ওড়িশার পুরনো ভিডিও ছড়াল বীরভূমের বগটুইয়ে হিংসার দৃশ্য বলে

বুম যাচাই করে দেখে ভাইরাল ভিডিওটি ২০২০ সালে ওড়িশায় একটি বাসের যাত্রীদের বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণহানির মর্মান্তিক ঘটনা।

ওড়িশায় (Odisha) একটি বাসের যাত্রীদের বিদ্যুৎপৃস্পৃষ্ট (Electrocuted) হয়ে মৃত্যু হওয়ার একটি পুরনো ভিডিও (Old Video) পশ্চিমবঙ্গের বগটুইয়ে (Bagtui) কয়েকজনকে পুড়িয়ে (charred) মারার সাম্প্রতিক হিংসার ছবি বলে দাবি করে শেয়ার করা হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলের বগটুইয়ে (Bagtui) ২১ মার্চ ভাদু শেখ (Bhadu Sekh) নামে এক পঞ্চায়েত উপপ্রধান দুষ্কৃতীদের হাতে খুন হন বলে অভিযোগ করা হয়। এই হত্যার প্রতিশোধ হিসাবে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই একদল লোক কমপক্ষে আটজনকে খুন করে এবং ১০টি বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্ট এই ঘটনার সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

টুইটারে শেয়ার হওয়া ৪৪ সেকেন্ডের ওই ,মর্মান্তিক ভিডিওতে একাধিক মহিলাসহ মৃতদের পুড়ে যাওয়া দেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে। কিছু লোক তাদের ঘিরে দাঁড়িয়ে রয়েছেন আর পিছনে একটি বাস দেখতে পাওয়া যাচ্ছে।

ভিডিওটি টুইটারে শেয়ার করা হয়েছে এবং সঙ্গে হিন্দিতে লেখা ক্যাপশন দেওয়া হয়েছে। ওই ক্যাপশনের অনুবাদ, "আজ পশ্চিমবঙ্গে আগুন লেগেছে, কাল উত্তর-পূর্বে লাগবে। কিন্তু ওসব জায়গায় আমাদের সরকার নেই, তাই আমাদের কিছু যায় আসে না।"

সতর্কতা- ভিডিওটি অস্বস্তিকর।


(হিন্দিতে মূল লেখা: आज प. बंगाल जल रहा है कल उत्तर पूर्व जलेगा और परसों दिल्ली... लेकिन हमें क्या हम तो वहां हमारी सरकार नहीं है कहकर पल्ला झाड़ लेंगे!)

টুইট দু'টির আর্কাইভ দেখতে পাবেন এখানে এবং এখানে

যাচাই করার জন্য ভিডিওটি বুমের হেল্পলাইনেও পাঠানো হয়েছিল।


আরও পড়ুন: লুধিয়ানায় এক শিখের উপর আক্রমণের ভিডিও পাকিস্তানের ঘটনা বলে ছড়াল

তথ্য যাচাই

বুম ভিডিওটির মূল ফ্রেমগুলি ইয়ান্ডেক্সে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে এবং দেখতে পায় যে, এশিয়ান টাইমস ভিডিওটি ২০২০ সালের ৯ফেব্রুয়ারি ইউটিউবে আপলোড করেছিল এবং ভিডিওটির শিরোনাম দিয়েছিল, "হাই টেনশন তারের সংস্পর্শে আসার ফলে বাসে আগুন ধরে যায়।" ভিডিওটি যে ওড়িশার, তাও সেখানে উল্লেখ করা হয়েছিল।


কিওয়ার্ড সার্চ করে আমরা কনক নিউজ এবং কলিঙ্গ টিভির মতো বিভিন্ন ওড়িয়া গণমাধ্যমে এই ঘটনার উপর প্রকাশিত অনেকগুলি প্রতিবেদন দেখতে পাই।

২০২০ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি হিন্দুস্তান টাইমসে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুসারে ওড়িশার গঞ্জাম জেলায় যাত্রীবোঝাই একটি বাস ১১কেভির বিদ্যুৎবাহী তারের সংস্পর্শে আসায় ওই বাসে আগুন ধরে যায়, এবং তিনটি শিশু ও তিনজন মহিলাসহ দশজনের মৃত্যু হয়। ওই ঘটনায় ত্রিশজন আহত হন। মুম্বই মিররে প্রকাশিত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয় যে,ওই বাসের যাত্রীরা বিয়ের কথাবার্তা বলতে যাচ্ছিলেন।

বুম ভাইরাল হওয়া ভিডিওর বাস এবং কনক নিউজ এবং কলিঙ্গ টিভিতে প্রকাশিত প্রতিবেদনে যে বাসটি দেখা গেছে তাদের তুলনা করে এবং দেখতে পায় দু'টি আসলে একই বাসের ছবি।


Claim :   ভিডিও দেখায় পশ্চিমবঙ্গে মহিলা সহ লোকজনকে পুড়িয়ে মারার ঘটনা
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.