Thailand এর স্বাস্থ্যমন্ত্রী COVID-19 Vaccine নিতে ভয় পাচ্ছেন?

বুম দেখে এই ভিডিওটি ২০১৮ সালের। এক জন চিনা নাগরিক জীবনে প্রথম বার ইঞ্জেকশন নিতে ভয় পাচ্ছিলেন, ভিডিওটি সেই দৃশ্যের।

ইঞ্জেকশন নেওয়ার ভয়ে এক জন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ কাঁদছেন, এমন একটি ভিডিও সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সঙ্গে মিথ্যে দাবি যে, ভিডিওর লোকটি থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী (Thailand Health Minister) আনুতিন চার্নভিরাকুল (Anutin Charnvirakul), এবং তাঁকে কোভিড-১৯'এর টিকা (COVID-19 Vacine) দেওয়ার আগের মুহূর্তে এই ভিডিওটি তোলা হয়েছে।

ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, স্বাস্থ্যকর্মীরা যখন তাঁকে ইঞ্জেকশন দেওয়ার চেষ্টা করছেন, লোকটি তখন ভয়ে চিৎকার করছেন। আশেপাশে থাকা লোকজন তাঁকে ভরসা দিচ্ছেন।
ভাইরাল ভিডিওর ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, "থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী একটি ইঞ্জেকশন নিচ্ছেন।"
পোস্টটির আর্কাইভ দেখা যাবে এখানেএখানে

ভারতীয় দক্ষিণপন্থীদের মধ্যে জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব, জন্মসূত্রে পাকিস্তানি, বর্তমানে কানাডার নাগরিক তারেখ ফতাহও (Tarek Fatah) এই ভিডিও ক্লিপটি টুইট করেন। এর আগেও বুম তাঁর কথার সত্যতা যাচাই করেছে, এবং দেখিয়েছে যে তিনি ভুয়ো তথ্য প্রচার করছেন। ফতাহ তাঁর টুইটে লিখেছেন, "চোখের জলে কোভিড-১৯'এর বিরুদ্ধে লড়াই।"
আর্কাইভ দেখা যাবে এখানে
পোস্টটি বাংলা ক্যাপশনের সঙ্গেও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে লেখা হয়েছে, "I am scared about injections! আমিও এক রকম ভয় পাই ইঞ্জেকশনে!ইনি বেচারি আবার থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী!হতচ্ছাড়া কোভিড!তোর ওলাউঠো হোক!আমাকেও তো নিতে হবে!ভাবলেই ভয় করছে"
আর্কাইভ দেখা যাবে এখানে
সত্যতা যাচাইয়ের জন্য ভিডিওটি বুমের হেল্পলাইন নম্বরেও এসেছে।

তথ্য যাচাই

বুম নিশ্চিত ভাবে জেনেছে যে, ভিডিও থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনুতিন চার্নভিরাকুলকে কোভিড টিকা দেওয়ার দৃশ্য নয়। আমরা ভিডিওটিকে কয়েকটি কি ফ্রেমে ভেঙে নিই, এবং তার কয়েকটি ফ্রেম ব্যবহার করে রিভার্স ইমেজ সার্চ করি। সেই সার্চে আমরা দেখতে পাই, এই একই ভিডিও ২০১৮ সালেও পোস্ট করা হয়েছিল। সঙ্গে এই রকম আরও কয়েকটি ইঞ্জেকশন দেওয়া ভিডিও ছিল, এবং ক্যাপশন ছিল, "যন্ত্রণাদায়ক, কিন্তু মজার অ্যাম্পিউল।"

তা ছাড়াও হংকং থেকে প্রকাশিত সংবাদপত্র সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট-এর ইউটিউব চ্যানেলেও এই ভিডিওটির সন্ধান পাই। সেখানে ভিডিওটি ২০১৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি আপলোড করা হয়েছিল। ভিডিওর শিরোনাম ছিল, "জীবনের প্রথম ইঞ্জেকশন নিতে ভয় পাচ্ছেন এক চিনা ব্যক্তি।" ভিডিওটির ক্যাপশনে এই লোকটিকে চিনা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়, এবং বলা হয় যে তিনি জীবনের প্রথম ইঞ্জেকশন নিচ্ছেন বলে খুবই উদ্বিগ্ন।


রাশিয়ান ওয়েবসাইট ইলিথর স্পেস-এ প্রকাশিত একটি রিপোর্টেরও সন্ধান পায় বুম। সেখানেও এই ভিডিওটি আছে। সঙ্গে উল্লেখ করা হয়েছে যে ইঞ্জেকশন নিতে ভীত এই লোকটির ভিডিও ২০১৮ সালে চিনের সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্ম উইবো-তে ভাইরাল হয়েছিল। অর্থাৎ, স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে যে এই ভিডিওটির সঙ্গে নোভেল করোনাইভাইরালের কোনও সম্পর্ক নেই, কারণ ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে প্রথম বার এই ভাইরাসটি চিনের ইউহান প্রদেশে ধরা পড়েছিল। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্টেও সেই উল্লেখই আছে। তবে, ভিডিওর লোকটি কে, বা ভিডিওটি কোথায় তোলা হয়েছিল, বুম তা নিশ্চিত করে জানতে পারেনি।

থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

অনুতিন চার্নভিরাকুল এক জন থাই রাজনীতিক। তিনি বর্তমানে সে দেশের উপপ্রধানমন্ত্রী ও জনস্বাস্থ্য বিষয়ক মন্ত্রী।


সংবাদে প্রকাশ, থাইল্যান্ডের সরকার ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে কোভিড-১৯ টিকাকরণ কর্মসূচি আরম্ভ করছে। উচ্চ ঝুঁকিসম্পন্ন জনগোষ্ঠীকে অ্যাস্ট্রাজেনেকা টিকা দেওয়ার মধ্যমেই এই কর্মসূচির সূচনা হবে বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে, অ্যাস্ট্রাজেনেকা প্রথমে ৫০,০০০ টিকা জোগান দেবে। কোভিড টিকাকরণে বিলম্ব করার জন্য থাইল্যান্ডের সরকারের সমালোচনা হয়েছে। চার্নভিরাকুল এই সমালোচনা অস্বীকার করে জানিয়েছেন যে, সব পরিকল্পনামাফিকই চলছে, এবং ফেব্রুয়ারির ১৪ তারিখ প্রবীণ নাগরিক ও অন্যান্য কো-মর্বিডিটিসম্পন্ন নাগরিকদের টিকাকরণের মাধ্যমে কর্মসূচির প্রথম পর্বের সূচনা হবে

Claim Review :   ভিডিও দেখায় থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনুতিন চার্নভিরাকুল কোভিড ভ্যাক্সিনের ইঞ্জেকশন নিতে ভয় পাচ্ছেন
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story