২০১৪'র আগ্রার ছবিকে হরিয়ানায় মুসলিম পরিবারের ধর্মান্তরিতকরণ বলা হল

বুম যাচাই করে দেখে ছবিগুলি আসলে ২০১৪ সালের। উত্তরপ্রদেশের আগ্রায় ২০০ জন মুসলিম হিন্দু ধর্ম দীক্ষিত হয়েছিল ওই সময়।

উত্তরপ্রদেশের আগ্রায় ২০০ মুসলিম ধর্মাবলম্বীর হিন্দু ধর্ম দীক্ষিত হওয়ার ২০১৪ সালের পুরনো ছবি শেয়ার করে দাবি করা হয়েছে সেটি হরিয়ানায় ৪০ টি মুসলিম পরিবারের ধর্মান্তরিত হওয়ার ঘটনা। হরিয়ানার হিসার জেলার বিধমিরা গ্রামে ২০২০ সালের মে মাসে ৪০ টি পরিবারের ২৫০ জন সদস্য হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করায় খবরের শিরোনামে আসে। সোশাল মিডিয়ায় এই ঘটনার সঙ্গে আগ্রার পুরনো ছবিটি শেয়ার করা হচ্ছে।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া পোস্টে একই দৃশ্যের তিনিটি ছবি শেয়ার করা হয়েছে। ছবিগুলিতে দেখা যাচ্ছে যে ইসলামিক টুপি পরে কিছু পুরুষ ও শাড়ি পরিহিত মহিলা আগুনের সামনে বসে হিন্দু রীতিতে যজ্ঞ করছে। তাদের সঙ্গে গেরুয়া উত্তরীয় গলায় সাদা পোশাকে বসে রয়েছেন আরও দুই ব্যক্তি। কয়েকজন দর্শক দাঁড়িয়ে ঘটনাটি দেখছেন। তাদের হাতে গেরুয়া পাতাকা রয়েছে।

ফেসবুক পোস্টটিতে ক্যাপশন হল, "আজাদ ভারত, অখন্ড ভারতের সব থেকে বড় খবর, হরিয়ানায় ৪০ টি মুসলিম পরিবারে হিন্দু ধর্ম গ্রহণ করলেন, এবং তারা বললেন যে-আমরা আগে হিন্দু ছিলাম, কিন্তু তৎকালীন জিহাদি অরঙ্গজেবের অত্যাচারে আমরা মুসলিম হতে বাধ্য হয়"

পোস্টটি দেখা যাবে এখানে। পোস্টটি আর্কাইভ করা হয়েছে এখানে

তথ্য যাচাই

বুম রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখে যে ছবিটি আসলে ২০১৪ সালের উত্তরপ্রদেশের আগ্রার একটি ঘটনার।

ওই সময় আরএসএস-এর শাখা সংগঠেন "ধর্ম জাগরণ সমন্বয় বিভাগ" এবং "বজরঙ্গ দল" সম্মিলিত প্রয়াসে ৫৭ টি পরিবারের ২০০ জন মুসলিমকে এক বিতর্কিত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে হিন্দু ধর্মে দীক্ষিত করেছিলেন। বিষয়টি নিয়ে এনডিটিভিতে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল।


তিনটি ছবিই একই ঘটনার কারণ ছবি তিনটিতে একই ব্যক্তিদের দেখা যায়। টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত প্রতিবেদনেও দেখা যাবে ছবিটি।

রেশন কার্ড ও অন্যান্য সুযোগ সুবিধার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয় ওই ধর্মান্তকরণ অনুষ্ঠানে। পরে উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়। বিষয়টি নিয়ে পরে সংসদের অধিবেশনে বাদানুবাদ সৃষ্টি হয়।

Claim Review :  ছবির দাবি হরিয়ানাতে ৪০ টি মুসলিম পরিবারের হিন্দু ধর্মে ধর্মান্তরিত হচ্ছে
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story