গুজরাতের আমদাবাদে রাস্তায় ধসের ছবি ছড়াল উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর বলে

বুম দেখে ভাইরাল ছবিটি গুজরাতের আমদাবাদের, ২০১৭ সালের জুলাই মাস থেকে ছবিটি অনলাইনে রয়েছে। এর সঙ্গে বারাণসীর কোনও যোগ নেই।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) সংসদীয় কেন্দ্র উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে (Benaras) রাস্তার বেহাল দশা দাবি করে গুজরাতের আমদাবাদের রাস্তায় ধস (sinkhole) নামার পুরনো সম্পর্কহীন ছবি শেয়ার করা হচ্ছে সোশাল মিডিয়ায়।

ভারী বর্ষণের কারণে সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর নানা অংশে জল জমার খবর প্রকাশিত হয় গণমাধ্যমে। নেটিজেনদের অনেকেই জল জমার কারণে হওয়া দুর্ভোগের নানা ছবি ও ভিডিও পোস্ট করেছেন সোশল মিডিয়ায়। বারাণসীর অন্যতম বিখ্যাত পর্যটন কেন্দ্র দশাশ্বমেধ ঘাটের কাছেও বৃষ্টির কারণে জল জমে যায়।

ভাইরাল হওয়া ছবিটিতে দেখা যায় পিচ রাস্তায় ধস নামার ফলে গর্ত হয়ে বসে গেছে রাস্তার মাঝের অংশ। বিপজ্জনক স্থানটি চিহ্নিত করে ঘিরে দেওয়া হয়েছে। ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "প্রধানমন্ত্রীর সংসদীয় আসন বেনারসের ভূগভস্থ স্টেডিয়ামের দৃশ্যটা দেখুন। বিকাশ পাগল হয়ে গেছে"।

পোস্টটি দেখতে ক্লিক করুন এখানে। পোস্টটির আর্কাইভ করা আছে এখানে


আরও পড়ুন: নিরাপত্তা পরিষদে প্রথম সভাপতিত্বে ভারত, বিভ্রান্তিকর দাবি বঙ্গ বিজেপির

তথ্য যাচাই

বুম যাচাই করে দেখে ভাইরাল ছবিটি গুজরাতের আমদাবাদের, ২০১৭ সালের জুলাই মাস থেকে ছবিটি অনলাইনে রয়েছে।

বুম রিভার্স সার্চ করে ওই ছবি সহ ২০১৭ সালের বেশ কয়েকটি টুইট খুঁজে পায়। গুজরাতের প্রাক্তন আইপিএস আধিকারিক সঞ্জীব ভাট স্পষ্ট ভাইরাল ছবিটির সাথে বেহাল রাস্তার আরও কয়েকটি ছবি ২০১৭ সালের জুলাই ২৯ টুইট করেন।

টুইটে তিনি বেহাল রাস্তার ছবিগুলিকে গুজরাতের আমদাবাদ শহরের বলে উল্লেখ করেন। ছবিগুলি পোস্ট করে তিনি ক্যাপশনে লেখেন, "আজ সকালে আমদাবাদ স্মার্ট শহরের ছবি"।

এরপর আমরা সঞ্জীব ভাটের টুইটে থাকা ভাইরাল ছবিটির স্পষ্ট সংস্করণকে খুঁটিয়ে লক্ষ্য করে রাস্তায় থাকা দুটি ব্যানারে ইংরেজিতে 'AMC' ও তার উপরে গুজরাতি ভাষায় 'বিপদ' ("ભય") লেখাটি দেখতে পাই।

ভাইরাল ছবির স্পষ্ট সংস্করণের জুম করে দেখতে পাওয়া অংশ

'এএমসি' আসলে আহমেদাবাদ মিউনিসিপাল কর্পোরেশন। ২৮ জুলাই ২০২১ প্রকাশিত টিভি ৯ গুজরাতির এক রিপোর্টে একই "ભય AMC" লেখা ফলক খুঁজে পাই। ভিডিওটির ৩ মিনিট ১৩ সেকেন্ড অংশে 'এএমসি' ও তার উপরে গুজরাতি ভাষায় 'বিপদ' লেখা দেখতে পাওয়া যাবে।

ভিডিও রিপোর্টের ৩ মিনিট ১৩ সেকেন্ড অংশে দেখতে পাওয়া দৃশ্য

বুম নিশ্চিত হয়েছে ছবিটি উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর নয়। তবে ছবিটি গুজরাতের আমদাবাদের কোন রাস্তায় কবে ঠিক তোলা হয়েছিল তা বুমের পক্ষে স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন: নীরজ চোপড়ার স্তুতি, পাক খিলাড়ির ভুয়ো টুইটে ভরসা আনন্দবাজার, এই সময়ের

Claim Review :   উত্তরপ্রদেশের বারাণসীতে রাস্তার মাঝে গর্ত
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story