ভিয়েতনামের সা পা-তে এক গ্যাসের দোকানে আগুন ছড়াল মালয়েশিয়ার দৃশ্য বলে

বুম দেখে ভাইরাল ভিডিওটি ১১ অগস্ট ২০২১ ভিয়েতনামের সা পা শহরের একটি জ্বালানি গ্যাস সিলিন্ডারের দোকানে অগ্নিকাণ্ডের দৃশ্য।

ভিয়েতনামের (Vietnam) লা কাই প্রদেশের সা পা শহরের এক দোকানে ভয়াবহ আগুন লাগার দৃশ্যকে সোশাল মিডিয়ায় মালয়েশিয়ার (Malaysia) ঘটনা বলে শেয়ার করা হচ্ছে।

সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ৪ মিনিট ৩৪ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে ৪ তোলা বিল্ডিংয়ের নিচের তলায় মৃদু বিস্ফোরণের আওয়াজ সহ অগ্নিকাণ্ড হতে দেখা যায়। পাশের বিল্ডিংয়েও আগুনের হলকা ছড়িয়ে পড়তে দেখা যায়।

ভিডিওটি ফেসবুকে শেয়ার করে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "গ্যাস সিলিন্ডার থেকে ভয়াবহ #আগুন। ঘটনাটি ঘটেছে মালয়েশিয়াতে একটি চাইনিজ দোকানে আজকে।"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে

ফেসবুকে ভাইরাল

ভিডিওটি ওই একই ক্যাপশন সহ ফেসবুকে ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয়েছে।


আরও পড়ুন: ২০২০'র কায়রোর তেলের পাইপলাইনে অগ্নিকাণ্ড ছড়াল ইজরায়েলে বিস্ফোরণ বলে

তথ্য যাচাই

বুম যাচাই করে দেখে ভিডিওটি ১১ অগস্ট ২০২১ ভিয়েতনামের লা কাই প্রদেশের সা পা শহরের একটি গ্যাস সিলিন্ডারের দোকানে আগুন লাগার দৃশ্য।

বুম ভিডিওটিকে কয়েকটি মূল ফ্রেমে ভেঙে নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে ভিএনএক্সপ্রেস নামের একটি ভিয়েতনামী সংবাদমাধ্যমে একই ভিডিও খুঁজে পায়। ১১ অগস্ট ২০২১ প্রকাশিত প্রতিবেদনের শিরোনামের ইংরেজি অনুবাদ হল, "সে পা-এর একটি গ্যাসের দোকানে আগুন লাগে।" (মূল ভিয়েতনামি শিরোনাম: Cửa hàng gas ở Sa Pa bốc cháy dữ dội)

দ্রুত আগুন উপরের তলায় ছড়িয়ে পড়ে সিড়ি অবরুদ্ধ হয়ে যায়। ওই দোকানের দুই কর্মচারী পরে চিৎকার শুরু করে দোতলায় দুই শিশু আটকে পড়ায়।

আরেক ভিয়েতনামী সংবাদমাধ্যমে (Tuổi Trẻ News) ১২ অগস্ট ২০২১ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী সা পা-এর ২৪৪ থ্যাচ সন স্ট্রিটে (244 Thach Son Street) অবস্থিত ওই রান্নার গ্যাসের দোকানে আগুন লাগে। পাশা পাশি দুটি বিল্ডিংয়েও আগুন ছড়িয়ে পড়ে, ভস্মীভূত হয়। তবে কেউ হতাহত হননি বলে জানানো হয় রিপোর্টে।

বুম গুগল ম্যাপে ওই গ্যাসের দোকানের পাশের থ্যাচ সন স্ট্রিটের মে হো হোটেলটি সনাক্ত করতে পেরেছে।

আরও পড়ুন: ভারতীয় গণমাধ্যমের মিথ্যে দাবি হেলিকপ্টারে ঝুলিয়ে ফাঁসি দিল তালিবান

Updated On: 2021-09-03T19:45:33+05:30
Claim Review :   ভিডিওর দাবি গ্যাস সিলিন্ডার থেকে মালয়েশিয়ার এক চাইনিজ দোকানে ভয়াবহ আগুন
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story