ভুয়ো খবর: হনুমানজির স্টিকার সাঁটা, কেরলে অ্যাম্বুল্যান্সকে না দম্পতির

ইনশর্টস-এর মুখপাত্র বুমকে বলেন স্ক্রিনশটটি ভুয়ো, তাঁদের প্ল্যাটফর্মে এই রকম কোনও খবর প্রকাশ করা হয়নি।

একটি স্ক্রিনশটে দাবি করা হয়েছে যে, সঙ্কটজনক অবস্থায় থাকা সত্ত্বেও, এক খ্রিস্টান (Christian couple) দম্পতি একটি অ্যাম্বুল্যান্স প্রত্যাখ্যান করেন, কারণ সেটিতে হিন্দু দেবতা হনুমানজির (Hanuman) স্টিকার লাগানো ছিল। কিন্তু স্ক্রিনশটটি ভুয়ো। ভাইরাল স্ক্রিনশটটিতে দেখানোর চেষ্টা হয়েছে যে, সেটি 'ইনশর্টস' (InShorts) নামের এক সংবাদ সংকলক অ্যাপে প্রকাশিত একটি লেখা। এবং সেটি সম্পর্কে 'হিন্দুস্তান টাইমস'-এ (Hindustan Times) খবরও করা হয়। ইনশর্টস-এর মুখপাত্র বুমকে বলেন যে, স্ক্রিনশটটি ভুয়ো। তিনি জানান, ওই অ্যাপে ওই রকম কোনও লেখাই প্রকাশ করা হয়নি।

স্ক্রিনশটটিতে ওই খবরটির জন্য হিন্দুস্তান টাইমসকে কৃতিত্ব দেওয়া হয়েছে। এবং শিরোনামে লেখা হয়েছে, "কেরলের দম্পতি প্রত্যাখ্যান করলেন হনুমানজির স্টিকার লাগানো অ্যাম্বুলেন্স, মারা গেলেন"। সাম্প্রদায়িক রঙ লাগিয়ে স্ক্রিনশটটিতে বলা হয়েছে, এম স্ট্যালিন ও তাঁর স্ত্রী জেয়েসি অ্যাম্বুল্যান্সটি নিতে অস্বীকার করেন।

টুইট-করা স্ক্রিনশটটির ক্যাপশনে বলা হয়, "আপনাদের পুজ্যকে তাঁরা এতটাই ঘৃণা করেন..."

দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন; আর্কাইভের জন্য এখানে

ফেসবুকে ভাইরাল

একই ক্যাপশন দিয়ে ফেসবুকে সার্চ করলে দেখা যায়, স্ক্রিনশটটি সেখানেও ওই মিথ্যে দাবি সমেত শেয়ার করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন : পুরনো সম্পর্কহীন ঘটনার দৃশ্য ছড়াল বাংলায় ভোট পরবর্তী হিংসা বলে

তথ্য যাচাই

বুম দেখে স্ক্রিনশটটি ভুয়ো। তাতে যা দাবি করা হয়েছে, সে রকম কোনও ঘটনাই ঘটেনি।

আমরা ইনশর্টস-এর মুখপাত্রর সঙ্গে যোগাযোগ করি। উনি বলেন, স্ক্রিনশটটি ভুয়ো এবং তাঁদের প্ল্যাটফর্মে ওই খবর প্রকাশ করা হয়নি। "এটি ভুয়ো। স্ক্রিনশটটিতে যা বলা হয়েছে, সে রকম কোনও লেখা আমরা প্রকাশ করিনি। ছবিটা জোড়াতালি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে," উনি বলেন।

আমারা কি-ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করি, কিন্তু এ বিষয়ে হিন্দুস্তান টাইমস-এ বা অন্য কোথাও প্রকাশিত কোনও খবর দেখতে পাওয়া যায় না।

হিন্দুস্তান টাইমস-এ আমরা অন্য একটি খবর দেখতে পাই, যাতে ওই হনুমানজির স্টিকার লাগানো অ্যাম্বুল্যান্সের ছবি ছিল। সেই খবরে কেরলের দম্পতির অ্যাম্বুল্যান্স প্রত্যাখ্যান করার ঘটনার কোনও উল্লেখ ছিল না।

ছবির ক্যাপশনে বলা হয়, সেটি কর্ণাটকের বেঙ্গালুরুতে তোলা । কিন্তু ভুয়ো স্ক্রিনশটটিতে একই ছবি ব্যবহার করে মিথ্যে দাবি করা হয়েছে যে, ঘটনাটি কেরলে ঘটে।

ছবিটির ক্যাপশনে বলা হয়, "৮ মে ২০২১-এ পরিবারের সদস্য ও শববাহকরা কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক ব্যক্তির দেহ, একটি পরিত্যক্ত গ্র্যানাইট খাদানে তৈরি শ্মশানে নিয়ে যাচ্ছেন। সেদিন, প্রথমবার, ভারতে এক দিনে মৃতের সংখ্যা ৪,০০০ ছাড়িয়ে যায় । বেঙ্গালুরুর বাইরে শ্মশানটি কোভিড-১৯ আক্রান্তদের মরদেহ সৎকার করার জন্যই তৈরি করা হয়েছে। (মঞ্জুনাথ কিরণ/এএফপি)"

ইনশর্ট অ্যাপের আসল গ্রাফিকটির সঙ্গে ভুয়ো স্ক্রিনশটটি তুলনা করলে দেখা যায়, আসলটির তুলনায়, নকল স্ক্রিনশটটির অক্ষরগুলি আরও কালো।

তাছাড়া, ভাইরাল স্ক্রিনশটটিতে যে ঘটনার কথা বলা হয়েছে, সেটি সম্পর্কে আমরা কোনও বিশ্বাসযোগ্য খবর দেখতে পাইনি।

আরও পড়ুন : মেকি শবযাত্রার দৃশ্য মিথ্যে দাবিতে জুড়ল প্যালেস্তাইনের সংঘর্ষের সঙ্গে

Updated On: 2021-05-16T20:33:11+05:30
Claim Review :   ইনশর্টসের খবরের দাবি কেরলের এক দম্পতি হনুমানজির স্টিকার সাঁটা থাকায় অ্যাম্বুল্যান্স চড়েনি
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story