ট ঘেঁটে দেখি যে, ঘটনাটি গত বছর জুন মাসে আলিগড়ে ঘটেছিল। হিন্দু জাগরণ মঞ্চের কর্মীরা আলিগড়ের স্পেশাল সুপারিনটেন্ডেন্ট অফ পুলিশের (এসএসপি) অফিসের গেট বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখালে, পুলিশ তাদের ওপর লাঠি চার্জ করে। মার্চ ২০১৮’য় খুনের চেষ্টায় অভিযুক্ত এক ব্যক্তির গ্রেপ্তার দাবি করছিল হিন্দু জাগরণ মঞ্চ। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

Claim Review :   মসজিদে প্রার্থনারত মুসলমানদের ওপর পুলিশের অত্যাচার
Claimed By :  টুইটার
Fact Check :  মিথ্যা
Show Full Article
Next Story