২০১১ সালে জাপানে সুনামির ভিডিওকে চিনের বলে ছড়ানো হচ্ছে

বুম দেখে ভিডিওটি ২০১১ সালের মার্চ মাসে জাপানের ইশিনোমাকিতে হওয়া সুনামির পরের বিভৎসতা।

২০১১ সালে সুনামির ফলে, জাপানের ইশিনোমাকি-তে যে জলোচ্ছ্বাস দেখা দেয়, তার এক ভিডিও আবার প্রচারে এসেছে এই বলে যে, সেটি চিনে তোলা, যেখানে সাস্প্রতিক বন্যায় অনেক শহর বিধ্বস্ত হয়েছে।

চাঞ্চল্যকর ওই ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে একটি শহরে হু হু করে জল ঢুকছে আর সামনে যা পড়ছে তা ভাসিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। মুহূর্তের মধ্যে একটা গোটা এলাকা জলমগ্ন হচ্ছে আর সেই সঙ্গে ভেসে যাচ্ছে দাঁড়িয়ে থাকা গাড়ি। ভিডিওটি একটি বাড়ির ছাদ থেকে তোলা।
চিনের বলে যে ভাইরাল ভিডিওটি ফেসবুকে চলছে সেটি এখানে দেখুন। আর্কাইভ সংস্করণটি দেখুন এখানে
ভিডিওটির ক্যাপশনে চিনের প্রতি কটাক্ষ করে এক অসমর্থিত দাবিতে বলা হয়েছে নভেল করোনা ভাইরাস (এসএআরএস-কভ-২) মানুষের তৈরি এবং তা উহানের একটি গবেষণাগারে সৃষ্টি করা হয়। হিন্দিতে লেখা ক্যাপশনে বলা হয়, "চিন ভাইরাসটি পাঠিয়ে বিশ্বের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। এবার ভগবান তাদের (চিনের) সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করছেন।"
(হিন্দিতে লেখা ক্যাপশনটি এই রকম: चीन ने वायरस भेजकर दुनिया को धोखा दिया अब ऊपर वाला उसे धोखा दे रहा है)
সেই রকম একটি পোস্ট দেখতে এখানে ক্লিক করুন, আর্কাইভ দেখতে এখানে
যাচাই করার জন্য ওই একই ফুটেজ বুমের হেল্পলাইনেও পাঠানো হয়।
বুমের কাছে পাঠানো বার্তার স্ক্রিনশট
ওই একই ভিডিও এ বছর মার্চেও শেয়ার করা হয় এই বলে যে, লাওসের আসুপ্পোতে একটি জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র ভেঙ্গে পড়ার দৃশ্য সেটি। দাবিটি খণ্ডন-করা লেখাটি এখানে পড়ুন।
তথ্য যাচাই
ভিডিওটির প্রধান ফ্রেমগুলি দিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ করলে, আমরা ওই ভিডিওর একটি ৪ মিনিট ২৪ সেকেন্ডের বড় সংস্করণের সন্ধান পাই। সেটি ৩০ এপ্রিল ২০১২'য় ইউটিউবে
আপলোড
করা হয়। ভিডিওটির বিবরণে বলা হয় সেটিতে ২০১১ সালে জাপানের ইশিনোমাকির সুনামির দৃশ্য ধরে রাখা হয়েছে।
ওই ব্যবহারকারী 'তাকুরো সুজুকি' নামের আরও এক ইউটিউব চ্যানেলের প্রতি কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেন। ওই চ্যানেলটি ডিসেম্বর ২০১১'য় ভিডিওটি ওই প্ল্যাটফর্মে আপলোড করেছিল। যিনি আপলোড করেন, তিনি জানান ভিডিওটি মিয়াগি অঞ্চলে তোলা হয়।

ভিডিওর বিবরণ এই রকম: "পূর্ব জাপানে ভূমিকম্পের পর ইশিনোমাকির জলোচ্ছ্বাস। মিয়াগিতে ইশিনোমাকির ছবি। এই রকম খারাপ অবস্থায় আটকে পড়বেন না। এটা এক অসম্ভব পরিস্থিতি। আমি ইশিনোমাকি গ্যাস কম্পানির বাড়ির ছাদ থেকে ছবি তুলছি।"
ছবিটি যে মিয়াগি প্রিফেক্চারে ইশিনোমাকি সিটিতে ইশিনোমাকি গ্যাস কম্পানির পাশ থেকে তোলা হয়, সে ব্যাপারে নিশ্চিত হয় বুম। ভিডিওটি থেকে নেওয়া স্ক্রিনগ্র্যাব আর গুগুল ম্যাপ থেকে পাওয়া ছবি তুলনার জন্য নীচে দেওয়া হল। কারখানার রাস্তার ছবি দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন।

ইশিনোমাকি গ্যাস কম্পানির ওয়েবসাইটে দেওয়া একটি ঘটনাক্রমে দেখা যায়, পূর্ব জাপানের ওই অঞ্চলকে ২০১১'র মার্চে প্রবল ভূমিকম্প আঘাত করে। তার ফলে ওই কম্পানির প্রধান কার্যালয় ও কারখানা সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
নিক্কেই-তে প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয় ক্ষতিগ্রস্ত ইশিনোমাকি গ্যাস কম্পানির উৎপাদন ব্যবস্থা ২০১২'র মধ্যে সারিয়ে ফেলা যাবে। নিক্কেই-র রিপোর্ট এখানে পড়ুন।

Claim Review :   ভিডিও দেখায় চিনের সাম্প্রতিক বন্যার দৃশ্য
Claimed By :  Facebook Post & WhatsApp Message
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story