সিনেমার জন্য তৈরি নকল জন্তুর ভিডিও ভাল্লুক হানার আতঙ্ক ছড়াচ্ছে বাংলায়

বুম জেনেছে সম্পর্কহীন এই ভিডিওগুলি হোয়াটসঅ্যাপে ছড়িয়ে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় অজানা জন্তুর হানা বলে আতঙ্ক ছড়ানো হচ্ছে।

পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ির (Jalpaiguri) মেটেলি (Matiali) ব্লকে ভাল্লুকের (bear attack) আক্রমণে ২৪ নভেম্বর প্রাণ হারায় একাদশ শ্রেণীর এক ছাত্র। তারপর ভুয়ো (fake news) দাবিতে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়ল তিনটি সম্পর্কহীন ভিডিও (viral videos)।

বুম ২০২১ সালের জুন মাসে ওই তিনটি ভিডিওর মধ্যে দুটি ভিডিওর তথ্য-যাচাই করেছে। এই দুটি ভিডিও নাইজেরিয়ায় ভয়াল বন্য প্রাণী হিসেবে ভাইরাল হয়েছিল বুম সে সময় ভিডিও দুটির তথ্য-যাচাই করে

বুম বাংলার পাঠক হেল্পলাইন (+৯১৭৭০৯০৬৫৮৮) মারফত তিনটি ভিডিও পাঠায়। তিনি আমাদের জানান ভিডিওগুলি সোশাল মিডিয়ায় বিভ্রান্তিকর দাবি সহ ছড়াচ্ছে। অজানা প্রাণীর আক্রমণের শিকার হয়েছে এক নাবালক। তার একটি পা জখম হয়েছে ওই অজানা প্রাণীর আক্রমণে।

নিচে ভাইরাল হওয়া হোয়াটসঅ্যাপ বার্তার স্ক্রিনশট দেওয়া হল।

প্রথম ভিডিওটি ১৮ সেকেন্ড দীর্ঘ, সেখানে এক বন্যজন্তুকে মৃত অবস্থায় দেখা যায়, যার হিংস্র দাঁতে রক্তের ছিটে।

দ্বিতীয়, ১৯ সেকেন্ড দীর্ঘ ভিডিওতে দেখা যায়, এক শিশুর জখম থেঁতলে যাওয়া পা। পাশে বাবা ও মায়ের আর্তনাদের আওয়াজ। বুম এই ভিডিওর ব্যক্তিদের কথা-বার্তার ভাষা উদ্ধার করতে পারেনি।

তৃতীয়, ২৪ সেকেন্ডের ভিডিওতে এক তীক্ষ্ণ দাঁতের ভাল্লুক বা নেকড়ে জাতীয় সংকর প্রাণীর গোঙানি শুনতে পাওয়া যায়।

সতর্কতা: ভিডিও তিনটি ভয়ার্ত নিজের দায়িত্বে দেখবেন। ভিডিওগুলি দেখা যাবে এখানে, এখানেএখানে



তথ্য যাচাই

অজানা প্রাণীর ভুয়ো ভিডিও

বন্য জন্তুর ভিডিও রিভার্স সার্চ করে বুম জোসেফ রব কোবাস্কির ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে দুই বন্য প্রাণীর একই ভিডিওর হদিস পায়। কোবাস্কি একজন ভাস্কর্য ও ফিল্ম এফেক্টস শিল্পী। তিনি সিনেমার জন্য এই ধরণের কাল্পনিক জন্তু তৈরি করে থাকেন।

বুম কোবাস্কির ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একাধিক এই ধরণের প্রাণীর ভিডিও ও ছবি খুঁজে পেয়েছে।

এরকম কয়েকটি ভিডিও/ছবি দেখুন এখানে, এখানেএখানে

লস অ্যাঞ্জেলস-এর সিনেমা নির্মাতা সংস্থা ত্রিমুলাস মোশান পিকচার্স ১৮ জুন ২০২১ টুইট করে জানায় সেগুলি স্পেশাল এফেক্টস হিসেবে তৈরি করা হয়েছে।

বুম ২০২১ সালের জুন মাসে কোবাস্কির সঙ্গে যোগাযোগ করলে কোবাস্কি জানান, "কেউ তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিও চুরি করে এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে।" "আমি শুধু আমার কাজগুলো ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছিলাম।" কোবাস্কি বুমকে আরও বলেন।

এই দুটি ভিডিও নাইজেরিয়ায় ভয়াল বন্য প্রাণী হিসেবে ভাইরাল হয়েছিল বুম সে সময় ভিডিও দুটির তথ্য-যাচাই করে। পড়ুন বুমের প্রতিবেদন এখানে

শিশুর জখম পায়ের ভিডিও

"মেটেলিতে বন্য ভাল্লুকের উৎপাতে গুরুতর আহত এক ব্যক্তি ও শিশু" এই শিরোনামে ২৯ নভেম্বর ২০২১ সংবাদ প্রকাশ করেছিল বাংলা নিউজ লাইভ ২৮x৭।

বুম রিভার্স সার্চ করে ওই প্রতিবেদনে ছবিটি ব্যবহার হতে দেখে। ওই প্রতিবেদনে লেখা হয়, "মালবাজার মহকুমার মেটেলি ব্লকে ফের শুরু হয়েছে বন্য ভাল্লুকের উৎপাত।…এলাকাবাসীর বক্তব্য, শিশুটির একটি পা খেয়ে ফেলেছে ভাল্লুকটি, কান্নায় ভেঙ্গে পড়েছে শিশুটির পরিবারের লোকজন, অপরদিকে অন্য এক ব্যক্তি গুরুতর জখম।তারা এখন চিকিৎসাধীন।"

বাংলা ও ইংরেজিতে লেখা প্রতিবেদন আর্কাইভ করা আছে এখানে এখানে

বুম বাংলা নিউজ লাইভ দপ্তরে যোগাযোগ করে জানতে পারে ভিডিওটি তাঁরা যাচাই করেননি। সিটিজেন রিপোর্টার মারফত এই ভিডিও তাঁদের দপ্তরে আসে।

বুম নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কোচবিহারের বাসিন্দা সিটিজেন রিপোর্টার ওই ব্যক্তি বলেন তিনি ওই ভিডিও "ট্রাক মালিক ও চালক"-দের সংগঠনের শিলিগুড়ি ভিত্তিক একটি গ্রুপে পেয়েছেন। তাঁর এক সহকর্মীর স্ত্রী স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মী। তাঁকে ভিডিওটি শেয়ার করলে সেখান থেকে ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে।

ওই ব্যক্তি বুমকে বলেন, "আমি ক্ষমাপ্রার্থী, ওই গ্রুপে একজন শেয়ার করেছিল ভাল্লুক আক্রমণের ঘটনা হিসেবে। আমি যাচাই না করেই ভিডিওটি শেয়ার করে ফেলেছি।"

বুম গরুমারা ডিভিশনের মেটলি ব্লকের বন-আধিকারিকের কার্যালয়ে শুক্রবার ফোন করলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আধিকারিক জানান, "ভাল্লুক আক্রমণের ঘাটনা আগের মাসের। তিনি জানান জখম হওয়া শিশুর ভাইরাল ভিডিওটি তাঁরা দেখেছেন। সেটি স্থানীয় ভাল্লুক আক্রমণের ঘটনার সঙ্গে সম্পর্কিত নয়।"

বুম এই ভিডিওটির দৃশ্যের ছবি মিলাপ ওয়েবসাইটে খুঁজে পায়। মিলাপ একটি তহবিল তোলার ওয়েবসাইট। ব্যায়বহুল চিকিৎসা কিংবা পড়াশোনার খরচ জোগাতে সঙ্গতিহীন ব্যক্তিরা ওই ওয়েবসাইটের সহায়তা নেন।

মিলাপ ওয়েবসাইটে ব্যবহার হওয়া ছবিতে জানানো হয়, "কানাহা মোহান্তি ওড়িশার নারায়ণগড় জেলার ভাগপুরের কাছে জামুসাহির ছেলে। যাতায়াতের পথে কানহাকে একটি ট্রাক ধাক্কা দেয়। কানহার বাবা দিনমজুর। তাঁরা সঙ্গতিহীন সেকারণে আপনার সাহায্য চাইছে। কানহা তিন বোনের মধ্যে একজন। সে বর্তমানে ভুবনেশ্বরের আমরি হাসপতালে ভর্তি।"

আমরি ভুবনেশ্বর হাসপাতালের পাশ কার্ড অনুযায়ী, ১১ নভেম্বর ২০২১ তারিখ উল্লেখ রয়েছে। বুম স্বাধীনভাবে জখম হওয়া শিশুর ভিডিওর সত্যতা যাচাই করতে পারেনি।

ভাল্লুক আক্রমণের সত্যি ঘটনা

বুম যাচাই করে দেখে মেটলিতে ব্লকে চা বাগানে ভাল্লুকের আক্রমণে একাদশ শ্রেণীর এক পড়ুয়ার মৃত্যু হয় বুধবার, ২৪ নভেম্বর ২০২১।

ঘটনার কিছুক্ষণ পর ভাল্লুকের মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ক্ষিপ্ত জনতা পিটিয়ে ও গুলি করে ওই ভাল্লুককে হত্যা করে।

এব্যাপারে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এবিপি আনন্দের প্রতিবেদন পড়া যাবে এখানে

বিষয়টি নিয়ে উত্তরবঙ্গ সংবাদের প্রতিবেদন দেখুন নিচে।

Updated On: 2021-12-05T19:16:18+05:30
Claim :   পশ্চিমবঙ্গে ভাল্লুকের আক্রমণে জখম শিশুর পা
Claimed By :  Social Media
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.