পুলিশি ঔদাসীন্যের প্রতিবাদে গায়ে আগুন লাগানো দম্পতির ভিডিও শেয়ার হল ভুয়ো সাম্প্রদায়িক দাবির সঙ্গে

বুম অনুসন্ধান করে দেখেছে যে ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের মথুরা জেলার। সেখানে এক মধ্যবয়স্ক দম্পতি তাদের হেনস্থাকারীর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করতে ব্যর্থ হয়ে থানার চৌহদ্দিতেই গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী হন।

পুলিশের ঔদাসীন্যের প্রতিবাদে থানার চৌহদ্দিতেই গায়ে আগুন দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের এক দম্পতি। সেই মর্মান্তিক ঘটনার ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরছে। দাবি করা হচ্ছে, জমি নিয়ে বিবাদের ফলে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের (আরএসএস) কর্মীরা এই খ্রিস্টান দম্পতিকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মেরেছে।

৪৭ সেকেন্ডের এই ভিডিয়োটিতে দেখা যায় যে দম্পতির গায়ে আগুন জ্বলছে, আশেপাশের লোকেরা সেই আগুন নেভাতে চেষ্টা করছেন। দম্পতির কিশোর ছেলের কান্না শোনা যাচ্ছে। সে-ই এই মর্মান্তিক ঘটনাটির ভিডিয়ো রেকর্ড করে।

অভিনেত্রী রানি মুখার্জীর একটি ফ্যান অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিয়োটি টুইট করা হয়েছিল। সঙ্গে ক্যাপশনে লেখা হয়েছিল, “উত্তরপ্রদেশ, ভারত: আরএসএস-এর হিন্দু সন্ত্রাসসবাদীরা এক খ্রিস্টান দম্পতিকে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারল। আরএসএস তাঁদের জমি দখল করতে চাওয়ায় তাঁরা বাধা দিয়েছিলেন। তাঁদের ছেলেটি কাঁদছে.... ভয়াবহ ঘটনা! ভারতে কী ঘটছে, গোটা দুনিয়া তার থেকে চোখ ফিরিয়ে রেখেছে। #extremism #saveminorities।”

যেহেতু ভিডিয়োটি এক মর্মান্তিক ঘটনার, তাই বুম সেই ভিডিয়োটি এখানে না দেওয়ার সিদ্ধন্ত নিয়েছে।

প্রতিবেদনটি লেখার সময় ভিডিয়োটি ৯৮,০০০ বারেরও বেশি দেখা হয়েছে। এই অ্যাকাউন্ট থেকে আগেও ভুয়ো তথ্য শেয়ার করা হয়েছিল।

মোটামুটি একই বক্তব্যের সঙ্গে এই ভিডিয়োটি বিভিন্ন পাকিস্তানি হ্যান্ডল থেকেও টুইট করা হয়েছে।

ঘটনাটি এই বছরের অগস্ট মাসের। এক মধ্যবয়স্ক দম্পতি— যোগেন্দ্র সিংহ (৪০) ও তাঁর স্ত্রী চন্দ্রাবতী— মথুরা জেলার সুরির থানায় পৌঁছে নিজেদের গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। তাঁদের প্রতিবেশি তথা স্থানীয় গুন্ডা সত্যপাল সিংহ তাঁদের হেনস্থা করছিল, কিন্তু থানায় অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও পুলিশ তার বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

বুম সুরির থানায় যোগাযোগ করলে সেখান থেকে জানানো হয়, এই ঘটনার পিছনে কোনও সাম্প্রদায়িক কারণ নেই। থানা থেকে জানানো হয় যে এই দম্পতি রাজপুত ছিলেন, এবং সত্যপাল সিংহ তাঁদের বারে বারে হেনস্থা করায় খুবই বিচলিত ছিলেন।

দম্পতি গায়ে আগুন দেওয়ায় আশেপাশের মানুষ স্তম্ভিত হয়ে যান। তাঁদের কিশোর ছেলে কাঁদতে আরম্ভ করে। টাইমস অব ইন্ডিয়া-র সংবাদ প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, “সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ৫৫ সেকেন্ডের ভিডিয়ো বিপুল ভাবে শেয়ার করা হয়েছে। ভিডিয়োটি সম্ভবত দম্পতির ১৪ বছর বয়সী ছেলের তোলা। তার কান্নার আওয়াজ পাওয়া যাচ্ছে। ভিডিয়োটিতে দেখা যাচ্ছে যে এক জন নারী ও এক পুরুষ নিজেদের গায়ে আগুন দিয়েছেন, এবং এক পুলিশকর্মী ও অন্য এক জন একটি টেবিলক্লথ ও একটি কম্বল দিয়ে সেই আগুন নেভানোর চেষ্টা করছে।”

টাইমস অব ইন্ডিয়া এই দম্পতির ছেলেকে উদ্ধৃত করে জানায় যে সত্যপাল সিংহ এই দম্পতিকে জনসমক্ষেই অপমান করছিল, এবং মহিলার সম্মানহানিও করেছিল। কিন্তু তাঁরা থানার দ্বারস্থ হলে পুলিশ এফআইআর গ্রহণ করতে অস্বীকার করে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, এই ঘটনার পরে মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়, এবং দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে তিন পুলিশকর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়।

Claim :   আরএসআস গুন্ডারা খ্রীষ্টান দম্পতির গায়ে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে
Claimed By :  TWITTER USERS AND FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.