পুরনো ছবিকে বলা হল Uttarakhand বিপর্যয়ে ভারতীয় সেনার উদ্ধারকাজ

বুম দেখে ২০১৩ সালের ইন্ডিয়া টাইমসের প্রতিবেদনে ছবিটিকে উত্তরাখণ্ডে বন্যায় সেনাকর্মীদের উদ্ধারকাজ বলে দাবি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনার কবলে পড়া বৃদ্ধাকে সেনাবাহিনী উদ্ধার করার পুরনো ছবিকে সোশাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তিকর দাবি সহ শেয়ার করা হচ্ছে। ফেসবুকে ছবিটি শেয়ার করে মিথ্যে দাবি করা হচ্ছে এটি উত্তরাখণ্ডে (Uttarakhand) ভারতীয় সেনার (Indian Army) উদ্ধারকাজ (Rescue ops)।

উত্তরাখণ্ডের চামোলীর (Chamoli) যোশীমঠের নন্দাদেবীর হিমবাহ ভেঙে ধৌলি গঙ্গায় হড়পা বানের জেরে রবিবার ৭ ফেব্রুয়ারি নিখোঁজ হন প্রায় ২০৪ জন ব্যক্তি। ১১ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের প্রতিবেদন অনুয়ায়ী এপর্যন্ত ৩৪ টি প্রাণহীন দেহ উদ্ধার হয়েছে। মঙ্গলবার রাইনি গ্রামে ঋষিগঙ্গা তাপবিদ্যুৎ প্রকল্পের এলাকা থেকে আরও ৪ টি মৃতদেহ উদ্ধার হয়। তপোবন বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য সুড়ঙ্গে কাজ করতে গিয়ে আটকা পড়ে প্রায় ১৪০ জন শ্রমিক। রবিবার ১২ জন শ্রমিককে জীবন্ত উদ্ধার করা সম্ভব হয় তপোবন-বিষ্ণুগড় প্রকল্প এলাকা থেকে। ১৫ জনকে উদ্ধার করা হয় ঋষিগঙ্গা এলাকা থেকে। ইন্দো তিব্বত ব্যাটেলিয়ন ফোর্স, জাতীয় বিপর্যয় মোকোবিলা বাহিনী কর্মী, উত্তরাখণ্ড রাজ্য বিপর্যয় মোকোবিলা বাহিনী ও স্বশস্ত্র সীমা বল একযোগে উদ্ধারকাজে সামিল হয়েছে। প্রতিকূল আবহাওয়ায় উদ্ধারকাজ বিঘ্ন হওয়ার পাশাপাশি যত দিন যাচ্ছে জীবন্ত মানুষ উদ্ধারের আশা ক্রমশ ক্ষীণ হচ্ছে।

আরও পড়ুন: উত্তরাখণ্ডে বিধ্বঃসী তুষার ধস, হড়পা বানে প্লাবিত চামোলী

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া গ্রাফিক পোস্টটিতে দেখা যায়, সেনাকর্মীকে দু'হাতে গালে ছুঁয়ে স্নেহ ও কৃতজ্ঞতা স্পর্শ দেওয়ার চেষ্টা করছেন হলুদ শাড়ি পরা এক মহিলা।

ওই গ্রাফিকটিতে লেখা হয়েছে, "ভারতীয় সেনাকে কুর্নিশ উত্তরাখণ্ডে সুড়ঙ্গে আটকে থাকা ১৫ জনকে নতুন জীবন দিলেন।"

ছবিটি শেয়ার করে আরেকটি ফেসবুক পোস্টে ক্যাপশন লেখা হয়েছে, "ভারতীয় সেনাকে কুর্নিশ।"

পোস্ট দুটি আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে

আরও পড়ুন: মোদী ও শাহের সমালোচনা করা হিন্দু সন্ন্যাসী মমতার সমালোচনা করেছেন

তথ্য যাচাই

বুম ছবিটিকে রিভার্স সার্চ করে জানতে পারে ছবিটি উত্তরাখণ্ডের সাম্প্রতিক প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সঙ্গে সম্পর্কিত নয়।

বুম দেখে ২০১৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত ইন্ডিয়াটাইমসের প্রতিবেদনে এই ছবিটিকে ব্যবহার করা হয়।

২০১৩ সালে উত্তরাখণ্ডের কেদারনাথে মেঘভাঙা বৃষ্টিতে ভয়াবহ প্লাবন হয়। ওই বিধ্বঃসী বন্যার করালগ্রাসে প্রাণ যায় প্রায় ৫,০০০ জনের বেশি মানুষের। ইন্ডিয়া টাইসমসের প্রতিবেদনে ছবিটিকে সে সময়ের উদ্ধার কাজের ছবি বলা হয়েছে।

কুরকি নেট নামে আরেকটি ওয়েবাসইটেও রয়েছে এই ছবি। ওই ওয়েবসাইট অবশ্য দাবি করেছে এটি নেপালে ভূমিকম্পের সময়ে ভারতীয় সেনার সহযোগিতার ছবি। ২০১৫ সালে নেপালে ভয়াবহ ভূকম্পনে প্রাণ যায় প্রায় ৯, ০০০ মানুষের।

বুম নিশ্চিত হয়েছে ভাইরাল ছবিটি সাম্প্রতিক উত্তরাখণ্ডের বিপর্যয়ের পর উদ্ধার তৎপরতার ছবি নয়। ছবিটির অন্য কোনও নির্ভরযোগ্য উৎসের খোঁজ না মোলায় বুমের পক্ষে স্বাধীনভাবে ছবিটির উৎস বা সত্ত্ব যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

আরও পড়ুন: শুভেন্দু সম্পর্কে দিলীপ ঘোষের উক্তি বলে ভুয়ো এবিপি আনন্দের গ্রাফিক ভাইরাল

Updated On: 2021-02-11T17:18:33+05:30
Claim Review :   ছবির দাবি উত্তরাখণ্ডে ভারতীয় সেনার উদ্ধারকাজ
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story