হাসপাতাল নয়, মন্দির চাই বলা ব্যক্তি করোনাভাইরাসে মারা যায়নি

বুম ভিডিও ক্লিপ দেখে জিতেন্দ্র গুপ্তর সঙ্গে কথা বলে, মৃত্যুর ভুয়ো খবর ছড়ানোর জন্য তিনি এফআইআর দায়ের করেছেন।

সোশাল মিডিয়ায় চাউর হওয়া যে-পোস্টে এক ব্যক্তিকে বলতে শোনা যাচ্ছে "রাস্তাঘাট চাই না, রুটি চাই না... মন্দির হলেই হলো…" সে মারা গেছে বলে যে খবর রটেছে, তা ভুয়ো। বুম সেই লোকটিকে শনাক্ত করেছে, তার নাম জিতেন্দ্র গুপ্ত (Jitendra Gupta), সে দিল্লির বাসিন্দা এবং বুম-কে সে জানিয়েছে যে সে মোটেই মারা যায়নি, বহাল তবিয়তে আছে এবং তার কোভিড-ও (COVID19) হয়নি।

"আমি খুব ভালো আছি । আমি লখনউতে যাইনি, আমার কোভিড-১৯ পরীক্ষায় পজিটিভ রিপোর্টও আসেনি । তাই আমি অক্সিজেনের অভাবে মারা গেছি, এ কথা ওরা বলছে কী করে ? এই পোস্টগুলো লজ্জাজনক এবং হাস্যকর ।" বললেন দিল্লির নির্মাণশিল্পে কর্মরত ঠিকাদার জিতেন্দ্র।

২০১৯-এর ডিসেম্বরে ভাইরাল হওয়া একটি পোস্টে অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের দাবিতে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের এক সমাবেশে জিতেন্দ্রকে বলতে শোনা গিয়েছিল— "রামমন্দির চাই-ই চাই...সড়ক চাই না...রুটি চাই না...চাই রামমন্দির!" ভিডিওটি তুলেছিলেন একটি ওয়েবসাইটের অ্যাংকর সমদিশ ভাটিয়াl

ভাইরাল হওয়া পোস্টে জিতেন্দ্রর ওই উক্তি হিন্দি ক্যাপশন ও ছবি সহ ছড়িয়ে যায়, যাতে জিতেন্দ্রকে এই বলে খানিকটা বিদ্রুপও করা হয় যে, তিনি মন্দিরকে সব কিছুর উপর অগ্রাধিকার দিলেও অক্সিজেনের অভাবে মারা গেলেন। ক্যাপশনে লেখা হয়: এই লোকটি যে চিৎকার করে বলেছিল 'আমাদের হাসপাতাল চাই না, শুধু মন্দির হলেই চলবে', সে লখনউতে অক্সিজেনের অভাবে মারা গেল!



কিছু পোস্টে স্কুপহুপ-এ প্রচারিত ভাইরাল হওয়া ভিডিওর অংশও ক্যাপশন সহ উদ্ধৃত হয়েছে এবং ভুয়ো দাবি সহ শেয়ার হয়েছেঃ

আরও পড়ুন: বাংলাদেশে আহত শিশুর পুরনো ছবি পশ্চিমবঙ্গে রাজনৈতিক হিংসা বলে চালানো হল

তথ্য যাচাই

বুম একটি ফেসবুক পোস্টে বিজেপির জনৈক রবীন্দ্র সিং নেগিকে ওই ভাইরাল ভিডিওর স্ক্রিনশট শেয়ার করতে দেখেছে, যাতে লোকটিকে জিতেন্দ্র নয় জিতু গুপ্ত বলে শনাক্ত করা হয়েছে এবং লখনউতে তার মারা যাওয়ার খবরকে ভুয়ো বলা হয়েছে।

আমরা নেগির ওই মূল পোস্টটি পেয়েছি, যেখানে জিতেন্দ্র সম্পর্কে ভুয়ো প্রচারের বিরোধিতা করে জানানো হয়েছে, জিতেন্দ্র দিল্লির পটপড়গঞ্জের বাসিন্দা।

নেগির পোস্টে আমরা মোহিত গুপ্ত নামে একজনের মন্তব্যও পাই, যিনি দাবি করেন, জিতেন্দ্র তাঁর পরিবার নিয়ে নিরাপদে এবং বহাল তবিয়তে আছেন। আমরা মোহিত গুপ্তর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি নিজেকে জিতেন্দ্রর ভাইপো বলে পরিচয় দেন। তিনি বলেন: "আমার কাকা জিতেন্দ্র চৎকার ভাবে জীবিত আছেন এবং তিনি মারাও যাননি বা লখনউতেও নেই, যেমনটা নাকি ভাইরাল পোস্টে দাবি করা হয়েছে ।"

বুম জিতেন্দ্র গুপ্তর সঙ্গেও যোগাযোগ করে, যিনি জানান—এই পোস্টগুলি তাঁর পরিবার ও পরিচিতদের খুবই বিচলিত করেছে। "আমি একজন বন্ধুর কাছে এই পোস্টের কথা জানতে পারি যে আমাকে ভিডিওটি পাঠিয়ে দেয় । লোকে বিশ্বাস করতে শুরু করেছিল যে আমি সত্যিই মারা গেছি । ফেসবুকে সর্বত্র এই ভুয়ো পোস্ট ছয়লাপ হয়ে গিয়েছিল । অগত্যা আমি বন্ধুদের পরামর্শে আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগ করি এবং মধু বিহার থানায় অভিযোগ দায়ের করি । ওঁরা এখন তদন্ত করছেন ।" জিতেন্দ্র আরও দাবি করেন যে তিনি মোটেই অসুস্থ নন, রীতিমত ভালো আছেন এবং গত শনিবার কোভিড-১৯-এর টিকাও নিয়েছেন। তাঁর মতে "ভাইরাল হওয়া এই পোস্টগুলি লজ্জাকর এবং কারা এগুলো ছড়িয়েছে এবং আমার একটা পুরনো বক্তব্যকে বর্তমান কোভিড পরিস্থিতির সঙ্গে জড়িয়ে তারা যে কী অভিসন্ধি সিদ্ধ করতে চেয়েছে, কে জানে!"

এই ভাইরাল পোস্টের জবাব হিসাবে তাঁর তৈরি করা একটি ভিডিও জিতেন্দ্র আমাদের কাছে পাঠিয়েছেন:

আরও পড়ুন: আরএসএস-এর পোশাক পরা পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালের সম্পাদিত ছবি জিইয়ে উঠল

Claim Review :   যে লোকটি বলেছিল মন্দির চাই, রাস্তা নয়, সে অক্সিজেনের অভাবে লখনঊতে মারা গেছে
Claimed By :  Social Media posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story