২০১৯ সালের ভিডিওকে সৌদি আরবে সামাজিক দূরত্ব বিধিভঙ্গ বলে চালানো হচ্ছে

বুম খুঁজে দেখে মূল ভিডিওটি ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসের। এর সঙ্গে লকডাউন বা সামাজিক দূরত্ব বিধিভঙ্গের কোনও সম্পর্ক নেই।

শাটার তুলে দেওয়ার পর বোরখা পরা বেশ কিছু মহিলা একটি মল-এ ভিড় করে ঢুকছে, এমন একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, এটি সৌদি আরবে লকডাউন শিথিল করার পর সামাজিক দূরত্ব বিধিভঙ্গ করার নিদর্শন। কিন্তু বুম দেখেছে, ভিডিওটি ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে আপলোড করা হয়েছিল, যখন লকডাউন কিংবা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বিধি তৈরিই হয়নি, সুতরাং তা লঙ্ঘন করার প্রশ্নও ওঠে না।

বিশ্বের অনেক দেশই প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারীর মোকাবিলায় লকডাউন কার্যকর করেছিল। ভারত তার লকডাউনের চতুর্থ পর্যায়ে এসে ১৭ মে থেকে অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করার লক্ষ্যে জনসাধারণের ঘোরাফেরার ওপর নিয়ন্ত্রণের সেই বিধি কিছুটা শিখিল করতে শুরু করে। একই ভাবে সৌদি আরবও ২৫ এপ্রিল থেকে লকডাউনের বিধিনিয়ম আলগা করতে শুরু করে। একটি
রিপোর্ট
অনুযায়ী রমজানের মাসে মল ও বিপণনকেন্দ্রগুলি ২৫ মে পর্যন্ত খুলে দেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়।

ঈদের মুখে এসে এই ভিডিওটি ভাইরাল করা হয় এটা বোঝাতে যে, লোকে বিপুল সংখ্যায় কেনাকাটা করতে বেরিয়ে সামাজিক দূরত্বের বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখাচ্ছে।

৯০ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি কোনও বাণিজ্যকেন্দ্রের ভিতর থেকে তোলা হয়, যাতে দেখা যাচ্ছে, প্রবেশপথের কাছে বহু লোক ভিড় করে রয়েছে। যে মুহূর্তে শাটার তোলা হল, অমনি হুড়মুড়িয়ে একসঙ্গে সব লোক ঢুকতে শুরু করলো। ভিডিওটি বিভিন্ন ক্যাপশন দিয়ে শেয়ার করা হয়েছে।

একটি হিন্দি ক্যাপশনে লেখা হয়: "সৌদি আরবের একটি মল-এ সেল শুরু হলে কর্মীদের পক্ষে বিপুল ক্রেতাদের ভিড় সামলানো দুষ্কর হয়ে পড়ে। যে মুহূর্তে শাটার তোলা হয়, লোকেরা এমন হুড়োহুড়ি করে ঢুকতে যায়, যেন ভিতরে বিনা পয়সায় খাবার বিলি করা হচ্ছে। মহিলাদের বিশেষ করে ঠেলে পাঠানো হয়, যাতে তারা ১০টা জিনিসের দাম দিয়ে ৫০টা জিনিস চুরি করে আনতে পারে। চোরাই জিনিস লুকিয়ে রাখার মতো অনেক স্থানই বোরখায় থাকে। তেলের কুয়ো শুকিয়ে যাওয়া এবং বাজারের চাহিদা হ্রাস পাওয়ার প্রতিফলন এই ঘটনায় খুব স্পষ্ট।"

(হিন্দিতে মূল ক্যাপশন: सऊदी के एक मॉल में सेल लगी तो स्टोर के कर्मचारियों को बेहिसाब भीड़ को काबू करना मुश्किल हो गया, सटर खुलते ही भीड़ इस कदर अंदर घुसी कि मानो अंदर मुफ्त का भोजन बंट रहा हो और खासतौर से औरतों को ही इस स्टोर को लूटने के लिए भेजा गया, ताकि 50 आइटम दबाने पर मात्र दस के ही पैसे देने पड़ेंगे, बाकी तो काफी जगह होती है समान को छिपाने की, तेल के सूखने या डिमांड कम होने का असर साफ दिखने लगा है |)

একই ভিডিও অন্য ক্যাপশনেও শেয়ার হয়, যেখানে লেখা হয়েছে "লকডাউন উঠে যাওয়ার পর সৌদি আরবের শপিং মল।"


তথ্য যাচাই

ভাইরাল হওয়া এই ভিডিও ক্লিপগুলির স্ক্রিনশট পরীক্ষা করে বুম দেখেছে, এগুলি ২০১৯ সালের ৩ ডিসেম্বর ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছিল, যার ক্যাপশন ছিল, "সব জিনিসই ৫ রিয়ালে কেনা যায়, এরকম একটি দোকানে ঢোকার জন্য মহিলাদের অপেক্ষা।"


আরবি ভাষায় প্রায় একই ধরনের ক্যাপশন দিয়ে টুইটারে ভিডিওটি শেয়ার হয় ৪ ডিসেম্বর, ২০১৯। ক্যাপশনটি অনুবাদ করলে দাঁড়ায়, সৌদি আরবে সব জিনিসই একই দামে অর্থাৎ ৫ রিয়ালে কেনার দোকান।

আরবি ভাষায় অন্য একটি টুইটার হ্যান্ডেল @AkhbarMakkah থেকে ছাড়া একটি টুইটে দাবি করা হয় ভিডিওটি আল-সাওখিয়ার একটি স্টোরে তোলা হয়েছে।

গুগল ক্যাপশনটির অনুবাদ করেছে এ রকম, "গতকাল এই ঘটনাই ঘটে আল-সাওখিয়ার একটি দোকানে, যখন দাম কমিয়ে ৫ রিয়ালে সবকিছু বিক্রির ঘোষণা করা হয় এবং পরিস্থিতি সামলাতে নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করতে হয়।"

ভিডিওটি ঠিক কোন স্থানে তোলা হয়েছে, বুম তা নিজে থেকে যাচাই করে দেখতে পারেনি, তবে একটা ব্যাপারে নিশ্চিত হতে পেরেছে যে, এটি কোনও সাম্প্রতিক দৃশ্য নয়।

আরও পড়ুন: 'টাইম... টু গো'—এই শিরোনামে টাইম ম্যাগাজিনের প্রচ্ছদটি ভুয়ো

Updated On: 2020-06-04T19:34:36+05:30
Claim Review :  লকডাউনের নিয়ম শিথিল করায় সৌদি আরবের একটি মলে ঢোকার চেষ্টা করছে জনতা
Claimed By :  Social Media Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story