আরএসএস মহিলার ইসলামের প্রতি ঘৃণাসূচক বক্তৃতা বাংলাদেশে ভাইরাল কেন?

৩ মিনিট ৫৪ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে গেরুয়া শাড়ি পরা মধ্যবয়স্ক এক মহিলাকে ইসলামের প্রার্থনা পদ্ধতি নামাজ আদা করার সঙ্গে হিন্দু ধর্মের পূজা-পদ্ধতির তুলনা করতে দেখা যাচ্ছে

একটি আলোচনাচক্রের আরএসএস মহিলার একটি বক্তৃতার ভিডিও বাংলাদেশের ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে একটি সম্পূর্ণ ভিন্ন বিবরণী সহ । ভিডিওটিতে আরএসএস সমর্থক ওই মহিলা ইসলামের প্রার্থনা পদ্ধতি নিয়ে নিন্দামূলক বিশ্লেষণ করছিলেন, যেটি এডিট করে বাংলাদেশের ইসলাম অনুগামীদের কাছে পেশ করা হয়েছে । ফেবু তামাশা নামে একটি গ্রুপে--যার অনুগামীদের সংখ্যা সাড়ে ১২ লাখ এবং যাদের অধিকাংশই বাংলাদেশের বাসিন্দা—ভিডিওটি শেয়ার করেছে এমনভাবে, যাতে মনে হয়, মহিলাটি আদতে ইসলাম-অনুরাগী ।

এখানে পোস্টটি দেখুন। এবং আর্কাইভ এখানে

৩ মিনিট ৫৪ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে গেরুয়া শাড়ি পরা মধ্যবয়স্ক এক মহিলাকে ইসলামের প্রার্থনা পদ্ধতি নামাজ আদা করার সঙ্গে হিন্দু ধর্মের পূজা-পদ্ধতির তুলনা করতে দেখা যাচ্ছে-- “ওদের আজান আমাদের হিন্দু প্রার্থনার মতো নয় । ভাববেন না যে আমরা যেমন প্রার্থনার সময় মন্দিরে ঘন্টা বাজাই, ওরা সেভাবে প্রার্থনা করে । ওরা দিনে পাঁচবার নামাজ পড়ে । ওদের কাছে আল্লা এবং মহম্মদ ছাড়া আর কেউ নেই । নামাজ একটা আলাদা ব্যাপার । ওরা সামনে ঝুঁকে নিচু হয়ে প্রার্থনা করে ।"

ভিডিওটির ৩ মিনিট ১০ সেকেন্ড থেকে , মহিলাটির গলার স্বর অনেকটা পাল্টে যাচ্ছে এবং ইসলামের প্রতি আগের বিরূপতাও তত থাকছে না । তাঁকে বলতে শোনা যাচ্ছে—“আমাদের গরু নিয়ে ওদের কোনও সমস্যা নেই । আমাদের মা-বোনেদের ব্যাপারেও ওদের কোনও সমস্যা নেই ।” এরপর তিনি রমজান মাসে মুসলিমরা কেন উপবাস করে, সেই প্রসঙ্গ আলোচনা করছেন । “রোজা ঠিক নবরাত্রির মতো নয় । এটা ওরা পালন করে নিজেদের শরীরকে শক্তিশালী করতে ।” বক্তৃতার ফাঁকে-ফাঁকে তাঁকে মন্ত্রের মতো উচ্চারণ করতে শোনা যাচ্ছে—“লা ইল্লাহা ইল্লাল্লাহা…” ।

“তাঁদের কাছে কেবল একজনই আল্লা আছেন । গত ১৪০০ বছরে তাঁরা আর কাউকে সে আসনে বসাননি । তাঁদের একমাত্র লক্ষ হল, এই পৃথিবীতে যাতে আল্লার বিধান অনুসৃত হয় । আমরা ধর্মের কলঙ্ক । আমরা জানিই না আল্লা কী? আমরা শুধু আল্লা ও ঈশ্বরকে একই আসনে বসিয়েছি ।”

সাজানো ভিডিওটিতে আল্লার মহিমাকীর্তনকারী আজানের উচ্চারণ এমন-এমন জায়গায় গুঁজে দেওয়া হয়েছে, যাতে মনে হয়, মহিলাটি আল্লার প্রশংসাই করছে । ক্যাপশনেও লেখা হয়েছে—“আমাদের হিন্দু ভগিনীর কথা শুনলে আপনারা সবাই আশ্চর্য হবেন ।”

তথ্য যাচাই করে দেখা গেছে, মূল ভিডিওটি ২০১৮ সালের এবং তা ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়েছিল সেই সময়ে। ইউ-টিউবে আপলোড করা মূল ভিডিওটি ৯ মিনিট ৫ সেকেন্ডের, যাতে মহিলাটি বারংবার ইসলামকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে এবং তার অনুগামীদের নিন্দা করেছে । ভিডিওটি অনেক বার আলোচিত হয়েছে এবং ইসলাম-বিদ্বেষ ছড়ানোর জন্য ধিক্কৃত হয়েছে । অনেক ধর্মীয় নেতা ও তাঁদের অনুগামীরা সোশাল মিডিয়ায় এটি নিয়ে আলোচনা করেছেন ।

এখানে ইউটিউবে ভাইরাল ভিডিওটি দেখুন



বুম এই মহিলাটির পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি । মূল প্রতিবেদনটি এখানে পড়ুন।


Claim :   An RSS woman is praising Islam
Claimed By :  Febu Tamasha
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.