বিক্ষোভকারীরা কি হোয়াইট হাউসে চড়াও হয়েছিল? একটি তথ্য যাচাই

সোশাল মিডিয়ায় মিথ্যে দাবি করা হয়েছে যে, বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউসে চড়াও হলে, মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প পালাতে বাধ্য হন।

ভিডিও সহ একটি সোশাল মিডিয়া পোস্টে দাবি করা হয়েছে যে, বিক্ষোভকারীরা ওয়াশিংটন ডিসি-তে হোয়াইট হাউসের ওপর চড়াও হয়েছেন। কিন্তু দাবিটি মিথ্যে। কারণ, ভিডিওটিতে যে বাড়িটি দেখা যাচ্ছে, সেটি ওহায়োর স্টেটহাউস কলোম্বাস-এর ছবি।

২৫ মে ২০২০ মিনেসোটার মিনিয়াপোলিস শহরে কয়েকজন পুলিশ অফিসার জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে রাস্তায় ফেলে পা তার গলা হাঁটু দিয়ে চেপে শ্বাসরোধ করে রাখলে সে মারা যায়। তার মৃত্যুর প্রতিবাদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নানা শহরে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। প্রত্যক্ষদর্শীদের ফুটেজে দেখা যায়, ডেরেক শভিন নামের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার ফ্লয়েডের গলায় হাঁটু দিয়ে প্রায় ন' মিনিট চাপ দিয়ে রাখলে তার শরীর নিথর হয়ে যায়।

তারপর থেকে, বিক্ষোভ, লুটতরাজ, ভাঙ্গচুর এবং বিক্ষোভকারী আর সাংবাদিকদের ওপর সহিংস পুলিশি আক্রমণের দৃশ্য সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তে থাকে।

নীচেরটি সহ আরও অনেক পোস্টে দাবি করা হয় যে, বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউসের ওপর চড়াও হন। এমনকি তাদের হোয়াইট হাউসের ওয়েস্ট লনেও দেখা গেছে বলে দাবি করা হয়।

টুইটারেও একই দাবি করা হয়।

ভিডিওটি ইউটিউবেও আপলোড করা হয়। আরবি ভাষায় তার ক্যাপশনে বলা হয়, "একাধিক শেতাঙ্গ মানুষকে মারার পর আমেরিকায় বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউস আক্রমণ করে।"


টুইটটি আর্কাইভ করা আছে এখানে; ফেসবুক পোস্ট আর্কাইভ করা আছে এখানেএখানে; আর ইউটিউবের ভিডিওটি দেখা যাবে এখানে

ভিডিওটি বুম লাইভের হোয়াটসঅ্যাপেও আসে। বার্তিটিতে দাবি করা হয়, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউস ছেড়ে পালিয়েছেন। ফরওয়ার্ড-করা ওই মেসেজটিতে বলা হয়: "আমেরিকার ইতিহাসে এই প্রথম বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউসের মধ্যে ঢুকে পড়েছে। পূর্ব গেটে গুলি চলেছে। কিছু সূত্র জানাচ্ছে, ট্রাম্প তাঁর পরিবার সহ ক্যানসাস-এ পালিয়ে গেছেন। এক ঘন্টার মধ্যে সিআইএ এক জরুরী বৈঠকে বসছে!"


প্রতিবাদীরা হোয়াইট হাউসের সামনে বিক্ষোভ দেখায় ঠিকই, কিন্তু হোয়াইট হাউস তাদের দ্বারা আক্রান্ত হয়নি। বলা হচ্ছে, তারা হোয়াইট হাউসের দিকে পাথর ছোড়ে এবং পুলিশ ব্যারিকেড সরানোর চেষ্টা করে। খবরে প্রকাশ, শুক্রবার রাতে সিক্রেট সার্ভিসের লোকেরা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে একটি বাঙ্কারে নিয়ে যান।

অনেক টুইটার ব্যবহারকারী দাবিটি উড়িয়ে দিয়ে বলেন, বাড়িটি আসলে ওহায়ো স্টেটহাউস। বুম কলোম্বাসের একটি সংবাদ ওয়েবসাইট — এনবিসি৪আই-এর ২৮ মের একটি রিপোর্ট দেখতে পায়। তাতে বলা হয়, বিক্ষোভকারীরা স্টেটহাউসে ঢুকে পড়ে। ওই ঘটনার একটি ভিডিও রিপোর্ট নীচে দেওয়া হল।

গুগলে রিভার্স সার্চ করলে দেখা যায়, বাড়িটি ওহায়ো স্টেটহাউসের মত দেখতে। কয়েকটি স্ক্রিনশট খুঁটিয়ে দেখলে ওই বাড়িটিকে সনাক্ত করতে সাহায্য করে এমন কিছু অংশ নজরে আসে। গুগলের দেওয়া রাস্তার ছবি, স্ক্রিনশটগুলি ও ওহায়ো স্টেট ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশনের আপলোড করা ছবি মিলিয়ে দেখা হয়।

নীচে স্ক্রিনশটগুলি দেওয়া হল। মিলগুলিতে লাল গোলাকৃতি চিহ্ন দেওয়া আছে।












গুগলের-দেওয়া ওহায়োর কলোম্বাস শহরের রাস্তার ছবিতে ওহায়ো স্টেটহাউস দেখা যায়।

আরও পড়ুন: উত্তরাখণ্ডের অরণ্যে দাবানল বলে ছড়ালো পুরনো ছবি

Claim Review :  বিক্ষোভকারীরা হোয়াইট হাউসে চড়াও হলে আমেরিকার রাষ্ট্রপতি পালাতে বাধ্য হন
Claimed By :  Facebook, Twitter, YouTube and WhatsApp users
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story