তৃণমূল প্রার্থীর রাজনৈতিক প্রচারের পুরনো অশালীন নাচের ভিডিও ফের ভাইরাল

বুম ভিডিওটি বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে খুঁজে দেখেছে ভিডিওটি পুরনো। সাম্প্রতিক সময়ে মমতালবালা ঠাকুরের নির্বাচনী প্রচার নয়।

একাধিক ফেসবুক পেজ একটি পুরনো ভিডিও পোস্ট করে, দাবি করেছে, যে এটি সম্প্রতি তৃনমূল কংগ্রেসের রাজনৈতিক প্রচারের নমুনা। ওই ভিডিওটির দৃশ্যে একটি ছেলে ও মেয়েকে অশালীন ভঙ্গিমায় নাচতে দেখা যায়। মঞ্চের পিছনের ফ্লেক্সে এই চিহ্নে ভোট দিন পোস্টারে মমতাবালা ঠাকুরের নাম দেখা য়ায। ফেসবুক পোস্টটিতে ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে। “এই ভিডিওটি পশ্চিমবঙ্গ থেকে পেলাম। এটি হল ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী মমতাবালা ঠাকুরের প্রচারের ভিডিও।” পোস্টটি এখানে আর্কাইভ করা আছে

অন্য আরেকটি ফেসবুক পেজ, মমতা বালা ঠাকুরকে কটাক্ষ করে, ভিডিওটি পোস্ট করে। তার সাথে একটি বার্তা - হরিচাঁদ ঠাকুর সনাতনধর্মের একজন অনন্য মহাপুরুষ , তিনি বাংলার পিছিয়ে পড়া নমঃশুদ্র সম্প্রদায় ও দলিত সম্প্রদায়ের মধ্য শিক্ষা, রাজনীতি এবং ধর্মীয় মূল্যবোধ সৃষ্টি করেন।হরিনামে মেতে তুলেন সেই সময়ের জনগনকে, তার প্রচারিত মতাদর্শ পরবর্তীতে মতুয়া মত নামে পরিচিততা পায় এবং গঠিত হয় সর্বভারতীয় মতুয়া মহাসংঘ। যার প্রধান এখন মমতা বালা ঠাকুর। তিনি ভারতের পশ্চিম বঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেস এর রাজনীতির সাথে যুক্ত আছেন। এবারের লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থীও বটে। তার নির্বাচনী প্রচারের দৃশ্য একবার দেখুন। একজন ধর্মীয় সংগঠনের প্রধানের নির্বাচনী প্রচার যদি এমন হয়, ভারতবর্ষ ধ্বংস হতে আর কতদিন লাগবে তা আপনারাই ভেবে বলুন।

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিওটি ইউটিউবে 'টিএমসি, অবসিন ডান্স' প্রভৃতি শব্দে কিওয়ার্ড সার্চ করেছে। ভিডিওটি ১০ জানুয়ারি ২০১৭ একটি ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হয় ১৫:৫০:৪৮ প্রমান সময়ে।

ওই একই ভিডিওটি ২৫ জানুয়ারি ২০১৮ প্রমান সময়ে ০৯:৫৯:৪০ তে একটি ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হয়।

বুম থেকে এই ভিডিওটির সত্যতা সম্পর্কে মমতাবালা ঠাকুরের কাছে জানতে চাওয়া হলে। তিনি বলেন- “এগুলি কিছু ব্যক্তির অপপ্রচার।”

উল্লেখ্য, মমতাবালা ঠাকুর বণগাঁ আসন থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। ২০১৫ সালে উপনির্বাচনে বণগাঁ কেন্দ্রে জয়ী হয়ে তিনি লোকসভার সাংসদ হন।

Claim Review :   অশালীন ভিডিও সম্প্রতি তৃনমূল কংগ্রেসের রাজনৈতিক প্রচারের নমুনা
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  MISLEADING
Show Full Article
Next Story