ওদের প্রতিটি ভুয়ো উদ্ধৃতি প্রমাণ করে দিচ্ছে, আমি কতটা সঠিক এবং তথ্যভিত্তিক: জাভেদ আখতার

দিল্লির একটি মন্দির অপবিত্র করা নিয়ে একটি ভুয়ো উস্কানিমূলক মন্তব্যের ব্যাপারে বুম জাভেদ আখতারের সঙ্গে কথা বললে তিনি এটাকে অর্থহীন বলেন।

দিল্লিতে সম্প্রতি একটি মন্দির লন্ডভন্ড হওয়ার বিষযে বরিষ্ঠ গীতিকার ও কবি জাভেদ আখতারের নামে হিন্দিতে একটি উদ্ধৃতি ছড়ানো হয়েছে, যেটি আদৌ তিনি বলেননি।

কবি আকবর ইলাহাবাদির গজলের একটি লাইন দিয়ে তৈরি ওই উস্কানিমূলক উদ্ধৃতিটি জাভেদ আখতারের নামে চালানো হয়েছে, যদিও সে ধরনের কিছুই তিনি বলেননি।

দিল্লির হাউজ কাজি এলাকায একটি মন্দির মুসলিমরা অপবিত্র করেছিল বলে অভিযোগ ওঠে। আর তার পরই জাভেদ আখতারের একটা ছবি দিযে তাঁর নামে একটি ভুয়ো উদ্ধৃতি চালিয়ে দেওয়া হয়। সামান্য গাড়ি পার্ক করা নিয়ে এলাকার এক হিন্দু ও এক মুসলিমের মধ্যে বচসা ক্রমে সাম্প্রদায়িক বৈরিতার রূপ নেয়।

এ ব্যাপারে আরও জানতে পড়ুন এই প্রতিবেদন: কী ভাবে পার্কিং নিয়ে ঝগড়া হাউস কাজিতে হিন্দু মুসলিম সাম্প্রদায়িক উত্তেজনাকে তুঙ্গে নিয়ে যায়।

জাভেদ আখতারের নামে চালানো ভুয়ো উদ্ধৃতিটি শেয়ার করে, ‘উই সাপোর্ট নরেন্দ্র মোদী’ নামের একটি পেজ এবং এই প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত ২৬০ জন ইতিমধ্যেই সেটি শেয়ার করেছে।

ভুয়ো উদ্ধৃতিটি হল, “এ নিয়ে এত হৈ-চৈ করার কী আছে? কয়েকটা প্রাণহীন পুতুলই তো ধ্বংস হয়েছে। কারও প্রাণ যায়নি, কাউকে পিটিয়ে বা কুপিয়েও মারা হয়নি।”

ভাইরাল হওয়া পোস্টটি আর্কাইভ করা আছে এখানে

বুম এ বিষয়ে আখতারের সঙ্গে কথা বললে তিনি এ ধরনের কোনও উদ্ধৃতি উচ্চারণের কথা সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন। সেই সঙ্গে ইলাহাবাদির মতো বিখ্যাত একজন উর্দু কবির একটি পঙক্তি বিকৃত করে তাঁর ঘাড়ে যে ভাবে চালানো হয়েছে, তাতে রীতিমত কৌতুকও বোধ করেন।

স্ত্রী শাবানা আজমির সঙ্গে একাধিক বার এ ধরনের ভুয়ো উদ্ধৃতির শিকার হওয়া জাভেদ আখতার বলেন—“এটা খুবই স্পষ্ট যে আমি এ ধরনের কোনও কথা বলতে পারি না। নিরপেক্ষতা এবং তথ্যভিত্তিক হওয়ার ব্যাপারে লোকেরা প্রায়শই অস্বস্তি বোধ করছে। আমার নামে চালানো প্রতিটি ভুয়ো উদ্ধৃতি প্রচার করে ওরা প্রমাণ করছে যে, আমি কতটা সঠিক ও তথ্যভিত্তিক। আবার একই সঙ্গে এটাও প্রমাণ হচ্ছে যে আমি তাদের মতোই পক্ষপাতদুষ্ট।”

বিরক্ত, বীতশ্রদ্ধ জাভেদ বলেন— ‘আমি এক-এক সময় খুব ক্ষুব্ধ হই, আবার প্রায়শ বেশ কৌতুক বোধ করি। ওরা আমাকে এতটাই ঘৃণা করে যে, আমাকে হেয় করার জন্যও আমার সম্পর্কে কোনও সঠিক তথ্য দিতে চেষ্টা করে না, সবসময় মিথ্যাই আরোপ করে চলে।’

বুম তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করার পর এই একই বক্তব্য জাভেদ তাঁর টুইটারেও লেখেন—



‘হাঙ্গামা হ্যায় কিঁউ বরপা’ লাইনটি জাভেদ আখতারের লেখা নয়

‘হাঙ্গামা হ্যায় কিঁউ বরপা’, এই জনপ্রিয় গজল সঙ্গীতটি বিখ্যাত উর্দু কবি আকবর ইলাহাবাদির রচনা। পাকিস্তানি চলচ্চিত্র 'আপ কা খাদিম'-এ গজলটি ব্যবহৃত হয় এবং এটি গেয়েছিলেন গজল সম্রাট মেহেদি হাসান।

Claim Review :   জাভেদ আখতার বলেছেন, “এ নিয়ে এত হৈ-চৈ করার কী আছে? কয়েকটা প্রাণহীন পুতুলই তো ধ্বংস হয়েছে। কারও প্রাণ যায়নি, কাউকে পিটিয়ে বা কুপিয়েও মারা হয়নি।”
Claimed By :  FACEBOOK POSTS
Fact Check :  FALSE
Show Full Article
Next Story