না, 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ' স্লোগানের জন্য মধ্যপ্রদেশ সরকার বস্তি ভাঙেনি

বুম উজ্জয়িনীর পুলিশ সুপার সত্যেন্দ্র কুমার শুক্লর সঙ্গে কথা বললে তিনি এই ভুয়ো দাবিটি উড়িয়ে দিয়েছেন।

মধ্যপ্রদেশের (Madhya Pradesh) উজ্জয়িনীতে (Ujjain) একটি বেআইনি জবরদখল উচ্ছেদের অভিযানের ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় সাম্প্রদায়িক রঙ চড়িয়ে ভাইরাল করা হয়েছে।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, উর্দি-পরা কিছু লোকের পাহারায় একটা গোটা বস্তি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে, রাস্তার লাগোয়া বাড়িগুলি যন্ত্রের সাহায্যে ভেঙে দেওয়া হচ্ছেlভিডিওতে দাবি করা হচ্ছে, মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান গফুর বস্তি নামক এই জনপদের বাসিন্দাদের খালি করে উঠে যাওয়ার হুকুম দেন, যে-বস্তি থেকে অতীতে নাকি 'পাকিস্তান জিন্দাবাদ' ধ্বনি শোনা গিয়েছে।

বুম দেখেছে, এটি আসলে হরি ফটক নামে ইন্দোর রোডের উপর সরকারি জমি জবরদখল করে গড়ে ওঠা একটি বস্তি ভেঙে দেওয়ার অভিযানl উজ্জয়িনীর পুলিশ সুপার সত্যেন্দ্র শুক্ল এই বস্তি থেকে পাকিস্তানের নামে জয়ধ্বনি ওঠার অভিযোগ সম্পূর্ণ নস্যাত্ করে দিয়েছেন।

১৯ অগস্ট রাতে উজ্জয়িনীরই গীতা কলোনিতে মহরমের মিছিল চলার সময় পাকিস্তানের নামে এমন জয়ধ্বনি শোনা গিয়েছিল বটে, যার পরিপ্রেক্ষিতে এই ভুয়ো দাবিটি তোলা হচ্ছেl বুম এই দাবি যাচাই করে দেখেনি, তবে খবরে প্রকাশ, পুলিশ এ ধরনের স্লোগান তোলার দায়ে জাতীয় নিরাপত্তা আইনে ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে এবং ১০ জনকে গ্রেফতারও করেছে।

উত্তরপ্রদেশের ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার সোশাল মিডিয়া বিভাগের প্রধান রিচা রাজপুত এই ভিডিওটি টুইটারে শেয়ার করেছেন একটি হিন্দি ক্যাপশন সহঃ "উজ্জয়িনীর গফুর বস্তির বাসিন্দারা পাকিস্তান জিন্দাবাদ স্লোগান দিয়েছিল, যাদের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহানের হুকুমে উচ্ছেদ করা হয়েছে l জয় হিন্দ!"

টুইটটির আর্কাইভ দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

ফেসবুক এবং ইউটিউবেও এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে

ফেসবুকে ভিডিওটি ব্যাপকভাবে শেয়ার হয়েছে l এ রকমই দুটি পোস্ট দেখুন এখানে এবং এখানে l

ইউটিউবেও ভিডিওটি সমানভাবে ভাইরাল হয়েছে:

আরও পড়ুন: পঞ্জশিরে তালিবান রুখতে নাবালিকা বলে জি হিন্দুস্তান দেখাল পুরনো ভিডিও

তথ্য যাচাই

বুম দেখল মূল ভিডিওটি উজ্জয়িনীর ইন্দোর রোডে হরি ফটক নামে একটি জায়গায় বস্তি উচ্ছেদের দৃশ্যl ওই একই ভিডিও টুইট করে একজন লিখেছেন, এটি উজ্জয়িনীর হরি ফটক সেতুর কাছে ২১৪টি বেআইনি ভাবে জবরদখল করা দোকান ভেঙে দেওয়ার দৃশ্য।

অনুসন্ধান করে আমরা জবরদখল উচ্ছেদ কাণ্ডের বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন পেলামl হিন্দি সংবাদ পোর্টাল দৈনিক ভাস্কর, অগ্নিবাণ এবং দৈনিক অবন্তিকায় এই ঘটনার রিপোর্ট প্রকাশ হয়েছে। এই সব খবরেই বলা হয়, জেলা প্রশাসন ২৭ অগস্ট শুক্রবার বেআইনিভাবে গড়ে ওঠা এই ঘরবাড়িগুলো ভেঙে দেয়।

রিপোর্ট অনুযায়ী, উজ্জয়িনীর হরি ফটক সেতু ও মন্নত গার্ডেন এলাকার আশেপাশে প্রায় ২০০টি গ্যারেজ, মোটর গাড়ির যন্ত্রাংশের দোকান এবং অন্যান্য ব্যবসা বেআইনিভাবে গড়ে উঠেছিলl সকাল থেকেই জেলা প্রশাসন পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে এই কাঠামোগুলি সরানোর কাজ শুরু করেl

২৭ অগস্ট স্থানীয় চ্যানেল সিটি ২৪ উজ্জয়িনীতে এই ভিডিও রিপোর্টটি প্রকাশিত হয়:

গুগল ম্যাপস হাতড়ে বুম বস্তি ধ্বংসের নির্দিষ্ট স্থানটি চিহ্নিত করেছে—ভিডিওটির ১ মিনিট ১৫ সেকেন্ডের মাথায় হরি ফটক সেতুর কাছে প্রেসিডেন্ট হোটেলটি দৃশ্যমাণ।

হরি ফটক সেতুর কাছেই অবস্থিত আবদুল অটো গ্যারেজের মালিকের সঙ্গে বুম কথা বলেছেl তিনি জানান, "গতকাল (২৭ অগস্ট) থেকেই প্রশাসন দোকানপাট ভাঙার কাজ শুরু করে। ২০০র বেশি দোকান ভেঙে দেওয়া হয়েছে l"

এ ছাড়াও আমরা উজ্জয়িনীর জিয়াজিগঞ্জ পুলিশ স্টেশনের আধিকারিকের সঙ্গেও কথা বলি, যিনি আমাদের জানান, পাকিস্তানের নামে জয়ধ্বনি ওঠার ঘটনাটি গীতা কলোনিতে ঘটেছিল।

উজ্জয়িনীর পুলিশ সুপার সত্যেন্দ্র কুমার শুক্লর সঙ্গেও বুম কথা বলেছেl তিনি সাফ জানিয়ে দেন, "বিষয়টিতে অনাবশ্যক সাম্প্রদায়িক রঙ চড়ানো হচ্ছে l দুটি ঘটনা সম্পূর্ণ স্বতন্ত্র এবং পরস্পর সম্পর্কহীন l তিনি বলেন, স্লোগান দেওয়ার সূত্রে ১২৩ (ক) এবং ১৫৩ ধারায় এ পর্যন্ত মোট ১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে l অন্যদিকে ভাইরাল ভিডিওটিতে কেবল বেআইনি দখলদারদের উচ্ছেদের অভিযানের ছবি দেখানো হয়েছে l দুটি বিষয় সম্পূর্ণ আলাদা l"

তথ্য যাচাইকারী এই প্রতিবেদন প্রথম বুম হিন্দিতে প্রকাশিত হয় ২৮ অগস্ট, ২০২১।

আরও পড়ুন: পাকিস্তানে এক ব্যক্তির বিদ্যুৎচুরির স্বীকারক্তি ছড়াল ভারতের ঘটনা বলে

Claim Review :   পাকিস্তান জিন্দাবাদ শ্লোগান দেওয়ার পর মধ্যপ্রদেশের উজ্জয়নের গফূর বস্তি ভেঙে ফেলা হয়
Claimed By :  Facebook Posts & Twitter users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story